৩:৫৩ পিএম, ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, বৃহস্পতিবার | | ১৫ জমাদিউস সানি ১৪৪০




অব্যাহত পতনে সূচক ৫৬০০ পয়েন্টের নিচে

১৬ এপ্রিল ২০১৭, ০৪:৩৮ এএম | নিশি


এসএনএন২৪.কম : টানা ৮ কার্যদিবসে ধারাবাহিক দর পতনে দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) সার্বিক মূল্য সূচক ৫৭৭৭.১১ পয়েন্ট থেকে ৫৫৯২.৮৩ পয়েন্টে নেমে এসেছে।  এসময় ডিএসই’র সার্বিক মূল্য সূচক কমেছে ১৮৪.২৮ পয়েন্ট।  লেনদেনে মন্দা অব্যাহত থাকলেও ডিএসইতে ৭২৪ কোটি ২২ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। 

এদিকে, চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সাধারণ মূল্য সূচক গত ৮ কার্যদিবসে কমেছে ৩৬৬.৫১ পয়েন্ট।  ডিএসই ও সিএসই’র বাজার পর্যালোচনায় এ তথ্য জানা গেছে। 

বাজার পর্যালোচনায় দেখা যায়, ডিএসইতে লেনদেন হয় ৩২৬টি কোম্পানি ও ফান্ডের।  এ সময় দর বেড়েছে ৯০টির, কমেছে ১৯৬টির ও অপরিবর্তিত ছিল ৪০টি প্রতিষ্ঠানের।  এ সময় ২৩ কোটি ৫৭ লাখ ৬৪ হাজার ৭৯৩টি শেয়ার লেনদেন হয়।  যার বাজারমূল্য ছিল ৭২৪ কোটি ২২ লাখ টাকা।  এর আগের কার্যদিবসে ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৫৯৫ কোটি ৭৯ লাখ টাকা।  অর্থাৎ রোববার ডিএসইতে লেনদেন বেড়েছে ১২৮ কোটি ৪৩ লাখ টাকা। 

দিন শেষে ডিএসইর সার্বিক মূল্যসূচক ডিএসইএক্স আগের কার্যদিবসের তুলনায় ৫৩.০৩ পয়েন্ট কমে ৫৫৯২.৮৩ পয়েন্টে স্থিতি পায়।  এ সময় শরীয়াহভিত্তিক কোম্পানিগুলোর মূল্যসূচক ডিএসইএস কমেছে ৮.১১ পয়েন্ট ও ডিএস-৩০ সূচক কমেছে ২৭.৬৩ পয়েন্ট। 

ডিএসইতে টার্নওভার তালিকায় শীর্ষে উঠে এসেছে আর্থিক খাতের কোম্পানি লংকাবাংলা ফাইন্যান্স।  এদিন কোম্পানিটির ৪৬ কোটি ৬৫ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে।  টার্নওভারে দ্বিতীয় অবস্থানে ছিল সিটি ব্যাংক, প্রতিষ্ঠানটির ৩০ কোটি ৮৫ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে।  ২৪ কোটি ৩৪ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেনে তৃতীয় স্থানে ছিল ইভেন্স টেক্সটাইল। 

এ ছাড়াও টার্নওভার তালিকায় থাকায় কোম্পানিগুলোর মধ্যে প্যারামাউন্ট টেক্সটাইলের ১৮ কোটি ৭৮ লাখ টাকা, বেক্সিমকো’র ১৭ কোটি ৬৩ লাখ টাকা, বাংলাদেশ বিল্ডিং সিস্টেমসের ১৬ কোটি ৮৯ লাখ টাকা, তুং হাই টেক্সটাইলের ১৬ কোটি ৮২ লাখ টাকা, সেন্ট্রাল ফার্মার ১৬ কোটি ৫২ লাখ টাকা, আরএসআরএম স্টিলের ১৫ কোটি ৬৫ লাখ টাকা ও খান ব্রার্দাস পিপি ওভেনের ১৪ কোটি ৮৪ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। 

চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সাধারণ মূল্যসূচক সিএসসিএক্স ৯২.১৫ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ১০ হাজার ৫০১ পয়েন্টে।  দিনশেষে সিএসইতে ৪৭ কোটি ২০ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়।  লেনদেন হওয়া ২৩৭টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে দর বেড়েছে ৬৮টির, কমেছে ১৪০টির এবং অপরিবর্তিত ছিল ২৯টির। 

সিএসইতে টার্নওভার তালিকায় শীর্ষে ছিল জেনারেশন নেক্সট।  এ সময় কোম্পানিটির ৪ কোটি ২ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়।  টার্নওভার তালিকায় থাকা অন্য কোম্পানিগুলো হলো- হামিদ ফেব্রিকস, বেক্সিমকো, সিটি ব্যাংক, ইভেন্স টেক্সটাইল, খান ব্রার্দাস, রিজেন্ট টেক্সটাইল, তুং হাই নিটিং, ব্র্যাক ব্যাংক ও লংকাবাংলা ফাইন্যান্স।