৪:৪৫ পিএম, ২২ নভেম্বর ২০১৮, বৃহস্পতিবার | | ১৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪০




আশুলিয়ায় চলন্ত বাস থেকে ধাক্কা দিয়ে শিক্ষার্থীকে হত্যার চেষ্টা

১১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০৩:৪১ পিএম | জাহিদ


মাহিদুল মাহিদ, সাভার প্রতিনিধি : সাভারের আশুলিয়ায় চলন্ত বাস থেকে ফেলে দিয়ে এক শিক্ষার্থীকে হত্যার চেষ্টার ঘটনায় চারটি বাস আটকের পরে ওই শিক্ষার্থীর পরিবারকে আর্থিক সহযোগীতা দেওয়ার কথা বলে বাসগুলো ছেড়ে নিয়ে গেলেন কতৃপক্ষ। 

মঙ্গলবার দুপুরে আশুলিয়ার নয়ারহাট এলাকার ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড রিসার্চ (নিটার থেকে) বাসগুলো ছেড়ে নিয়ে যান তারা। 

পুলিশ জানায় গেল শনিবার সকালে রাজধানীর আজিমপুর থেকে আশুলিয়ার নয়ারহাট এলাকার ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড রিসার্চ (নিটার) এর শিক্ষার্থী আসমা আক্তার (২২) ক্যাম্পাসে আসার জন্য নীলাচল পরিবহনে উঠেন পরে তার সাথে বাসের ভিতরে ভাড়ার টাকা নিয়ে ওই বাসের কন্ট্রাকটার সবুজ মিয়ার কথাকাটাকাটি হয় পরে এক পর্যায়ে বাসটি আশুলিয়ার নয়ারহাট এলাকায় ক্যাম্পাসের সামনে আসলে ওই বাসের হেলপার ওই শিক্ষার্থীকে চলন্ত বাস থেকে ফেলে দিয়ে হত্যার চেষ্টা করে দ্রুত পালিয়ে যায়। 

পরে স্থানীয়রা ওই শিক্ষার্থীকে দ্রুত উদ্ধার করে আশুলিয়ার একটি হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করে।  এর পরে ওই ক্যাম্পাসের শিক্ষার্থীরা ঢাকা আরিচা মহাসড়কে চলাচলরত নীলাচল পরিবহনের চারটি বাস আটক করে রাখে ওই বাসের চালক ও হেলপারের শাস্তির দাবিতে।  পরে মঙ্গলবার আশুলিয়া থানার অফিসার ইনচার্য শেখ রিজাউল হক দিপুর মাধ্যমে ওই শিক্ষার্থীর পরিবারকে আর্থিক সহযোগীতার কথা বলে ক্যাম্পাস থেকে আটকে রাখা বাসগুলো ছাড়িয়ে নিয়ে যায়। 

এদিকে বাসগুলো ছেড়ে নিতে আসা নীলাচল পরিবহনের রোড ইনচার্য বাবুল মোল্ল্যা বলেন ওই শিক্ষার্থী হেলপারের সাথে ভাড়ার টাকা নিয়ে ঝগড়া করেছে উচিত ছিলো ওই ছাত্রীকে গাড়ির ভিতরে পিটিয়ে আহত করা কারণ আমরা পরিবহনে যারা কাজ করি তারা সন্ত্রাসী। 

এ বিষয়ে ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড রিসার্চ (নিটার) এর শিক্ষার্থীরা ওই বাসের চালক ও হেলপারের কঠোর শাস্তি দাবি করেছেন।