৩:১৫ এএম, ২১ নভেম্বর ২০১৭, মঙ্গলবার | | ২ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯

South Asian College

সংগঠনে শুদ্ধি অভিযান জরুরি

চট্টগ্রামে ছাত্রলীগ নেতা খুন

০৮ অক্টোবর ২০১৭, ০৭:৫৭ এএম | ফখরুল


এসএনএন২৪.কম ডেস্কঃ  এবার চট্টগ্রামে সংগঠনের অভ্যন্তরীণ কোন্দলের বলি হলেন এক ছাত্রলীগ নেতা।  বাসা থেকে ডেকে নিয়ে তাঁকে পিটিয়ে ও কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে।  ঘনিষ্ঠজনদের অভিযোগ, কলেজের রাজনীতি নিয়ে ফেসবুকে লেখালেখির কারণে সৃষ্ট বিরোধিতার জের ধরেই তাঁকে হত্যা করা হয়েছে।  এই অভিযোগ যদি সত্য হয়ে থাকে, তাহলে ধরে নিতে হবে সংগঠনটির অনেক নেতাকর্মী এখন আর কোনো সমালোচনাকে ভালো চোখে দেখছে না। 

অথচ যেকোনো গণতান্ত্রিক সংগঠনের অভ্যন্তরে বিরোধী মত থাকবে।  নিজেদের মধ্যে আলোচনা-সমালোচনার মধ্য দিয়ে একটি সংগঠন নিজেদের সঠিক কাজ নির্ধারণ করবে।  কিন্তু সংগঠনের মধ্যেই যদি বিপক্ষ মতের কারণে খুনাখুনির ঘটনা ঘটে, তা দেশের গণতান্ত্রিক পরিবেশের জন্য অশনিসংকেত হিসেবেই বিবেচিত হবে। 

অনেক দিন থেকেই ছাত্রলীগ আলোচনায় বেপরোয়া আচরণের কারণে।  ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের এই সহযোগী সংগঠনটি এখন নিজেদের মধ্যেই কোন্দলে জড়িয়ে পড়েছে।  কোনো ছাত্রসংগঠন এখন ছাত্রলীগের প্রতিপক্ষ নয়।  ছাত্রলীগই নিজেদের প্রতিপক্ষ। 
চাঁদাবাজি-টেন্ডারবাজির মতো হীন কাজে জড়িত অনেক নেতাকর্মী।  তাদের বাধা দেওয়া দূরে থাক, সমালোচনা করলেও কী পরিণতি হতে পারে, চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রলীগের নেতা সুদীপ্ত বিশ্বাস তার সাম্প্রতিক উদাহরণ। 

বিপথগামী ছাত্ররাজনীতির কতটা অধঃপতন হয়েছে, এ ঘটনাটিই তার জ্বলন্ত প্রমাণ।  নিজেদের কর্মকাণ্ডের সমালোচনা করতে গিয়ে জীবন দিতে হলো সুদীপ্তকে।  একটি পরিবারের যে ক্ষতি হয়ে গেল, তা কোনো দিন পূরণ হবে না। 

প্রতিদিনের গণমাধ্যমে প্রকাশিত খবরই বলে দিচ্ছে, কোথায় গেছে বর্তমানের ছাত্ররাজনীতি।  এ অবস্থা থেকে ছাত্ররাজনীতিকে একটি সম্মানজনক জায়গায় নিয়ে যাওয়ার দায়িত্ব পালন করতে পারত ছাত্রলীগ।  কিন্তু নিজেদের মধ্যে কোন্দলে জড়িয়ে তারা সে পথ থেকে সরে গেছে।  যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি হলে প্রতিপক্ষের হামলায় ছাত্রলীগ সভাপতিসহ অন্তত ৩০ জন আহত হয়েছেন।  টঙ্গীতে গির্জার পাদ্রি অপহরণ করতে গিয়েছিলেন এক ছাত্রলীগ নেতা। 

পরে তাঁকে সংগঠন থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে।  রাজধানীর চানখাঁরপুলে একটি মিষ্টির দোকানে বসে ধূমপানে নিষেধ করায় এক কর্মচারীকে মারধর করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের হলে নিয়ে এক লাখ টাকা চাঁদা দাবির অভিযোগ পাওয়া গেছে ছাত্রলীগের দুই নেতার বিরুদ্ধে।  চার শিশু শিক্ষার্থীকে যৌন হয়রানির অভিযোগের মামলায় গ্রেপ্তার পিরোজপুরের এক ছাত্রলীগ নেতাকে দল থেকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে। 

এমন অনেক ঘটনা আছে, যা একসময়ের গৌরবান্বিত ছাত্রসংগঠনটির সব অর্জন ধুলায় মিশিয়ে দিচ্ছে।  অথচ ছাত্রলীগ এ দেশের গণতান্ত্রিক সব আন্দোলনে সব সময় সামনের সারিতে থেকেছে।  সংগঠনটির গৌরবোজ্জ্বল অতীত এখনো পুরনো নেতাদের স্মৃতিকাতর করে।  সেই দলে আজ এভাবে হানাহানি, এটা মেনে নেওয়া যায় না। 

ছাত্রলীগকে তাই নতুন করে সাজাতে হবে।  সংগঠনের অভ্যন্তরে চালাতে হবে শুদ্ধি অভিযান।