৪:৫২ পিএম, ২৪ নভেম্বর ২০১৭, শুক্রবার | | ৫ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯

South Asian College

নান্দাইলে সৌদি প্রবাসীর জমি

জোরপূর্বক দখলের চেষ্টা প্রাণনাশের হুমকি

১০ নভেম্বর ২০১৭, ০৬:৪১ পিএম | মুন্না


মো. শাহজাহান ফকির, নান্দাইল (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি : ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলার শেরপুর ইউনিয়নের রাজাবাড়ীয়া গ্রামের মৃত হাসান আলীর পুত্র সৌদি প্রবাসী তফাজ্জল হোসন ভূইঁয়া গং এর ক্রয়কৃত ৪০শতক জমি নান্দাইল উপজেলা সদরের চারআনি পাড়া গ্রামের মৃত আব্দুর রহিমের পুত্র মোঃ আবু সিদ্দিক, তাঁর পুত্র মোঃ হাফিজুল ওরফে শাহান কর্তৃক জোরপূর্বক দখলের চেষ্টা ও প্রবাসী তফাজ্জল হোসন ভূইয়া সহ তার পরিবারের লোকজনকে প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে যাচ্ছে বলে এক লিখিত অভিযোগ পাওয়া গেছে। 

অভিযোগে প্রকাশ, তফাজ্জল হোসেন ভূইয়া, তাঁর ভাই মিজানুর রহমান ভূঞা ও তফাজ্জলের স্ত্রী রুনা লায়লা বি,আর,এস রেকর্ড অনুযায়ী মৃত আব্দুল হেকিম ভূঞার পুত্র আবুল কালাম আজাদ ভূঞা ও ওমর ফারুক ভূঞার নিকট থেকে বিগত ৩১ জুলাই ২০১২ইং সাফকাওলা দলিল নং ৪০০১ মূলে ও ৮ জুলাই ২০১৫ইং সাফকাওলা দলিল নং ৪১১৫ মূলে ক্রয় সূত্রে ৪০ শতক ভূমির দখল প্রাপ্ত হন এবং নিজ নিজ নামে রাজস্ব খাজনাদি পরিশোধ করে আসছে। 

উক্ত ভূমিটি অনাবাদী থাকায় বাসাবাড়ী নির্মাণ করার জন্য ভূমির কতকাংশে মাটি ভরাট করান এবং গত ২৮ অক্টোবর ২০১৭ পুনরায় মাটি ভরাট সহ বাড়ী নির্মাণের কাজ করতে গেলে বিবাদীগণ বাধা সহ প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি প্রদান করে। 

এ বিষয়ে তফাজ্জল হোসেনের ভাই নরুল ইসলাম ভূঞা বাদী হয়ে বিজ্ঞ অতিরিক্ত দায়রা জজ আদালত ময়মনসিংহে ক্রিমিনাল রিভিশন নং ২৭৯/২০১৬ মামলা দায়ের করলে ২রা মে ২০১৭ বিজ্ঞ অতিরিক্ত দায়রা জজ, ৪র্থ আদালত থেকে বাদী পক্ষে রায় ঘোষণা করেন। 

রায় পাওয়ার পরেও তফাজ্জল হোসন গং তাদের নিজস্ব ভূমিতে গেলে বিবাদীরা পুনরায় বাধা প্রদান করায় বিবাদীদের বিরুদ্ধে বিজ্ঞ অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে নান্দাইল বিবিধ মোকদ্দমা নং ৯৯/১৬ ধারা ফৌঃ কাঃ বিঃ ১৪৪ দায়ের করেন।  উক্ত আদালত বিবাদীগণকে তফাজ্জল হোসেন গং এর জমিতে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি করার পরেও উক্ত জমি জোরপূর্বক দখলের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে ও প্রাণনাশের হুমকি দিচ্ছে। 

এ ব্যাপারে তফাজ্জল হোসেনগংরা মানবাধিকার বাস্তবায়ন সংস্থা সহ প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সার্বিক সহযোগীতা কামনা করেছেন এবং নিজস্ব ক্রয়কৃত ভূমিতে নিষ্কন্ঠক স্থাপনা নির্মাণের সহযোগীতা দাবী করেন।