১১:৪১ পিএম, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৭, রোববার | | ৩ মুহররম ১৪৩৯

South Asian College

আনোয়ারায় বেড়িবাধ নির্মাণে অনিয়ম, আটক-৩

১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ০৬:২৬ পিএম | সাদি


আনোয়ারা প্রতিনিধি : আনোয়ারায় বেড়িবাধ নির্মাণে অনিয়মের অভিযোগে তিনজনকে আটক করেছে স্থানীয় জনতা।  বুধবার ভোরে উপজেলার রায়পুর ইউনিয়নের ফকিরহাট এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।  আটক তিনজন হলো, চকরিয়ার তৌহিদুল ইসলাম, কুতুবদিয়ার আবদুল মালেকের পুত্র সুমন ও দিনাজপুরের আবুল খায়েরের পুত্র নাজমুল।  

স্থানীয় সূত্র জানায়, উপকূলীয় রায়পুর ইউনিয়ন ভাঙ্গনরোধে দুইশত আশি কোটি টাকা ব্যায়ে বেড়িবাধ নির্মানের জন্য বরাদ্দ দেয় সরকার।  এ  লক্ষে ভাঙ্গন প্রতিরোধের জন্য বারো হাজার বস্তা বালু নদীতে ফেলার জন্য তৈরি করা হয়।  গত কিছুদিন আগে বারো হাজার বস্তা বালুগুলো পরিদর্শন করে প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর ও পানি উন্নয়ন বোর্ড।  তারা বস্তাগুলো চিহ্নিত করে তা ব্যবহারের জন্য ঠিকাদারকে নির্দেশ দেয়।  এরই অংশ হিসাবে ঠিকাদার বালিগুলো ফেলানোর জন্য চকরিয়ার তৌহিদ মাঝিকে এ কাজের দায়িত্ব দেন। 

গত কয়েকদিন কিছু বস্তা নদীতে ফেললেও গত বুধবার ভোরে তার নেতৃত্বে দশ বারো জন শ্রমিক নিয়ে জিও ব্যাগ থেকে বালিগুলো আলাদা করতে দেখে স্থানীয় ইউপি সদস্য ঈসমাইলকে খবর দিলে শ্রমিকরা পালিয়ে গেলেও  তিনজনকে আটক করে।  পরে তাদের জিজ্ঞাসাবাদে তারা স্বীকার করে নদীতে জিও ব্যাগ নদীতে না ফেলিয়ে, বালিগুলো আবার অন্য জিও ব্যাগে ভরার জন্য তারা এ কাজ করেছে বলে স্বীকার করেছে।   আটক তিনজনের মধ্যে তৌহিদুল ইসলাম শ্রমিকদের মাঝি ও নাজমুল ঠিকাদারের প্রতিনিধি হিসাবে জানা গেছে।  আটকদের পুলিশের হাতে সোপর্দ করা হয়েছে।  

এব্যাপারে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান জানে আলম জানান, কাজ না করে টাকা নিয়ে নেওয়ার জন্য মাঝি ও ঠিকাদারের প্রতিনিধি মিলে এ কাজ করেছে।  যেন দ্রুত কাজ শেষ করে টাকা নিয়ে বালিগুলো আবার বিক্রি করা যায়। 

এব্যাপারে  চট্টগ্রাম পানি উন্নয়ন বোর্ডের সদস্য ও রায়পুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আমিন শরীফ জানান, সরকারী হিসাবে বারো হাজার জিও ব্যাগ ভাঙ্গনরোধে নদীতে ফেলার জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।  সব জিও ব্যাগ যেন নদীতে ফেলতে না হয় তার জন্য তারা এ কাজ করেছে। 

এব্যাপারে আনোয়ারা থানার উপ-পরিদর্শক জালাল উদ্দীন বলেন, মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।