২:৪৫ এএম, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৭, শুক্রবার | | ২৬ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯

South Asian College

গুলিবিদ্ধ ১৮ নং পূর্ব বাকলিয়া ওয়ার্ড ছাত্রলীগ সাধারন সম্পাদক

০৭ ডিসেম্বর ২০১৭, ০৯:৪৪ পিএম | নিশি


রানা দাশ জয় : গুলিবিদ্ধ ১৮ নং পূর্ব বাকলিয়া ওয়ার্ড ছাত্রলীগ সাধারন সম্পাদক  এনামুল হক মানিক এর শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে ঢাকার স্কয়ার হাসপাতালে প্রেরন করা হয়েছে। 

ছাত্রলীগ নেতা এনামুল হক মানিক এখনো জীবন মৃত্যুর লড়াই করছে বলে জানিয়েছেন চট্রগ্রাম মহানগর ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক নূরুল আজিম রনি। 

ফুসফুস থেকে পিস্তলের গুলি বের করা হলেও ফুসফুসের ভেতরে প্রচুর পানি ও রক্ত জমে আছে। ফুসফুসে ছিদ্র তৈরী হওয়ার কারনে তার স্বাভাবিক শ্বাস নিতে সমস্যা হচ্ছে। কৃত্রিম শ্বাস-যন্ত্রের মাধ্যমে মানিক নি:শ্বাস নিতে পারলেও ফুসফুসের ভেতর জমে থাকা রক্ত আর পানি বের করে আনতে সময় লাগছে। 

এমতাবস্থায় ডাক্তাররা রোগীর বর্তমান অবস্থা পর্যবেক্ষন করার পর ইতিবাচক,নেতিবাচক দুটো অবস্থা বিবেচনা করে  স্কয়ার হাসপাতালে প্রেরন করার  পরামর্শ দেন। 

আজ বিকেলে মানিকের ছোট ভাই জাহেদুল হক আরজু বাদি হয়ে মামলায় গুলিবর্ষণকারী সন্ত্রাসী রমজানসহ ‍চারজনকে আসামি করে মামলা দায়ের হয়েছে বলে  জানান বাকলিয়া থানার ওসি প্রণব চৌধুরী।   
তিনি বলেন, পূর্ব শত্রুতার জেরে মানিককে হত্যাচেষ্টার অভিযোগে মামলা দায়ের করেছেন তার ভাই।  আমরা আসামিদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার প্রক্রিয়া শুরু করেছি।  মামলার আসামিরা হলো  মো. রমজান মো. সোলায়মান, তাজুল ইসলাম এবং ঈছা খাঁন। 

প্রভাবশালী মহল ভাড়াটে সন্ত্রাসী দিয়ে ছাত্রলীগ নেতা এনামুল হক মানিককে হত্যার চেষ্টা করেছে বলে অভিযোগ করেছেন সংগঠনটির নেতারা।   মানিকের উপর গুলিবর্ষণকারী রমজানকে ‘প্রভাবশালী মহলের ভাড়াটে সন্ত্রাসী’ উল্লেখ করেছে সংগঠনটি।  

ঘটনার দিন ৬ডিসেম্বর  বিকেলে বাকলিয়ায় ছাত্রলীগের এক প্রতিবাদ সমাবেশে সংগঠনটির নগর শাখার সভাপতি ইমরান আহমেদ ইমু বলেন, চট্টগ্রামকে খুন ও খুনীর নগরীতে পরিণত করা হয়েছে।  সুদিপ্ত, দিয়াজ, সোহেলের হত্যাকারীরা দাপিয়ে বেড়ালেও পুলিশ তাদের আটক করেনি।  তিনদিন আগে একজন ব্যবসায়ীকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে।   সিএমপি এই খুনের আসামীদেরও গ্রেফতার করেনি।   

‘বারবার খুনের পক্ষে, খুনীর পক্ষে সিএমপির এই নীরব অবস্থান অপরাধীদের উৎসাহিত করেছে।   খুনীদের সর্বশেষ শিকার ছাত্রলীগ নেতা এনামুল হক মানিক।  ’

সাধারণ সম্পাদক নূরুল আজিম রনি বলেন, মানিককে রমজান নামের এক সন্ত্রাসী খুন করার জন্য গুলি করেছিল।   মানিক এখন মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে।   তার ফুসফুস ছিদ্র হয়ে গেছে।   এই ধরনের জঘন্য ঘটনার নিন্দা জানানোর ভাষা আমাদের নেই।  

‘আমরা প্রশ্ন করতে চাই কে এই রমজান ? রমজান মূলত ভাড়াটে হিসাবে একটি প্রভাবশালী মহলের হয়ে কাজ করেছে।   এর থেকে প্রমাণ হয় চট্টগ্রামে রাজনৈতিক দুর্বৃত্তায়ন চলছে।   চট্টগ্রামের পুলিশ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর এখন নির্দেশও মানে না।  ’

সমাবেশ থেকে ৮ ডিসেম্বর বিকেলে বাকলিয়ায় বিক্ষোভ সমাবেশ এবং ১০ ডিসেম্বর সকাল ১০ টায় বাকলিয়া থানার সামনে অনশন কর্মসূচী ঘোষণা করা হয়েছে। 

পূর্ব বাকলিয়া ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সভাপতি মো. ফারুকের সভাপতিত্বে সমাবেশে আরো বক্তব্য রাখেন নগর ছাত্রলীগের সভাপতি ইমরান আহমেদ ইমু, সহ-সভাপতি নোমান চৌধুরী, নাঈম রনি, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাকারিয়া দস্তগির, উপ প্রচার সম্পাদক আবদুল হালিম মিতু, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সদস্য আবদুল্লাহ আল জোবায়ের হিমু।