৮:২৯ এএম, ১১ জুলাই ২০২০, শনিবার | | ২০ জ্বিলকদ ১৪৪১




কালারমারছড়ায় বন কর্মীদের অভিযানে গর্জন গাছ উদ্ধার, বাধাঁ দিতে গিয়ে আহত-২

০২ জুন ২০২০, ১০:৫৫ এএম | নকিব


সরওয়ার কামাল, মহেশখালীঃ  মহেশখালী বন রেঞ্জের আওতাধীন কালারমারছড়া ইউনিয়নের পূর্ব মিজ্জির পাড়া পাহাড়ে বন কর্মীরা অভিযান চালিয়ে ১লা জুন সকাল ১১টায় ৪৪ পয়েন্ট ৮৭ ঘনফুট ৮ টি ছোট-বড় গর্জন গাছ উদ্ধার করেছে । 

যার আনুমানিক মূল্য দেড় লাখ টাকা মত হবে বলে প্রাথমিকভাবে ধারনা করেছেন বনকর্মীরা । 

জানা গেছে , কালারমারছড়া ইউনিয়নের মিজ্জির পাড়া পূর্ব পাহাড়তলী এলাকায় সরকারের সৃজিত বাগান থেকে বনদস্যুরা গত ৩১ই মে গাছ গুলি পাহাড় থেকে কর্তন করে পাচারের জন্য একটি স্থানে স্তুফ করছিল। 

বিষয়টি স্থানীয় লোকজন অবগত হলে এতে মিজ্জির পাড়া গ্রামের সামাজিক বনায়নের উপকারভোগি ছৈয়দ আহমদের পুত্র আতাউর রহমান মিশু (২৮) তার ভাই সোয়াবুর রহমান (৩০) বিষয়টি স্থানিয় পুলিশ ফাঁড়ী ও বনকর্মীদের অবগত করলে বনদস্যু জয়নাল ও মোস্তাক আহমদ তাঁদের উপর চড়া হয়ে হামলা চালিয়ে আহত করে।  তাক্ষনিক ওই দিন রাত ৮ টায় কালারমারছড়া পুলিশ ফাঁড়ীর ইনচার্জ এস আই কিশোর বড়ুয়া এএস আই সাইফুল সহ একদল পুলিশ অভিযান চালালে টের পেয়ে গাছ ফেলে বন দস্যুরা পালিয়ে যায় । 

সংবাদ পেয়ে মহেশখালী রেঞ্জ কর্মকর্তা সুলতানুল আলম চৌধুরীর নেতৃত্বে দিনেশপুর বিট অফিসার কালারমারছড়া অতিরিক্ত দায়িত্ব অভিজিত কুমার বড়ুয়া, কেরুনতলী বিট অফিসার আহসানুল কবির, কালারমারছড়া ও শাপলাপুর বিটের স্টাফদের সাথে নিয়ে একদল বিট মিজ্জির পাড়া পাহাড়ে অভিযান চালিয়ে বনদস্যুরা পেলে যাওয়া গর্জন গাছ উদ্ধার করে। 

সেখান থেকে গাছ জব্দ করে কালারমারছড়া বন বিট অফিসে নিয়ে যায়। 

মহেশখালী রেঞ্জের রেঞ্জ কর্মকর্তা মোহাম্মদ সোলতানুল আলম চৌধুরী বলেন, পাহাড়ী সৃজিত গাছ কর্তনকারী বনদস্যুদের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট আইনে মামলা করা হবে।  এবং তাদের কে গ্রেফতারের জন্য কাজ করে যাচ্ছি।