১:৩০ পিএম, ১৩ নভেম্বর ২০১৮, মঙ্গলবার | | ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪০


উপজেলা চেয়ারম্যান সহ ৫৪ জনের বিরুদ্ধে নাশকতার মামলা

০৫ নভেম্বর ২০১৮, ০৯:২৯ পিএম | জাহিদ


সিলেট প্রতিনিধি : সুনামগঞ্জের তাহিরপুরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও)’র বিরুদ্ধে ঝাড়ু– ও জুতা মিছিলের জের ধরে জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক এবং উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান কামরুল সহ ৫৪ জনের বিরুদ্ধে নাশকতার পরিকল্পনার অভিযোগে থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। ’

সোমবার বিকেল সাড়ে ৫টা ওই মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে ১৭ জনকে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। ’

রবিবার দিবাগত রাতে মামলা রেকর্ডের সময় দেখানো হলেও রাতভর ওই মামলায় আগাম গ্রেফতার করা হয় ১৭ ব্যাক্তিকে। ’ থানার এসআই পার্ডন কুমার সিংহ বাদী হয়ে এ মামলাটি দায়ের করেছেন। 

মামলায় গ্রেফতারকৃতরা হলেন,উপজেলা সদর ইউনিয়নের মধ্য তাহিরপুরের নুর মমিন, জাহিদ হাসান, আবদুল বারিক, আমিরুল ইসলাম,আলমাস উদ্দিন, মশিউর রহমান, হুমায়ুন কবির, মহিম উদ্দিন, আজহারুল, আলী জিন্দা, আলী হোসেন, রুশেল মিয়া, সাকিব মুন খোকন, সজল চন্দ্র সরকার, উপজেলার বড়দল (উওর) ইউনিয়নের ব্রাম্মণগাঁও গ্রামের জিলু মিয়া, পৈলনপুর গ্রামের আবু কাহার, মানিগাঁও গ্রামের বাসিন্দা ও উপজেলা সদরের কম্পিউটার কাম ফটোষ্টেট ব্যবসায়ী জহুর আলম। ’

ওই মামলায় সুনামগঞ্জ জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক এবং উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান কামরুল, সদর ইউপি চেয়ারম্যান ও উপজেলা যুবদলের আহবায়ক বোরহান উদ্দিন, উপজেলা শ্রমিক দলের সভাপতি ফেরদৌস আলম, উপজেলা ছাত্রদল সভাপতি মেহেদী হাসান উজ্জল, ইউএনও’র হাতে লাঞ্ছনার শিকার  ব্যবসায়ী বেলায়েত হোসেন সহ ৫৪ জনকে আসামী করা হয়েছে। ’

জানা গেছে, গত শনিবার রাতে ইউএনও কর্তৃক শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত হন অটো রাইছ মিল মালিক ।  এ ঘটনা জানাজানি হলে ইউএনও’র অপসারণের দাবিতে বিক্ষুদ্ধ ব্যবসায়ী ও এলাকাবাসী রোববার দুপুরে উপজেলা সদরে ঝাড়ু ও জুতা মিছিল করেন। 

লাঞ্ছনার শিকার ব্যবসায়ী বেলায়েত হোসেন জানান, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তার নিজ বাসার পাশে ব্যাট খেলার মাঠে শনিবার রাতে তাকে ডেকে নেন।  এরপর অটো রাইছ মিলের পাশে বালু রাখার কাজে বাধা দেয়া হয়েছে কি না জানতে চেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আমাকে চর থাপ্পর মারতে থাকেন। ’

তাহিরপুর থানার ওসি শ্রী নন্দন কান্তি ধর সোমবার রাতে বলেন, ইউএনও স্যারের ঘটনা নিষ্পক্তি হওয়ার পরও রবিবার রাতে ফের স্যারের বাসভবন ঘেরাও ও নাশকতামুলক কর্মকান্ড ঘটানোর পরিকল্পনা করায় গ্রেফতার এবং মামলা দায়ের করা হয়েছে। ’

এ ব্যাপারে বক্তব্য জানতে সোমবার রাতে একাধিকবার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পূর্ণেন্দু দেবের সরকারি মোবাইল ফোনে কল করলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি। ’

সুনামগঞ্জ জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক এবং উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান কামরুল সোমবার বলেন, ইউএনও’র বিরুদ্ধে মিছিলের জের ধরেই এ মামলা দায়ের করা হয়েছে। ’

তিনি আরো বলেন, উপজেলা সদরে আওয়ামীলীগ, বিএনপি, মুক্তিযোদ্ধা, সাধারন লোকজন এবং ব্যবসায়ীরা সম্মিলিত ভাবেই ওই মিছিল করেন কিন্তু শুধু মাত্র বিএনপির নেতাকর্মী, নিরপরাধ সাধারন লোকজন, ব্যবসায়ীদের গ্রেফতার ও মামলায় জড়ানো হয়েছে।