২:৪২ পিএম, ১৫ নভেম্বর ২০১৮, বৃহস্পতিবার | | ৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪০




চবিতে ভর্তি পরীক্ষা শান্তিপূর্ণ ও নির্বিঘ্ন করতে প্রশাসন সর্বোচ্চ আন্তরিক

২৩ অক্টোবর ২০১৮, ০৮:১২ পিএম | মাসুম


এসএনএন২৪.কম : চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৮-২০১৯ শিক্ষাবর্ষে ১ম বর্ষ অনার্স ভর্তি পরীক্ষা আগামী ২৭ অক্টোবর হতে ৩১ অক্টোবর ২০১৮ তারিখ পর্যন্ত চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে অনুষ্ঠিত হবে। 

ভর্তি পরীক্ষা সুষ্ঠু, শান্তিপূর্ণ ও নির্বিঘ্ন পরিবেশে অনুষ্ঠিত হওয়ার লক্ষ্যে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন, র‌্যাব-৭, হাটহাজারী উপজেলা প্রশাসন, পিডিবি, সড়ক ও জনপথ বিভাগ, ট্রাফিক, গোয়েন্দা সংস্থা এবং রেল কর্তৃপক্ষ যৌথভাবে শান্তি-শৃংখলা রক্ষায় বিস্তারিত পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে। 

এ লক্ষ্য বাস্তবায়নে প্রয়োজনীয় কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণের লক্ষ্যে মঙ্গলবার বিকেল ৪ টায় চট্টগ্রাম শহরস্থ বিশ্ববিদ্যালয় চারুকলা ইনস্টিটিউটের সভা কক্ষে এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। 

সভায় সভাপতিত্ব করেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী। 

উপাচার্য তাঁর ভাষণে উপস্থিত সকলকে স্বাগত ও আন্তরিক শুভেচ্ছা জানান।  তিনি ভাষণের শুরুতে ভর্তি পরীক্ষার যাবতীয় কার্যক্রম উপস্থিত সকলকে অবহিত করেন। 

তিনি বলেন, ভর্তি পরীক্ষা একটি বিশাল কর্মযজ্ঞ।  এই কর্মযজ্ঞকে ঘিরে বিশ্ববিদ্যালয় পরিবারসহ দেশের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও সংস্থার সংশ্লিষ্টতা রয়েছে। 

ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারী আমাদের প্রাণপ্রিয় শিক্ষার্থীবৃন্দ যাতে একটি মনোরম ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে নির্বিঘ্ন ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারে এ ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন সর্বোচ্চ আন্তরিকতার সাথে কাজ করছে।  ভর্তি পরীক্ষায় কোনপ্রকার অনিয়ম-বিশৃংখলা সৃষ্টিকারীদের বিরুদ্ধে প্রশাসন জিরো টলারেন্স নীতি অবলম্বন করবে। 

এ ছাড়া গুজব-সন্ত্রাস কঠোর হাতে প্রতিরোধ-প্রতিহত করা হবে।  সুতরাং, দেশ-জাতির বৃহত্তর স্বার্থে একটি সুষ্ঠু, সুন্দর ও গ্রহণযোগ্য ভর্তি পরীক্ষা উপহার দেয়াই আমাদের মূল লক্ষ্য।  এ জন্য দরকার সকলের সম্মিলিত প্রয়াস। 

উপাচার্য ভর্তি পরীক্ষার সাথে সংশ্লিষ্ট উপস্থিত বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও সংস্থার উর্ধতন কর্মকর্তাবৃন্দকে সকল প্রকার অশুভ শক্তি ও গুজব সন্ত্রাসকে পদদলিত করে সর্বোচ্চ সততা, স্বচ্ছতা, নিষ্ঠা ও আন্তরিকতার সাথে এ ভর্তি পরীক্ষা সুষ্ঠু ও সুচারূরূপে সম্পাদনের নিমিত্তে সকলের আন্তরিক সহযোগিতা কামনা করেন। 

শুরুতে আসন্ন ভর্তি পরীক্ষার বিস্তারিত কর্মপরিকল্পনা তুলে ধরে স্বাগত বক্তব্য রাখেন চবি প্রক্টর জনাব মোহাম্মদ আলী আজগর চৌধুরী। 

সভায় চবি উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. শিরীণ আখতার, ইঞ্জিনিয়ারিং অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. শংকর লাল সাহা, সিএমপি’র ডিসি (নর্থ) জনাব বিজয় বসাক, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জনাব মো. মশিউদ্দৌলা রেজা, এএসপি হাটহাজারী সার্কেল জনাব আবদুল্লাহ-আল-মাসুম, সহকারী পুলিশ সুপার জনাব দেবদূত মজুমদার, এডিসি, ট্রাফিক (দক্ষিণ) জনাব নাজমুল হাসান, এসি, ট্রাফিক (উত্তর) জনাব মো. মিজানুর রহমান, হাটহাজারী উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) জনাব সম্রাট খীসা, পাঁচলাইশ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জনাব মহিউদ্দিন মাহমুদ, ট্রাফিক ইন্সপেক্টর জনাব মীর নজরুল ইসলাম, সহকারী পরিচালক এনএসআই জনাব বিএম শাহরিয়ার মজিদ, উপ-সহকারী পরিচালক, ডিজিএফআই জনাব মো. মামুন সরকার, এএসপি (ডিএসবি) জনাব মো. নুরুল আফছার ভূইয়া, এএসপি রেলওয়ে পুলিশ জনাব মো. শওকত আলী ভূইয়া, হাটহাজারী বিউবো-এর সহকারী প্রকৌশলী জনাব মো. হুমায়ুন কবীর এবং চবি প্রধান প্রকৌশলী জনাব মো. আবু সাঈদ হোসেন বক্তব্য রাখেন। 

মতবিনিময় সভায় চবি রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) জনাব কে এম নুর আহমদ, চবি ছাত্র-ছাত্রী পরামর্শ ও নির্দেশনা কেন্দ্রের পরিচালক প্রফেসর ড. আহমদ সালাউদ্দিন, সহকারী প্রক্টরবৃন্দ, বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও সংস্থার উর্ধতন কর্মকর্তাবৃন্দ এবং চবির সংশ্লিষ্ট অফিস প্রধানবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। 

সভায় উপস্থিত বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের উর্ধতন কর্মকর্তাবৃন্দ এ ভর্তি পরীক্ষা সুষ্ঠু, সুচারূ এবং নির্বিঘ্ন করতে তাঁদের স্ব স্ব অভিমত ব্যক্ত করেন এবং সর্বোচ্চ সততা, স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতার মাধ্যমে এ কার্যক্রম সুসম্পন্ন করার ব্যাপারে তাঁদের দৃঢ় অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন। 

ভর্তি পরীক্ষার যাবতীয় নির্দেশাবলীসহ বিস্তারিত তথ্য চবি http://admission.cu.ac.bd ওয়েবসাইট থেকে জানা যাবে। 

বিশেষভাবে উল্লেখ্য, ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থীদের প্রবেশপত্রে (admit card) আসন বিন্যাস উল্লেখ রয়েছে।