৫:৫৫ এএম, ২৩ অক্টোবর ২০১৯, বুধবার | | ২৩ সফর ১৪৪১




জমি নিয়ে সংঘর্ষে আহত ৩, বাড়িতে আগুন দেওয়ায় থানায় অভিযোগ দায়ের

১৬ জুন ২০১৯, ১১:৫১ এএম | নকিব


আজিজুল ইসলাম বারী, লালমনিরহাট প্রতিনিধি: লালমনিরহাটে বসত ভিটার জমি নিয়ে সংঘর্ষে ৩ জন আহত।  বাড়িতে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দেওয়ার ঘটনায় থানায় স্বামীসহ ৭ সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন বৃদ্ধা মনোয়ারা বেগম। 

শনিবার লালমনিরহাট সদর উপজেলার কালমাটি ইউনিয়নের বাগডোরা গ্রামের গ্রামের রমিজ উদ্দিন ওরকা'র দ্বিতীয় স্ত্রীর মনোয়ারা (৫০) এর বাড়ীতে এই ঘটনাটি ঘটে। 

অভিযোগে জানা গেছে, প্রথম স্ত্রীর মৃত্যুর পর দ্বিতীয় স্ত্রী হিসেবে মনোয়ারাকে বিয়ে করেন রমিজ উদ্দিন হুরকা।  আগে দুই ছেলে থাকলেও মনোয়ারার ঘরে এক মেয়ে ও ৫ ছেলের জন্ম দেন রমিজ উদ্দিন।  এরই মাঝে আদিতমারী উপজেলার মহিষখোঁচা ইউনিয়নের চর গোবর্ধন এলাকায় তিস্তার কড়াল গ্রাসে পূর্বের বসতভিটাসহ ফসলি জমি নদীতে বিলিন হলে বাগডোরা গ্রামের বন্যা নিয়ন্ত্রন বাঁধে আশ্রয় নেন এবং তার স্বামী আগের সন্তান নিয়ে পৃথক হয়ে যান। 

পরে দ্বিতীয় স্ত্রী মনোয়ারাসহ তার ৫ ছেলের ৩জন পোশাক শ্রমিকের কষ্টের আয়ে বাড়ির করার জন্য স্থানীয় চৈতন্য বর্ম্মনের ৮ শতাংশ জমি বায়নামা করে বাড়ি করেন।  এখন সেই জমিতে রমিজ উদ্দিন ভাগ বসাতে গত ঈদে রেজিস্ট্রি করার কথা উঠলে মনোয়ারার সৎ ছেলেরা রমিজ উদ্দিনের নামে অথবা তাদের অংশিদারিত্বের দাবি জানান।  এ নিয়ে উভয়ের মাঝে গত ঈদের দিন নামাজ শেষে বাড়ী ফেরার পথে পথিমধ্যে সংঘর্ষে মনোয়ারার তিন ছেলে আনোয়ারুল হক (২৬), আলগীর হোসেন (২০) ও আমিনুর ইসলাম (১৮) গুরুতর আহত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন।  বিষয়টি স্থানীয় ভাবে বৈঠকে বসলে রমিজ উদ্দিনের প্রথম স্ত্রীর সন্তান এরশাদুল ও আশাদুল হক সিদ্ধান্ত মেনে নেন নি।  ফলে জমিটি রেজিস্ট্রি করতে পারেনি বৃদ্ধা মনোয়ারা বেগম। 

এরই জের ধরে গত শুক্রবার মনোয়ারা সপরিবারে আত্মীয়ের বাড়িতে বেড়াতে গেলে রমিজ উদ্দিন হুরকা তার ভাই,ছেলে ও বহিরাগত ভাড়াটে সন্ত্রাসীদের দিয়ে ঘরে আগুন ধরিয়ে দেয়।  স্থানীয়রা আগুন নিয়ন্ত্রন করেন।  এরই মধ্যে বৃদ্ধার তিনটি ঘর, স্বর্ণ, নগদ অর্থ ও ধান চাল পুড়ে গিয়ে প্রায় ১৫ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে।  এ ঘটনায় বৃদ্ধা মনোয়ারা বাদি হয়ে স্বামীসহ ৭ জনকে আসামী করে লালমনিরহাট সদর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। 

বাদি মনোয়ারা বলেন, তার ছেলেদের কষ্টের টাকায় কেনা জমি সৎ ছেলেদের নামে না দেয়ায় বিভিন্ন সময় মারপিট খেয়েছি সৎ ছেলেদের।  তাদের সন্ত্রাসী বাহিনী বিভিন্ন সময় আমাকে মেরে ফেলার হুমকীও দিচ্ছে।  বাড়িতে কেউ না থাকায় সৎ ছেলেরা দিনের বেলায় বাড়িটি পুড়িয়ে দিয়েছে।  জমিটা আমার ছেলের টাকায় কেনা তাই ছেলেদের নামে রেজিস্ট্রি করতে চাইলে দাতাকে সৎ ছেলেরা হুমকী দেয়।  তিনি সৎ ছেলেদের বিচার দাবি করেন। 

লালমনিরহাট সদর থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহফুজ আলম অভিযোগ পাওয়ার ঘটনা সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, ঘটনাস্থলে অফিসার পাঠানো হয়েছে তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।