৩:৩৩ পিএম, ১৮ জুন ২০১৯, মঙ্গলবার | | ১৪ শাওয়াল ১৪৪০




আনারসের পুষ্টি গুণাগুণ

১২ জুন ২০১৯, ০৯:৫০ এএম | নকিব


এসএনএন২৪.কম : ছোট ছোট আনারসে ভরে গেছে বাজার।  এসব আনারসগুলো যে কারো নজর কাড়তে বাধ্য।  শুধু নজর কাড়া নয়, এই আনারসগুলো স্বাদেও বেশ অতুলনীয়। 

যে কোনো ধরনের ফাস্টফুড জাতীয় খাবারের তুলনায় এই ছোট্ট একেকটা আনারস অনেক বেশি স্বাস্থ্যকর।  তারপরও অনেকে জেনে শুনে আনারস খেতে চান না। 

কিন্তু এই সময়ে আনারস খাওয়া শরীরে জন্য অত্যন্ত জরুরি।  চলুন জেনে নেয়া যাক আনারসের পুষ্টি গুণাগুণ সম্পর্কে। 

১।  পুষ্টির অভাব দূর করে:

আনারস পুষ্টির বেশ বড় একটি উৎস।  আনারসে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন এ এবং সি, ক্যালসিয়াম, পটাশিয়াম ও ফসফরাস।  এই সকল উপাদান আমাদের দেহের পুষ্টির অভাব পূরণে কার্যকরী ভূমিকা পালন করে।  প্রতিদিন অল্প পরিমাণে আনারস খেলে দেহে এইসকল পুষ্টি উপাদানের অভাব থাকবে না। 

২।  হজমশক্তি বাড়ায়:

আনারস আমাদের হজমশক্তি বৃদ্ধি করতে বেশ কার্যকরী।  আনারসে রয়েছে ব্রোমেলিন যা আমাদের হজমশক্তিকে উন্নত করতে সাহায্য করে। 

৩।  হাড়ের সুস্থতায়:

আনারসে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম ও ম্যাংগানিজ।  ক্যালসিয়াম হাড়ের গঠনে বেশ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে এবং ম্যাংগানিজ হাড়কে করে তোলে মজবুত।  প্রতিদিনের খাবার তালিকায় পরিমিত পরিমান আনারস রাখলে হাড়ের সমস্যাজনিত যে কোনো রোগ প্রতিরোধ করা সম্ভব। 

৪।  ওজন কমায়:

শুনতে বেশ অবাক লাগলেও আনারস আমাদের ওজন কমানোয় বেশ সাহায্য করে।  কারণ আনারসে প্রচুর ফাইবার রয়েছে এবং অনেক কম ফ্যাট।  সকালের যে সময়ে ফলমূল খাওয়া হয় সে সময় আনারস এবং সালাদে আনারস ব্যবহার অথবা আনারসের জুস অনেক বেশি স্বাস্থ্যকর।  তাই ওজন কমাতে চাইলে আনারস খান। 

৫।  চোখের স্বাস্থ্য রক্ষায়:

বিভিন্ন গবেষণায় দেখা যায় যে আনারস ম্যাক্যুলার ডিগ্রেডেশন হওয়া থেকে আমাদের রক্ষা করে।  এই রোগটি আমাদের চোখের রেটিনা নষ্ট করে দেয় এবং আমরা ধীরে ধীরে অন্ধ হয়ে যাই।  আনারসে রয়েছে বেটা ক্যারোটিন।  প্রতিদিন আনারস খেলে এই রোগ হওয়ার সম্ভাবনা ৩০ শতাংশ পর্যন্ত কমে যায়।  এতে সুস্থ থাকে আমাদের চোখ। 

৬।  দাঁত ও মাড়ির সুরক্ষায়:

আনারসের ক্যালসিয়াম দাঁতের সুরক্ষায় কাজ করে।  মাড়ির যে কোনো সমস্যা সমাধান করতে বেশ কার্যকর ভূমিকা পালন করে।  প্রতিদিন আনারস খেলে দাঁতে জীবাণুর আক্রমণ কম হয় এবং দাঁত ঠিক থাকে।