৭:১৮ পিএম, ১৩ নভেম্বর ২০১৯, বুধবার | | ১৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪১




ইবিতে গ্রেনেড হামলা দিবস পালিত

২১ আগস্ট ২০১৯, ০৬:২০ পিএম | নকিব


মুনজুরুল ইসলাম নাহিদ, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি : আলোচনাসভা, প্রতিবাদ র‌্যালি ও মানববন্ধনের মধ্যদিয়ে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে গ্রেনেড হামলা দিবস ২০১৯ পালিত হয়েছে। 

দিবসটি উপলক্ষে বুধবার (২১ আগস্ট) বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের উদ্যোগে আলোচনাসভা ও প্রতিবাদ র‌্যালী অনুষ্ঠিত হয়। 

এছাড়াও হামলায় জড়িতদের দন্ড দ্রুত কার্যকরের দাবিতে মানববন্ধন করেছে শাখা ছাত্রলীগ।  

বুধবার বেলা ১২টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের বীরশ্রেষ্ঠ হামিদুর রহমান মিলনায়তনে জাতীয় শোক দিবস ও ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা দিবসের আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়। 

শাপলা ফোরামের সভাপতি অধ্যাপক রেজওয়ানুল ইসলামের সভাপতিত্বে প্রধান সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপাচার্য অধ্যাপক ড. হারুন-উর-রশিদ আসকারী।  

বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. শাহিনুর রহমান ও ট্রেজারার অধ্যাপক ড. সেলিম তোহা।  সভায় প্রধান আলোচক ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের বঙ্গবন্ধু চেয়ার ও বাংলা একাডেমির সাবেক মহা পরিচালক ড. শামসুজ্জামান খান।  স্বাগত বক্তব্য দেন রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) এস এম আব্দুল লতিফ। 

এছাড়াও শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. কামাল উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. আলমগীর হোসেন ভূঁইয়া, বঙ্গবন্ধু পরিষদের অধ্য ড. মাহবুবুর রহমান, শাপলা ফোরামের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. মাহবুবর রহমান, শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি রবিউল ইসলাম পলাশ, সাধারণ সম্পাদক রাকিবুল ইসলাম রাকিবসহ বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও কর্মকর্তা-কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন। 

সভায় প্রধান আলোচকের আলোচনায় ড. শামসুজ্জামান খান বলেন, ‘অনেকে রাষ্ট্র নিয়ে চিন্তা করলেও দেশ স্বাধীনের চিন্তা করেনি।  দেশ স্বাধীন হবে, অসাম্প্রদায়িক হবে এই চিন্তা করে বঙ্গবন্ধু সফল হয়েছিলেন।  তার এক ইচ্ছা, এক আকাঙ্খা ছিল দেশ স্বাধীন করতে হবে।  তিনি সেটা করতে পেরেছিলেন।  এজন্য তিনি বাঙ্গালীর সেরা ব্যক্তি, বাঙ্গালী জাতির পিতা।  তিনি ছিলেন একজন চিন্তাশীল ও কর্মের মানুষ যেটি তাকে অনন্য উচ্চতায় অধিষ্ঠিত করেছে। ’ প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপাচার্য বঙ্গবন্ধুর স্মৃতি সংরক্ষণে ও সকলের কাছে তুলে ধরার জন্য জাতীয়ভাবে একটি ‘বঙ্গবন্ধু স্কয়ার’ নির্মাণের প্রস্তাব করেন। 

এর আগে ২১ আগস্ট প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপর গ্রেনেড হামলায় দিবস উপলক্ষে উপাচার্যের নেতৃত্বে প্রতিবাদ র‌্যালি করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।  এদিকে বেলা সাড়ে ১১টায় বঙ্গবন্ধুর খুনিদের ও গ্রেনেড হামলায় জড়িতদের দন্ড দ্রুত কার্যকরের দাবিতে মৃত্যুঞ্জয়ী মুজিব মুর‌্যালের সামনে মানববন্ধন করেছে শাখা ছাত্রলীগের নেতা কর্মীরা।