৮:০৪ এএম, ২২ নভেম্বর ২০১৭, বুধবার | | ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯

South Asian College

চবির 'বি' ইউনিটে প্রক্সির দায়ে অাটক এক শিক্ষার্থী

২৮ অক্টোবর ২০১৭, ০৯:৩৪ পিএম | ফখরুল


জয় দাশ, চবি প্রতিনিধি : চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (চবি) ‘বি’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় প্রক্সি দেয়ার দায়ে আটক হয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে চান্স প্রাপ্ত এক শিক্ষার্থী।  আজ শনিবার পরীক্ষা চলাকালীন জীবজিজ্ঞান অনুষদের ৩০৩ নম্বর কক্ষ থেকে তাকে আটক করা হয়।  পরে তাকে পুলিশের হাতে হস্তান্তর করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। 

আটক হওয়া শাহেদুল ইসলাম ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষে ঢাবির ‘ঘ’ ইউনিটে ১১৪২ তম স্থান অর্জন করেন।  তার বাড়ি চকরিয়া উপজেলার কাকাড়া ইউনিয়ন এলাকায়। 

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা যায়, সে ভর্তি পরীক্ষার ওএমআর সিটে কলমের কালি মুছে দেয়া যায় এমন একটি রিমুভ্যাল কলম (বিশেষ কলম) ব্যবহার করে।  পরিদর্শক তার উত্তরপত্রে স্বাক্ষর করার পর সে ওই কলম দিয়ে তার রোল (২১২২৫১) ও সিরিয়াল নম্বর (৬২৫২৩৬) পরিবর্তন করে ফেলে।  পরে উত্তরপত্র জমা দেয়ার সময় তা হল পরিদর্শকের নজরে আসে। 

এসময় সন্দেহজনকভাবে তাকে আটক করে প্রক্টরের কার্যালয়ে নিয়ে আসা হয়।  সেখানে সে প্রক্সি দেয়ার বিষয়টি স্বীকার করে নেয়। 

শাহীন মিয়া নামের এক ভর্তিচ্ছুর রোল (২৪২৬৬১) পরিবর্তন করে সে প্রক্সি দিচ্ছিল।  শাহীনের পরীক্ষা কেন্দ্র ছিল নগরীর ইস্পাহানি স্কুল এন্ড কলেজের কেন্দ্রে।  তবে পরীক্ষা শেষ হয়ে যাওয়ায় ওই পরীক্ষার্থীকে আটক করা সম্ভব হয় নি। 

জিজ্ঞাসাবাদে শাহেদ প্রক্টরকে জানায়, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ম্যানেজমেন্ট বিভাগের ১৭ তম ব্যাচের মিনারুল ইসলাম মিনারের সাথে চুক্তিবদ্ধ হয়ে সে প্রক্সি দিতে এসেছে।  মিনার ও তার বাড়ি একই এলাকায়।  তবে তাদের মাঝে কত টাকা বিনিময় হয় সে বিষয়টি স্বীকার করেনি সে।  অভিযোগ আনা মিনারের ফেইসবুক ওয়ালে ঘেটে দেখা যায়, গত ২২ শে অক্টোবর ঢাবিতে চান্স পাওয়ায় ছবিসহ শাহেদুল ইসলামকে অভিনন্দন জানিয়ে স্ট্যাটাস দেয় সে। 

এদিকে প্রক্টর কার্যালয়ে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে ওই ভর্তিচ্ছুকে হাটহাজারী পুলিশের কাছে সোপর্দ করা হয়েছে।  বিষয়টি নিশ্চিত করে চবি প্রক্টর আলী আজগর চৌধুরী জানান, প্রক্সিতে আটক হওয়া শাহেদুলকে পুলিশের হাতে সোপর্দ করা হয়েছে।  ইতোমধ্যেই ভর্তি জালিয়াতির একটি চক্রকে আটক করেছে আইন শৃঙ্খলা বাহিনী।  সে এ চক্রের সাথে জড়িত কি না তা খতিয়ে দেখতেও পুলিশকে বলা হয়েছে। 

এ বিষয়ে হাটহাজারী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জানান, প্রক্সির দায়ে আটক শাহেদুল ইসলামকে থানা হেফাজতে রাখা হয়েছে।  তার ব্যাপারে আরো খোঁজ খবর নেয়া হচ্ছে।  সে কোন চক্রের সাথে জড়িত তা খতিয়ে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। 

অন্যদিকে সন্দেহজনকভাবে ঘুরাঘুরি করায় বহিরাগত এক যুবককে আটক করে পুলিশে দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।  ওই যুবকের নাম জাবের আহমেদ।  তার বাড়ি নোয়াখালী জেলার কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার মুসাপুর গ্রামে।  বিষয়টি নিশ্চিত করেন চবি প্রক্টর আলী আজগর চৌধুরী। 

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ জানান, সন্দেহজনক ঘুরাঘুরি করা ওই যুবকের বিষয়ে খোজ খবর নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।