২:০৩ পিএম, ১২ ডিসেম্বর ২০১৭, মঙ্গলবার | | ২৩ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯

South Asian College

খুশকি রোধে ঘরোয়া টোটকা

২১ নভেম্বর ২০১৭, ০৮:২০ এএম | রাহুল


এসএনএন২৪.কম : শীত চলে এসেছে তবে একা আসেনি, সঙ্গে করে নিয়ে এসেছে খুশকি।  শীতকাল মানেই মাথায় খুশকির ভাণ্ডার। 

সাধারণ সব ঋতুতে যে খুশকি হয়না তা কিন্তু নয়।  তবে যাদের খুশকি নেই, তারাও শীতকালে খুশকির সমস্যায় ভোগেন।  দেখা যায়, কোথায় ঘুরতে গিয়ে চুল চুলকালে সবার সামনে অস্বস্তিকর অবস্থায় পড়তে হয় এই খুশকির জন্য।  খুশকির ফলে চুল পড়া বেড়ে যায় দ্বিগুণ পরিমাণে।  খুশকি ছেলে বলুন আর মেয়ে উভয়েরই সমস্যা।  আসুন চুলের এই বাজে সমস্যার সমাধান করি ঘরে বসেই।  জেনে নেই ঘরে বসে খুশকি দূর করার ঘরোয়া কিছু পদ্ধতি। 

লেবুর রস

দুই টেবিল-চামচ লেবুর রস অল্প পানির সাথে মিশিয়ে মাথার ত্বকে ভালোভাবে ম্যাসাজ করুন।  ২-৫ মিনিট ম্যাসাজ করার পর চুল ধুয়ে নিতে হবে।  খুশকির সমস্যা পুরোপুরি দূর না হওয়া পর্যন্ত এইভাবে চুলে লেবু ব্যবহার করা যাবে। 

নারিকেল তেল

নারিকেল তেল খুশকির প্রকোপ কমাতে সাহায্য করে।  তাছাড়া চুলে গোড়ায় ময়েশ্চারাইজ করে খুশকি এবং চুলকানি থেকে রেহাই পেতে সাহায্য করবে নারিকেল তেল।  মাথার ত্বকে নারিকেল তেলও লেবুর রসের মিশ্রণ ম্যাসাজ করে ২০ মিনিট পরে ভালো করে চুল ধুয়ে ফেলুন।  এটি সপ্তাহে দুইবার ব্যবহার করুন। 

জলপাই তেল

মাথার ত্বকে আর্দ্রতা ধরে রাখতে চুলের গোড়ায় খুব ভালোভাবে জলপাই তেল ম্যাসাজ করুন।  এতে চুলের গোড়ায় জমে থাকা খুশকি আলগা হয়ে আসবে।  একটু গরম করে মাথার ত্বকে লাগাবেন ও ঘন্টাখানেক পর ধুয়ে ফেলুন। 

তুলসী ও আমলকির মিশ্রণ

কয়েকটি তুলসী পাতা নিয়ে আমলকী পাউডারের সঙ্গে মিশিয়ে ভালো করে পেস্ট করে নিন।  তিন মিনিট এই পেস্ট মাথার ত্বকে লাগিয়ে ধুয়ে ফেলতে হবে।  এই মিশ্রণ চুলের ত্বকে পুষ্টি জোগায় এবং খুশকি কমাতে সাহায্য করে। 

আপেল সাইডার ভিনেগার

কুসুম গরম পানিতে অল্প আপেল সাইডার ভিনেগার মিশিয়ে নিন।  পুরো চুল এই মিশ্রণে ভিজিয়ে কিছুক্ষণ আলতো হাতে মাথার ত্বকে ঘষে নিতে হবে।  এরপর চুল ধুয়ে ফেলুন।  তবে গোসলের আট থেকে দশ ঘণ্টা আগে যেন চুলে আপেল সাইডার ভিনেগার ব্যবহার করা হয়। 

পেয়াজের রস

পেঁয়াজের রস খুব দ্রুত খুশকি দূর করতে পারে।  পেঁয়াজ মিহি করে বেটে নিয়ে রস ছেঁকে নিন।  পেঁয়াজের রস চুলের গোড়ায় ভালো করে ঘষে ঘষে লাগান।  ২০-২৫ মিনিট রেখে চুল ভালোভাবে শ্যাম্পু করে ধুয়ে ফেলুন।  সপ্তাহে অন্তত দুবার মাথায় পেঁয়াজের রস লাগান।  এতে মাথা চুলকানোও কমে যাবে। 

টকদই

টকদই খুশকি দূর করতে ও চুল ঝলমলে করতে খুবই কার্যকরী।  ৬ টেবিল চামচ টকদই খুব ভালো করে ফেটিয়ে নিন।  এরপর এতে ১ টেবিল চামচ মেহেদি বাটা ভালোভাবে মেশান।  মিশ্রণটি চুলের গোড়াসহ পুরো চুলে লাগিয়ে ৩০-৪০ মিনিট অপেক্ষা করুন।  এরপর চুল ভালো করে শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।  সপ্তাহে একদিন এই মিশ্রণটি ব্যবহার করুন।  এতে চুল যেমন খুশকিমুক্ত হবে তেমনি চুল হয়ে উঠবে ঝলমলে ও রেশমি। 

ডিম

একটি ডিমের সাদা অংশ ও ৪ টেবিল চামচ টকদই খুব ভালোভাবে ফেটিয়ে নিন।  এরপর এতে ১ টেবিল চামচ পাতিলেবুর রস মেশান।  মিশ্রণটি মাথার ত্বকসহ পুরো চুলে লাগান।  ২০ মিনিট পর চুল শ্যাম্পু করে ধুয়ে ফেলুন।  সপ্তাহে অন্তত ১ বার এটা ব্যবহার করুন। 

মেথি

মেথি চুলের খুবই উপকারী একটা জিনিস।  নারকেল তেল গরম করুন।  এরপর এতে মেথি গুঁড়া মেশান।  মিশ্রণটি পুরো চুলে লাগিয়ে ১ ঘণ্টার পর শ্যাম্পু করে ধুয়ে ফেলুন।  দ্রুত ফল পাওয়ার জন্য সপ্তাহে ৩ দিন এটি ব্যবহার করুন।  মেথি সারা রাত ভিজিয়ে রাখুন।  তারপর এটি থেঁতো করে চুলের গোড়ায় লাগান।  ৩০ মিনিট পর চুল ধুয়ে ফেলুন।  সপ্তাহে অন্তত দুবার মেথি লাগান।