১২:৫৫ পিএম, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৭, বৃহস্পতিবার | | ২৯ জ্বিলহজ্জ ১৪৩৮

South Asian College

চামড়ার হাটে মৌসুমি ব্যবসায়ীদের হা-হুতাশ

০৭ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ১১:৫৫ এএম | রাহুল


এসএনএন২৪.কমঃ প্রচুর চামড়া সরবরাহ থাকলেও নেই ক্রেতা।  আগের মতো সাড়া মেলেনি ট্যানারি মালিকদেরও।  স্থানীয় দু'একজন পাইকার থাকলেও দাম নেই।  এমন পরিস্থিতিতে গাইবান্ধার পলাশবাড়ি চামড়ার হাটে বুধবার হা-হুতাশ করেছেন মৌসুমি চামড়ার ব্যবসায়ীরা।  অন্যদিকে, বছরের পর বছর ট্যানারি মালিকদের কাছে টাকা পড়ে থাকায় স্বস্তিতে নেই পাইকাররাও। 

চামড়ার কাঙ্ক্ষিত দাম না পেয়ে গাইবান্ধার পলাশবাড়ী চামড়ার হাটে এভাবেই ক্ষোভ প্রকাশ করেন মৌসুমি এই চামড়া ব্যবসায়ী।  তাদের অভিযোগ, একে তো চড়া দামে চামড়া কেনা। 

তার ওপর লবণ, শ্রমিক ও পরিবহন খরচ অনেক বেশি।  কিন্তু হাটে প্রচুর চামড়ার  সরবরাহ থাকলেও পাইকারদের তেমন আগ্রহ না থাকায় অনেকে আসল টাকা তোলা নিয়েই শঙ্কা প্রকাশ করেন। 

অন্যদিকে পাইকাররা বলছেন, বছরের পর বছর ধরে ট্যানারি মালিকদের কাছে কোটি কোটি টাকা বকেয়া পড়ে থাকায় ক্ষতির মুখে তারা। 

আর ধারদেনা করে মৌসুমি ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে বেশি দামে চামড়া কিনে ৩ বছর ধরে লোকসান গুনছেন তারা। 

চামড়ার বাজার সম্পর্কে মৌসুমি ব্যবসায়ী এবং পাইকারদের তেমন কোন ধারণা না থাকায় এমন পরিস্থিতি বলে মনে করেন ট্যানারি মালিকরা। 

আর চামড়া ব্যবসায়ী সমিতির নেতারা বলছেন, চামড়া সংরক্ষণে মৌসুমি ব্যবসায়ী এবং পাইকারদের আরো বেশি প্রশিক্ষণ দেয়া জরুরি। 

গাইবান্ধার পলাশবাড়ীতে প্রতি বুধবার রংপুর অঞ্চলের সবচে বড় চামড়ার হাট বতে।  এদিন প্রায় ১২ হাজার চামড়া বাজারে উঠলেও বিক্রি হয় মাত্র ৪ হাজার।