৩:৪৭ পিএম, ৪ জুলাই ২০২০, শনিবার | | ১৩ জ্বিলকদ ১৪৪১




কক্সবাজারের ৩৫টি স্থানে ‘ফ্রি ওয়াই-ফাই’ সুবিধা

১৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০৯:৪৭ এএম | নকিব


এসএনএন২৪.কম: বিশ্বের দীর্ঘতম সমুদ্র সৈকত ও বাংলাদেশের অন্যতম পর্যটন কেন্দ্র কক্সবাজারের গুরুত্বপূর্ণ ৩৫টি এলাকায় ‘ফ্রি ওয়াই-ফাই জোন’ তৈরি করা হয়েছে। 

এর ফলে যে কেউ নিজেদের স্মার্ট ডিভাইসের মাধ্যমে বিনামূল্যে ১০০ এমবিপিএস গতির ইন্টারনেট সেবা পাবেন। 

প্রকল্পটি পুরোপুরিভাবে বাস্তবায়ন হলে স্থানীয় এবং পর্যটক মিলে একসঙ্গে প্রায় ৩৪ হাজার মানুষ বিনামূল্যে সরকারি ই-পরিষেবাসহ আনলিমিটেড ইন্টারনেট সুবিধা ভোগ করতে পারবেন। 

শহরের কলাতলীর ‘কক্সবাজার সাংস্কৃতিক কেন্দ্রে’ আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে প্রকল্পটির উদ্বোধন করেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। 

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আইসিটি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, ডিজিটাল মার্কেটিংয়ের মাধ্যমে কক্সবাজারের পর্যটন শিল্পকে সমগ্র বিশ্বের সামনে উপস্থাপনের লক্ষ্যেই বিনামূল্যে ইন্টারনেট সেবা প্রদানের এই ব্যবস্থা করা হয়েছে।  সমুদ্র সৈকতসহ পুরো শহরটাকেই পর্যায়ক্রমে ফ্রি ওয়াই-ফাই জোনের আওতায় আনা হবে।  বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল ও এ প্রজেক্টে কারিগরি সহযোগিতা সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান হুয়াওয়েকে আমি ধন্যবাদ জানাই। 

অনুষ্ঠানে আরও জানানো হয়, বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল বাস্তবায়নাধীন ‘ডিজিটাল সিলেট সিটি’ প্রকল্পের আওতায় সিলেট ও কক্সবাজারের বিভিন্ন এলাকায় এই ফ্রি ওয়াই-ফাই জোন তৈরি করা হচ্ছে।  প্রকল্পের ক্লাউড নিয়ন্ত্রিত ওয়াই-ফাই সমাধান দিচ্ছে হুয়াওয়ে। 

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলের নির্বাহী পরিচালক পার্থ প্রতিম দেব।  অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন কক্সবাজার-৩ আসনের সংসদ সদস্য সাইমুম সরওয়ার কমল, কক্সবাজার-২ আসনের সংসদ সদস্য আশেক উল্লাহ রফিক, কক্সবাজার-১ আসনের সংসদ সদস্য জাফর আলম, কক্সবাজার-৪ আসনের সংসদ সদস্য শাহীন আক্তার, সংরক্ষিত নারী আসন-৮ এর সংসদ সদস্য কানিজ ফাতেমা আহমেদ, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) মো. আমিন আল পারভেজ এবং পুলিশ সুপার এ বি এম মাসুদ হোসেন, কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (কউক) এর চেয়ারম্যান লে. কর্নেল (অব.) ফোরকান আহমেদ, কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট সিরাজুল মোস্তফাসহ অন্যরা। 

এসময় ডিজিটাল সিলেট সিটি প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক মোহাম্মদ মহিদুর রহমান খান এবং অন্যান্য ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও অতিথিরা সেখানে উপস্থিত ছিলেন। 


keya