১:৪৯ পিএম, ২৫ মে ২০১৯, শনিবার | | ২০ রমজান ১৪৪০




চিলি টাইব্রেকারে রোনালদোদের হারিয়ে ফাইনালে

২৯ জুন ২০১৭, ০৮:২২ এএম | মাসুম


এসএনএন২৪.কম: ফিফা কনফেডারেশন্স কাপের সেমিফাইনালে পর্তুগাল ও চিলি দু’দলের খেলাই ছিল গোলশূন্য ড্র।  নির্ধারিত সময়, অতিরিক্ত ৩০ মিনিট নিষ্প্রাণ ফুটবলই খেলে গেছে চিলি এবং পর্তুগাল, দু’দলই।  কেউ কারও জালে বল প্রবেশ করাতে পারেনি। 

শেষ পর্যন্ত খেলা গড়াল ভাগ্য নির্ণায়ক টাইব্রেকারেই।  এখানে এসেই নায়ক হয়ে গেলেন চিলির গোলরক্ষক ক্লদিও ব্রাভো।  রোনালদোদের টানা তিনটি টাইব্রেকারের শট ফিরিয়ে দেন তিনি এবং পর্তুগালকে একাই হারিয়ে দেন।  টাইব্রেকারে পর্তুগিজদের ৩-০ ব্যবধানে হারিয়ে কনফেডারেশন্স কাপের ফাইনালে উঠে গেলো কোপা আমেরিকা চ্যাম্পিয়ন চিলি। 

রোনালদো সব সময়ই টাইব্রেকারের শেষ শটটা নিতে ভালোবাসেন।  পঞ্চম শটটা নেয়ার প্রস্তুতিও নিচ্ছিলেন তিনি; কিন্তু কী দুর্ভাগ্য, শটই নেয়ার সুযোগ পেলেন না রোনালদো।  রিকার্ডো কাওয়ারেসমা, হোয়াও মৌতিনহো এবং ন্যানির শট ফিরিয়ে দেন ব্র্যাভো।  অন্য দিকে আরতুরো ভিদাল, চার্লস আরাঙ্গুইজ এবং আলেক্সিস সানচেজের শট জড়িয়ে যান পর্তুগালের জালে। 

খেলা শুরু হওয়ার প্রথম সাত মিনিটের মধ্যেই দু’দল একবার করে গোলের দারুণ সুযোগ পেয়েছিল।  প্রথম সুযোগটা পায় চিলি।  আলেক্সিজ সানচেজ বল দিয়েছিলেন এডওয়ার্ডো ভারগাসের কাছে; কিন্তু দারুণ সুযোগ পেয়েও তার শট নেয়াটা ঠিক ছিল না এবং পর্তুগাল গোলরক্ষক রুই প্যাট্টিসিয়া সেই চেষ্টা রুখে দেন। 

এর একটু পরই ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর কাছ থেকে দারুণ একটি পাস পান আন্দ্রে সিলভা।  কিন্তু পুরো ফাঁকা নেট পেয়েও শটটি এমনভাবে নেন সিলভা, যেটা সোজা চলে যায় ব্র্যাভোর কাছে। 

প্রথমার্ধে মাঠের খেলার সঙ্গে শারিরীক খেলায়ও মেতে ওঠে দু’দলের ফুটবলাররা।  যে কারণে রেফারিকে কয়েকবার হলুদ কার্ড বের করতে হয়েছিল।  তার ওপর চিলির চার্লস আরাঙ্গুইজ দুটি দারুণ সুযোগ মিস করে ফেলেন।  প্রথমার্ধ শেষ হলো এভবেই। 

৫৪ মিনিটে জিন বিউসেজোরের ক্রস থেকে বল পেয়ে হেড নেন ভিদাল।  ভার্গাস একেবারে পোস্টের সামনে পৌঁছে যান।  ফ্লিক করে বলটি পর্তুগালের জালে জড়িয়ে দেয়ার চেষ্টা করেন তিনি।  কিন্তু ঝাঁপিয়ে পড়ে সেটি রক্ষা করেন রুই প্যাট্টিসিও।  রোনালদোও একই সময় বাম পাশ থেকে চেষ্টা করেছিলেন গোলের; কিন্তু ক্লদিও ব্র্যাভো বাঁচিয়ে দেন চিলিকে। 

৬০ মিনিটের সময় আরতুরো ভিদাল দুর্দান্ত এক শট নেন ৩০ গজ দুর থেকে এবং বলটি বাইরে চলে যায় একেবারে পোস্টের ওপরের অংশ ঘেঁষে।  খেলার ৮৫ মিনিটের দিকে গোলের দারুণ এক সুযোগ পেয়েছিলেন রোনালদো; কিন্তু এই চেষ্টাও তার কাজে লাগেনি। 

অতিরিক্ত ৩০ মিনিট শুরু হয়েছে চিলির আক্রমণ দিয়ে।  মৌরিসিও ইসলার ক্রস থেকে বল পেয়ে হেড করেন সানচেজ।  বলটি চলে যায় পোস্টের ওপর দিয়ে।  তবে খেলায় সবচেয়ে বড় বিতর্কটা হয়েছে ১১৩ মিনিটে।  পর্তুগাল একটি নিশ্চিত পেনাল্টি থেকে বঞ্চিত হয়। 

চিলির পরিবর্তিত খেলোয়াড় ফ্রান্সেসকো সিলভা মাঠে নেমেই নিজেদের বক্সের ভেতর ফাউল করে বসেন; কিন্তু রেফারি আলিরেজা ফাগানি সেটিকে নির্দেশ দিলেন ফ্রি কিকের।  অথচ, টিভি রিপ্লেতে দেখা গেলো, সেটি হওয়ার কথা পেনাল্টি কিকের।  এ নিয়ে বিতর্ক হলে রেফারি তার সিদ্ধান্তেই অটল থাকেন।  শেষ পর্যন্ত গোল হলো না কোনো দলেরই এবং খেলা গড়ায় টাইব্রেকারে।