১১:১২ এএম, ২০ জুন ২০১৮, বুধবার | | ৬ শাওয়াল ১৪৩৯

South Asian College

চুপ থাকা উচিত যেসব ক্ষেত্রে

২৮ এপ্রিল ২০১৮, ০৫:৩৯ পিএম | রাহুল


এসএনএন২৪.কম : বন্দুকের গুলির মতো কোনো কথা একবার বলে ফেললে তা আর ফেরানো যায় না।  বিদ্বানরা বুঝে শুনে তবেই কথা বলার পরামর্শ দেন। 

আবার সবসময় সব কথার জবাব আপনাকেই দিতে হবে তেমনটা নয়।  ভালো কথা গুছিয়ে বলা যেমন শেখা উচিত তেমনি শেখা উচিত কখন আপনার চুপ থাকা প্রয়োজন।  অনেক সময় আপনার এই প্রয়োজনীয় নীরবতাই আপনার দৃঢ় ব্যক্তিত্বের পরিচায়ক।  যেসব ক্ষেত্রে আপনার চুপ থাকা উচিত:

কোনও বিষয়ে না জানলে চুপ করে থাকাই ভালো।  অযথা তর্ক করতে আপনারই সম্মানহানি হয়। 

যে সত্যি অপ্রিয়, তা প্রিয় মানুষটাকে না বলাই ভাল।  আপনার একটু চুপ থাকাতে কারও মুখের হাসিটি তো বজায় থাকল!

যখন বুঝতে পারবেন অলোচনায় আপনার কথা অপ্রয়োজনীয় মনে করা হচ্ছে।  আপনার মতামত নেওয়াই হচ্ছে না।  তখন যেচে নিজের মত দিতে যাবেন না।  বরং চুপ থেকে পুরো পরিস্থিতি বোঝার চেষ্টা করবেন। 

কথা মানুষের ফুরিয়ে যেতেই পারে।  জোর করে কথা বলতে হবে এমন নয়।  তাই চুপ করে থাকাটাও মাঝে মাঝে আপনি উপভোগ করতে পারেন। 

প্রতিবাদ করা ভাল, তবে পরিস্থিতি বিচার করে।  যদি দেখেন কোনও স্থানে আপনাকে অপমানিত হতে হচ্ছে, অথচ আপনার প্রতিবাদ করার মতো পরিস্থিতি নেই।  চুপ করে যাবেন।  মনে রাখবেন, যুদ্ধে পিছিয়ে আসা মানেই হার নয়।  সেটা কৌশল সাজাবার সময়ও হতে পারে। 

মন একদম ভাল নেই।  সবকিছুতেই যেন বিরক্ত লাগছে।  এমন সময় যতটা পারবেন চুপ করে থাকুন।  কারণ ভাল কারও সঙ্গেও আপনি অকারণে খারাপ ব্যবহার করে ফেলতে পারেন।  আর তার জন্য আপনাকে পরে অনুশোচনার আগুনে পুড়তে হতে পারে।