৫:০৯ এএম, ১৯ জুন ২০১৮, মঙ্গলবার | | ৫ শাওয়াল ১৪৩৯

South Asian College

‘কথিত বন্দুকযুদ্ধের নামে আমার স্বামীকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে’

০৮ জুন ২০১৮, ০৪:১৭ পিএম | সাদি


জাহিদ হোসাইন, সাতক্ষীরা প্রতিনিধি : ‘দিনের বেলায় পুলিশ প্রকাশ্যে চোখ বেঁধে আমার স্বামী আনিছুর রহমানকে ধরে নিয়ে যায়।  এরপর কথিত বন্দুকযুদ্ধের নামে তাকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। ’

শুক্রবার দুপুরে স্বামী হত্যার বিচার চেয়ে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন সাতক্ষীরার কলারোয়ার পাকুড়িয়া গ্রামের বন্দুক যুদ্ধে নিহত আনিছুর রহমানের স্ত্রী নাজমা খাতুন। 

সংবাদ সম্মেলনে নাজমা খাতুন বলেন, ‘কলারোয়ার পাকুড়িয়া গ্রামে দেড় কাঠা জমির ওপর ছোট্র একটি কুড়েঘরে দুই ছেলে-মেয়ে নিয়ে আমরা বসবাস করি।  জমি-জমা না থাকায় আমার স্বামী আনিছুর রহমান নদীতে মাছ ধরে ও অন্যের জমিতে কাজ করে সংসার চালাতেন। 

২৮ মে সোমবার সকাল সাড়ে ৯ টার দিকে খোরদো পুলিশ ফাঁড়ির এএসআই এজাজ মাহমুদ ও এএসআই তরিকুলসহ সাদা পোশাকে চার পুলিশ সদস্য আমার স্বামীকে সাদা গেঞ্জি দিয়ে চোখ বেঁধে হাতকড়া পরিয়ে ধরে নিয়ে যায়।  পরে খোরদো পুলিশ ক্যাম্প ও কলারোয়া থানায় খুঁজতে গেলে তাকে আটক করা হয়নি বলে পুলিশ জানায়। 

তিনি আরো বলেন, ‘এ ঘটনায় থানায় জিডি করতে গেলে কলারোয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বিপ্লব কুমার নাথ জিডি না নিয়ে ২/৩ দিন অপেক্ষা করতে বলেন।  পরদিন মঙ্গলবার সকালে আমি আমার স্বামীর মৃত্যুর সংবাদ পায়।  পরিবারের একমাত্র উপার্জনশীল ব্যক্তিকে পুলিশ মাদক ব্যবসায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে কথিত বন্দুকযুদ্ধের নাটক সাজিয়ে চিতলার মাঠে আমার স্বামীকে হত্যা করেছে। 

সংবাদ সম্মেলনে স্বামীর হত্যার ঘটনায় সুষ্ঠু তদন্ত করে দোষীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য  প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করেন নাজমা খাতুন।  এ সময় তার সাথে উপস্থিত ছিলেন, ভাসুর অজিয়ার রহমান গাজী, ছেলে রিয়াজ হোসেন ও মেয়ে রিমা খাতুন।