৮:৫০ এএম, ২৭ মার্চ ২০১৯, বুধবার | | ২০ রজব ১৪৪০




মে দিবসে চট্টগ্রাম বিভাগীয় শ্রমিক দলের আলোচনা সভায় খোকন

'আওয়ামী লীগ সরকার শ্রমিক বান্ধব নয়'

০১ মে ২০১৭, ০৩:০৫ এএম | মোহাম্মদ হেলাল


এসএনএন২৪.কম ডেস্ক : বিএনপি’র যুগ্ম মহাসচিব, বিশিষ্ট আইনজীবি মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেছেন, সারা বাংলাদেশে শ্রমিকরা আজ মিছিল করছে।  কিন্তু শ্রমিকদলকে পুলিশ মিছিল করতে দিচ্ছে না।  একদেশে দুই আইন হতে পারে না।  সরকারি দলের জন্য এক, আর বিরোধী দলের জন্য নির্যাতন।  দেশে আওয়ামী লীগের দুঃশাসন চলছে।  ক্ষমতাকে কুক্ষিগত করতে দেশের স্বাথ বিকিয়ে দিতে কুণ্ঠাবোধ করছে না আওয়ামী লীগ। 

তিনি আরো বলেন, খালেদা জিয়ার কথা শুনলেই আওয়ামী লীগ চমকে উঠে।  আওয়ামী লীগের কাজ হচ্ছে খালেদা জিয়ার গিবত করা।  এদেশ থেকে বাকশালীদের বিতাড়িত করতে শ্রমিকদের ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।  এই সরকার শ্রমিকবান্ধব নয়। 

বিএনপি’র যুগ্ম মহাসচিব খন্দকার মাহবুব হোসেন অদ্য বেলা ১২টায় নাসিমন ভবনস্থ দলীয় কার্যালয় চত্বরে মে দিবস উপলক্ষে চট্টগ্রাম বিভাগীয় শ্রমিক দলের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন। 

প্রধান বক্তার বক্তব্যে চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপি’র সভাপতি ডা. শাহাদাত হোসেন বলেন সরকার বরাবরই শ্রমিকদের ক্ষমতায় যাওয়ার সিড়ি হিসেবে ব্যবহার করেছে।  তাদের স্বার্থরক্ষায় কোন কাজ করেন নি।  শ্রমিকদের নিম্ন বেতন ৪৫০০ টাকা করা হলেও তা বাস্তবায়িত হচ্ছে না।  শ্রমিকদের জন্য আলাদা শ্রমিক কলোনী করার দাবি জানান। 

তিনি আরো বলেন, শ্রমিক বিদ্বেষী এই সরকারকে হঠাতে শ্রমিকদের ঐক্যবদ্ধ হয়ে রাজপথে নামতে হবে।  বিশেষ অতিথি চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক আবুল হাশেম বক্কর বলেন গণতন্ত্রের সরকার প্রতিষ্ঠা হলে শ্রমিকদের সুদিন ফিরে আসবে।  গণতান্ত্রিক সরকার প্রতিষ্ঠার জন্য শ্রমিকদের রাজপথের আন্দোলনে যুক্ত হওয়ার আহŸান জানান। 

চট্টগ্রাম বিভাগীয় শ্রমিকদলের সভাপতি এ এম নাজিম উদ্দিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন বিএনপি’র যুগ্ম মহাসচিব খন্দকার মাহবুব উদ্দিন।  প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপি’র সভাপতি ডা. শাহাদাত হোসেন, বিশেষ অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক আবুল হাশেম বক্কর।  বিভাগীয় শ্রমিক দলের সাধারণ সম্পাদক কাজী শেখ নুরুল্লাহ বাহারের সঞ্চালনায় সভায় আরো বক্তব্য রাখেন বিএনপি নেতা আবদুস সাত্তার, মোশাররফ হোসেন দীপ্তি, মনোয়ার বেগম মনি, ফাতেহা বাদশা, শ্রমিক দল নেতা স ম জামাল, শামসুল আলম, কামাল পাশা, এম আর মঞ্জু, শাহনাজ চৌধুরী, এস এম আজিম, গাজী আইয়ুব, শফিকুর রহমান মজুমদার, আবদুল বাতেন, আবু বক্কর, মো: আলী, আবু তৈয়ব, মো; সাইফুল, জসিম উদ্দিন, রফিকুল ইসলাম, সাইদুল হক সাদী, আবদুল মান্নান, নূর নবী, আলতাফ হোসেন, মো: ফরিদ, মো: শহিদ, মো: কাসেম, খন্দকার নুরুল ইসলাম, সিহাব উদ্দিন নূরী, সাইফুর রহমান শওকত, আবু মুসা প্রমুখ। 



keya