১১:১৬ পিএম, ২১ নভেম্বর ২০১৯, বৃহস্পতিবার | | ২৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪১




ইবিতে প্রথমবারের মত ‘বৃক্ষ উৎসব’

০৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৪:৫৪ পিএম | নকিব


মুনজুরুল ইসলাম নাহিদ, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি : প্রথবারের মত ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে (ইবি) ‘বৃক্ষ উৎসব’ অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

সোমবার (৯ সেপ্টেম্বর) বেলা ১২টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের রবীন্দ্র-নজরুল কলা ভবনের গ্যালারী কক্ষে কলা অনুষদ ব্যতিক্রমী এ উৎসবের আয়োজন করে। 

অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. সরওয়ার মুর্শেদের সভাপতিত্বে এবং বাংলা বিভাগের অধ্যাপক ড. রশিদুজ্জামানের সঞ্চালনায় উৎসবে প্রধান অতিথি ছিলেন উপাচার্য অধ্যাপক ড. হারুন-উর-রশিদ আসকারী।  বিশেষ অতিথি ছিলেন উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. শাহিনুর রহমান ও কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. সেলিম তোহা। 

‘রবীন্দ্র সংগীত’ ও ‘নজরুল গীতি’র তালে নৃত্য পরিবেশনের মধ্য দিয়ে উৎসব শুরু হয়।  এসময় রাজশাহী অঞ্চলের বিখ্যাত ‘গম্ভীরা’ পরিবেশনের মাধ্যমে বৃক্ষরোপনের গুরুত্ব তুলে ধরে বাংলা বিভাগের শিক্ষার্থীরা।  শিক্ষার্থীদের সাথে শিক্ষকরাও বৃক্ষের বন্দনা করে বিভিন্ন পরিবেশনা উপস্থাপন করেন।  বাংলা বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক ড. মোহাঃ সাইদুর রহমান, অধ্যাপক ড. মনজুর রহমান ও অধ্যাপক ড. শেখ রেজাউল করিম স্বরোচিত যথাক্রমে বৃক্ষপুরাণ, পুষ্পকথা ও কবিতা পাঠ করেন । 

পরে বৃক্ষরোপনের গুরুত্ব বিষয়ে আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়।  আলোচনাসভায় বক্তারা বলেন, বৃক্ষ আমাদের সবচেয়ে বড় বন্ধু।  কিন্তু দিন দিন আমরা বৃক্ষ নিধন করেই চলেছি।  বিশ্বজুড়েই এই নিধনযজ্ঞ চলছে।  ফলে অতিসম্প্রতি ‘পৃথিবীর ফুসফুস’ খ্যাত আমাজান মহাবনও হুমকির মুখে পড়েছে।  পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় বেশি বেশি বৃক্ষরোপনই এখন আমাদের একমাত্র সমাধান।  এসময় বৃক্ষ রোপণে সবাইকে উদ্বুদ্ধ করতে কলা অনুষদের এই ব্যতিক্রমী আয়োজনের প্রশংসা করেন আলোচকবৃন্দ। 

আলোচনা শেষে অতিথিবৃন্দ কলা অনুষদের প্রধান ফটকের সামনে পলাশ চারা রোপন করেন।  এসময় অনুষদের পাশ দিয়ে পঞ্চাশটি পলাশ ও বাংলা মঞ্চের দুইপাশে দুটি বকুলের চারা রোপন করা হয়। 

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মাঝে উপস্থিত ছিলেন আইন অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. রেবা ম-ল, অধ্যাপক ড. তোজাম্মেল হোসেন, অধ্যাপক ড.  আনোয়ার হোসেন, অধ্যাপক ড. মিজানুর রহমান।  অধ্যাপক ড. রহমান হাবিব, অধ্যাপক ড. রবিউল হোসেন, অধ্যাপক ড. রফিকুল ইসলাম, সহযোগী অধ্যাপক ড. সাইফুজ্জামান, ড. ইয়াসমিন আরা সাথী, ইবি প্রেসক্লাবের সভাপতি ফেরদাউসুর রহমান সোহাগ, ইবি সাংবাদিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক হুমায়ুন কবির জীবন প্রমুখ। 


keya