১২:৩৭ এএম, ২৫ নভেম্বর ২০১৭, শনিবার | | ৬ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯

South Asian College

‘আগামী সংসদ নির্বাচনে সেনা মোতায়েন হবে’

১৩ নভেম্বর ২০১৭, ০৯:১২ পিএম | সাদি


এসএনএন২৪.কম : আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সেনাবাহিনী মোতায়েন করা হবে বলে জানিয়েছেন নির্বাচন কমিশনার (ইসি) মাহবুব তালুকদার।  তবে তিনি বলেন, ‘নির্বাচনে সেনাবাহিনী মোতায়েন হলেও এখানে একটি ‘কিন্তু’ আছে।  সেনাবাহিনীকে আমরা কীভাবে কাজে লাগাবো, নির্বাচনী প্রক্রিয়ায় সেনাবাহিনী কীভাবে যুক্ত হবে, সেটি বলার সময় এখনো হয়নি।  কমিশনে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত হবে।  আমি কখনোই বলতে পারবো না যে,  নির্বাচনে সেনা মোতায়েন হবে না। ’

সোমবার বিকালে আগারগাঁওয়ে নির্বাচন ভবনে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এসব কথা বলেন।  

আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সেনাবাহিনী মোতায়েন হবে কি না এটা নিয়ে ইসির সঙ্গে সংলাপে দুই ধরনের প্রস্তাবই দিয়েছে রাজনৈতিক দল ও সুশীল সমাজ।  বিএনপি শুরু থেকেই নির্বাচনে বিচারিক ক্ষমতা দিয়ে সেনাবাহিনী মোতায়েনের পক্ষে থাকলেও সরকারি দলের অবস্থান এর বিপক্ষে। 

গতকাল সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের সমাবেশে দীর্ঘ বক্তব্যে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া আগামী নির্বাচনে বিচারিক ক্ষমতা দিয়ে সেনাবাহিনী মোতায়েনের জোরালো দাবি জানান।  খালেদা জিয়ার বক্তব্য সম্পর্কে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে ইসি মাহবুব তালুকদার সাংবাদিকদের জানান তাদের অবস্থানের কথা। 

আগামী নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহার হবে কি না এটা নিয়েও রয়েছে বিতর্ক।  খালেদা জিয়া ইভিএম ব্যবহার না করার দাবি জানিয়েছেন।  এ প্রসঙ্গে ইসি মাহবুব বলেন, ‘আমার মনে হয় আগামী জাতীয় নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহার করা সম্ভব হবে না। ’ তিনি বলেন, ‘আমরা ইভিএমের লোকজন ডেকেছিলাম।  তারা আমাদেরকে সেগুলো দেখিয়েছেন।  আর এর আগে যেসব ইভিএম ব্যবহার করা হয়েছিল সেগুলো সব বাতিল হয়ে গেছে।  তাই সেগুলো ইতোমধ্যে আমরা অকার্যকর বলে ঘোষণা করেছি। ’

ইসি বলেন, ‘আগামী নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহার করতেই হবে আমাদের এমন কোনো চিন্তা নেই।  তবে ভবিষ্যতে নির্বাচন প্রক্রিয়ায় ইভিএম যুক্ত করতে হবে। ’

মাহবুব বলেন, ‘ইভিএম নিয়ে আমাদেরতো প্রাথমিক প্রস্তুতিই নেই।  আমাদেরকে একটি স্বচ্ছ নির্বাচন করতে হবে।  সেই নির্বাচন যদি প্রশ্নবিদ্ধ যন্ত্র দিয়ে হয়, যন্ত্রকে যদি মানুষ নিয়ন্ত্রণ করে, ব্যবহার করে, তাহলে সেটি দিয়ে আমরা প্রশ্নবিদ্ধ নির্বাচন করতে পারি না। ’

তবে তিনি জানান, এটা তার ব্যক্তিগত অভিমত।  তিনি মনে করেন, ইভিএম ব্যবহারের প্রস্তুতির জন্য যে সময় দরকার, যে অগ্রগতি দরকার, তা নির্বাচন কমিশনের হাতে নেই। 

Abu-Dhabi


21-February

keya