৭:২৯ পিএম, ২৭ মে ২০১৯, সোমবার | | ২২ রমজান ১৪৪০




কালুখালী উপজেলাবাসীর সেবা করতে চাই

১৬ মে ২০১৯, ০৩:৪৯ পিএম | জাহিদ


এম.মনিরুজ্জামান, রাজবাড়ী : চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হয়েছেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় অর্থ ও পরিকল্পনা কমিটির সদস্য, বাংলাদেশ কৃষক লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও জেলার স্থানীয় জনপ্রিয় ‘দৈনিক জনতার আদালত’ পত্রিকার সম্পাদক রাজবাড়ী প্রেসক্লাবের সদস্য নুরে আলম সিদ্দিকী হক। 

৫ম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের ৫ম ধাপে ১৮ জুন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে রাজবাড়ীর কালুখালী উপজেলা পরিষদ নির্বাচন।  ইতোমধ্যে নির্বাচন কমিশন নির্বাচনী তফসিল ঘোষণা করেছে। 

২০১০ সালে ৭টি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত কালুখালী উপজেলা পরিষদ।  নির্বাচনকে কেন্দ্র করে চেয়ারম্যান, ভাইস-চেয়ারম্যান পুরুষ ও মহিলা সম্ভাব্য প্রার্থীরা ব্যক্তিগতভাবে প্রচার প্রচারণা শুরু করেছেন।  এছাড়া দলীয় প্রার্থী হতে অনেকেই তাদের অবস্থান জানান দিয়েছেন। 

কালুখালি উপজেলা আওয়ামী লীগ সূত্রে জানা গেছে, এ পর্যন্ত এ উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হয়ে নৌকার মাঝি হওয়ার জন্য কেন্দ্রীয় ও উপজেলা পর্যায়ের ৬জন নেতা কেন্দ্রীয় কমান্ডের কাছে জোর লবিং ও তদ্বির চালাচ্ছেন। 

এ নির্বাচনে সাধারণ মানুষের সেবা করার প্রত্যয়ে চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হয়েছেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় অর্থ ও পরিকল্পনা কমিটির সদস্য, বাংলাদেশ কৃষক লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও জেলার স্থানীয় জনপ্রিয় ‘দৈনিক জনতার আদালত’ পত্রিকার সম্পাদক নুরে আলম সিদ্দিকী হক। 

সম্প্রতি সাংবাদিকদের কাছে নুরে আলম সিদ্দিকী হক জানান,ছাত্রজীবন থেকেই তিনি আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত।  ১৯৯৫ সালে ২১ বছর বয়সে কালুখালী উপজেলার মৃগী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতির দায়িত্ব পালনের মধ্য দিয়ে তার তৃণমূলের রাজনীতি শুরু হয়।  ২০০৬ থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত টানা ১১ বছর রাজবাড়ী জেলা কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন তিনি। 

২০১৪ সালে কালুখালী উপজেলা পরিষদে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করে নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী হয়ে কালুখালীর সাধারন মানুষের প্রাণে ব্যাপক সাড়া ফেলেন।  নির্বাচনের পরও তিনি সক্রিয়ভাবে দীর্ঘ দিন সাধারণ মানুষের সুখে দুঃখে কাজ করে চলেছেন।  তিনি সাংবাদিকদের জানান, ২০১৪ সালের কালুখালি উপজেলা নির্বাচনে তাকে জোর করে হারানো হয়েছে।  সাংবাদিক নুরে আলম সিদ্দিকী হক বলেন, ‘সাধারণ নির্যাতিত ও নীপিড়িত মানুষের জন্য রাজনীতি করি। 

বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে বুকে ধারণ করে ছাত্রজীবন থেকে আওয়ামী লীগের রাজনীতি শুরু করি।  তাই সাধারণ মানুষের ভালোবাসা ও চাওয়া পাওয়ার দাবিতেই এবারের নির্বাচনে অংশ নিচ্ছি।  কালুখালীর মানুষের সেবা করতে চাই।  নির্বাচনে দলীয় মনোনয়নের বিষয়েও আশাবাদী।  তিনি আরও বলেন, ‘সাধ্যমতো চেষ্টা করছি এলাকার সব মানুষের সুখ-দুঃখের সাথী হওয়ার।  জননেত্রীর চিন্তার আলোকে সত্যিকার জনমতের জড়িপের ভিত্তিতে মনোনয়ন দিলে আমিই মনোনয়ন পাবো বলে বিশ্বাস করি এবং আমাকে মনোনয়ন দিলে ইনশাআল্লাহ আমি বিপুল ভোটে জয়লাভ করতে সক্ষম হবো। 

আল্লাহপাক যদি আমাকে ক্ষমতায় আসিন করেন তাহলে নির্বাচনী এলাকার দলীয় কোন্দল, স্বজন প্রীতি, প্রতিহিংসার রাজনীতিকে নির্বাসনে পাঠিয়ে তৃণমূল থেকে উপজেলার নেতৃত্ব পর্যন্ত যোগ্যতানুযায়ী মূল্যায়ন করা হবে’। 

নূরে আলম সিদ্দিকী আরও বলেন, ‘তৃণমূলের নেতাকর্মীদের মতামতের ভিত্তিতে দলকে গতিশীল এবং শেখ হাসিনার ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মানের প্রয়াসে সুন্দর ও সমৃদ্ধ উপজেলা গড়তে নেওয়া হবে সময়পোযোগী সিদ্ধান্ত।  বঙ্গকন্যা শেখ হাসিনা বর্হিবিশ্বের উন্নয়নের স্রোতধারায় বাংলাদেশ এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন দূর্বার গতিতে। 

আওয়ামী লীগের একজন কর্মী হিসাবে যেখানে যাচ্ছি, যেভাবেই পারছি, সেখানেই বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের বাংলা গড়ার প্রয়াসে শেখ হাসিনার ভিশন ও তাঁর সরকারের সাফল্যের বার্তাগুলি পৌঁছে দেওয়ার চেষ্টা করছি আপন মহিমায়।  সমাজ উন্নয়নে ব্যক্তিগত তহবিল থেকে আর্থিক সাহায্য দিয়ে অসহায় মানুষের সেবা করে যাচ্ছি।  অনেক প্রতিবন্ধী ও দুঃস্থদের আর্থিক সহযোগিতা করছি নিয়মিত। 

উল্লেখ্য, রাজবাড়ীর ৫ উপজেলার ৪ টিতে গত ২৪ মার্চ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হলেও শেষ ধাপে কালুখালী উপজেলা পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে আগামী ১৮ জুন।  আগামী ২১ মে মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিন।  বাছাই ২৩ মে এবং প্রার্থীতা প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ৩০ মে।