৫:২১ এএম, ১৭ জুন ২০১৯, সোমবার | | ১৩ শাওয়াল ১৪৪০




অপরাধ স্বীকার করেছিলেন আমির আফ্রিদির এক থাপ্পড়ে

১৩ জুন ২০১৯, ১০:৩৩ এএম | নকিব


এসএনএন২৪.কম : ২০১০ সালে স্পট ফিক্সিংয়ের অভিযোগে গ্রেফতার করা হয় পাকিস্তানি পেসার মোহাম্মদ আমিরকে। 

আর এই ফিক্সিংয়ের কথা শহীদ আফ্রিদির একটা থাপ্পড় খাওয়ার পর নাকি স্বীকার করেছিলেন তিনি।  বিশ্বকাপ চলাকালে ৯ বছর আগের সেই ঘটনা প্রসঙ্গে এ কথা জানিয়েছেন পাকিস্তানের সাবেক তারকা অলরাউন্ডার আব্দুল রাজ্জাক। 

আমির অবশ্য চলতি বিশ্বকাপে পাকিস্তানের বোলিং আক্রমণের অন্যতম ভরসা।  ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে ওয়ানডে সিরিজে হতশ্রী পারফরম্যান্সের পরেই নির্বাচকরা আমিরকে বিশ্বকাপের দলে ফেরানোর কথা ভাবনাচিন্তা করেন। 

আমির নিজের সেরাটাই দেওয়ার চেষ্টা করছেন ইংল্যান্ডের মাটিতে অনুষ্ঠিত বিশ্বকাপে।  বুধবার তো এই সংস্করণের ক্রিকেটে প্রথম বারের মতো ৫ উইকেট তুলে নিেছেন এই পেসার।  ৯ বছর আগে এই ইংল্যান্ডের মাটিতেই স্পট ফিক্সিং কাণ্ডে জড়িয়ে পড়েছিলেন আমির। 

২০১০ সালে ইংল্যান্ড সফরে গিয়েছিল পাকিস্তান।  লর্ডসে অনুষ্ঠিত চতুর্থ ও শেষ টেস্টে ইচ্ছা করে নো বল করেন মোহম্মদ আসিফ ও আমির।  পাকিস্তানের টেস্ট দলের অধিনায়ক তখন সলমান বাট।  তিনিও এই ঘটনার সঙ্গে জড়িয়ে পড়েছিলেন।  স্পট ফিক্সিং কাণ্ডে নিষিদ্ধ করা হয়েছিল তিন পাকিস্তানি ক্রিকেটারকে। 

২০১১ সালে ইংল্যান্ডের আদালতে নিজের অপরাধের কথা স্বীকার করেন আমির।  তার আগে তৎকালীন অধিনায়ক আফ্রিদি আলাদা করে কথা বলেছিলেন আমিরের সঙ্গে।  সেখানে উপস্থিত ছিলেন রাজ্জাকও। 

কী ঘটেছিল স দিন? একটি নিউজ চ্যানেলকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে রাজ্জাক বলেন, ‘‘আফ্রিদি আমাকে ঘরের বাইরে যেতে বলেছিল।  আমি বেরিয়ে গিয়েছিলাম ঘর থেকে।  কিছুক্ষণ পরেই একটা জোরালো থাপ্পড়ের শব্দ শুনতে পাই।  এরপরেই আমির পুরো সত্যিটা জানায়। ’’

পাঁচ বছরের নির্বাসন কাটিয়ে ক্রিকেটে ফিরেছেন তিন পাকিস্তানি ক্রিকেটারই।  তবে তাদের মধ্যে আমিরই শুধু দেশের হয়ে খেলার জন্য নির্বাচিত হয়েছেন।  তবে বিশ্বকাপের মধ্যে নয় বছর আগের সেই ঘটনা হঠাৎ করে কেন তুললেন রাজ্জাক, তা অবশ্য পরিষ্কার নয়।