৩:০৭ পিএম, ১৮ জুন ২০১৯, মঙ্গলবার | | ১৪ শাওয়াল ১৪৪০




অবহেলিত জনপদে আলো ছড়াচ্ছেন প্রকৌশলী

৩১ মে ২০১৯, ০৩:৪৬ পিএম | জাহিদ


আজিজুল ইসলাম বারী, লালমনিরহাট : সীমান্তবর্তী জেলা লালমনিরহাটের পাটগ্রাম ও হাতীবান্ধা উপজেলায় আলো ছড়াচ্ছেন কম্পিউটার প্রকৌশলী এ টি এম ইফতেখার হোসেন মাসুদ।  বিভিন্ন সামাজিক উন্নয়নমূলক কাজ করার জন্য এলাকায় আলোকিত মানুষ হিসেবে পরিচিতি পেয়েছেন তিনি। 

বিভিন্ন স্কুল ও কলেজে মাদকবিরোধী কর্মশালার আয়োজন করেন।  চিকিৎসাসেবার জন্য স্থানীয় ক্লিনিকে অ্যাম্বুল্যান্সসহ বিভিন্ন যন্ত্রপাতি দিয়েছেন।  এ ছাড়া তিনি এতিমদের সহায়তা, গরিব মেধাবীদের শিক্ষাবৃত্তি, যুবসমাজকে স্বকর্মসংস্থানে উৎসাহ ও গ্রাম্য নারীদের আয়ের ব্যবস্থা করে দিচ্ছেন।  ২০১৩ সালে তাঁর প্রতিষ্ঠিত ‘আলোকিত বাংলাদেশ ফাউন্ডেশন’-এর মাধ্যমে এ কাজ করছেন তিনি। 

লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলার বড়খাতা ইউনিয়নে ১৯৮১ সালে জন্মগ্রহণ করেন প্রকৌশলী মাসুদ।  লালমনিরহাট-১ আসনের (হাতীবান্ধা-পাটগ্রাম) সাবেক প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মুক্তিযোদ্ধা মোতাহার হোসেন ও স্কুল শিক্ষিকা মোসলেমা খাতুনের দ্বিতীয় ছেলে তিনি।  তুরস্কের ইস্তাম্বুল টেকনিক্যাল ইউনিভার্সিটিতে কম্পিউটার প্রকৌশলে পড়াশোনা করেছেন। 

কম্পিউটার প্রকৌশলী মাসুদ এরই মধ্যে বেশ কয়েকজন গরিব শিক্ষার্থীকে শিক্ষাবৃত্তির ব্যবস্থা করে দিয়ে উচ্চতর শিক্ষাগ্রহণের সুযোগ করে দিয়েছেন।  ‘আলোকিত বাংলাদেশ ফাউন্ডেশন’ থেকে বৃত্তি নিয়ে তুরস্কের ইস্তাম্বুলের গেবজে প্রকৌশলী বিশ্ববিদ্যালয়ে কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশলী বিভাগে পড়াশোনা করছেন শিহাব আহমেদ।  তিনি হাতীবান্ধার সাড়ডুবী এলাকার একটি সাধারণ পরিবারের ছেলে।  শাকসবজি বিক্রি করে পড়াশোনা করেছেন। 

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে তথ্যবিজ্ঞান ও গ্রন্থাগার ব্যবস্থাপনা বিভাগের শিক্ষার্থী আনিসুর রহমান বলেন, ‘আর্থিক সংকটের কারণে আমার পড়াশোনা বন্ধ হওয়ার উপক্রম হয়েছিল।  পরে আলোকিত বাংলাদেশ ফাউন্ডেশন আমাকে বৃত্তির ব্যবস্থা করে দেয়। ’

কম্পিউটার প্রকৌশলী ইফতেখার হোসেন মাসুদ বলেন, ‘আমি যত দিন বেঁচে আছি, মানুষের সেবা করে বেেঁচ থাকতে চাই। ’