১১:৪৬ পিএম, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, শুক্রবার | | ১০ মুহররম ১৪৪০


ঝালকাঠিতে বৃষ্টির মধ্যেই চলে বিভিন্ন সড়কে সংস্কার

০৭ জুলাই ২০১৮, ০৭:০৫ পিএম | মাসুম


মোঃ রাজু খান, ঝালকাঠি প্রতিনিধি : ঝালকাঠি, নলছিটির আখড়পাড়া বাজার থেকে হদুয়া সড়কের সংস্কার কাজ চলছে বৃষ্টির মধ্যেই।  শুধু এ সড়কটিই না, জেলার বিভিন্ন সড়কে চলছে এরকম দায়সারা কাজ। 

সরেজমিন দেখা গেছে, শুক্রবার দুপুর ১২ টার দিকে গুড়ি গুড়ি বৃষ্টি পড়ছে।  নলছিটি থেকে আখড়পাড়া হয়ে হদুয়া বাজার সড়কের সংস্কার কাজ চলছে।  রাস্তায় থাকা গর্তে ইটের খোয়া ফেলে ভরাট করে পাতলা করে গলিত পিচ ঢেলে পিচ ও পাথর মিশ্রিত হাল্কা আবরনের প্রলেপ দিচ্ছে।  তার উপর বালু ফেলে চাপা দিচ্ছে শ্রমিকরা। 

এভাবে বৃষ্টির মধ্যেই ঝালকাঠি থেকে পিরোজপুর ও খুলনা যাওয়ার সড়কটিতে গর্ত ভরাটের কাজ চলছে।  টেকসই হোক বা না হোক।  প্রথমে গর্তে খোয়া (ইটের টুকরো) দিয়ে গর্ত ভরাট করা হচ্ছে।  তারপর সেখানে পিচের সঙ্গে পাথর মিশিয়ে তা ঢেলে দিয়ে বালুচাপা দেয়া হচ্ছে।  বৃষ্টির পানিতে বালু যাচ্ছে সরে।  যানবাহনের চাকায় ভেজা পিচমাখানো পাথর যাচ্ছে উঠে। 

তারপরও এভাবেই দ্রæত সময়ের মধ্যে রাজাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে বেকুটিয়া ফেরিঘাট পর্যন্ত জেলা সড়কটির সংস্কারকাজ শেষ করতে বৃষ্টিকে উপেক্ষা করা হচ্ছে।  ফলে কাজের স্থায়িত্ব নিয়ে থেকে যাচ্ছে প্রশ্ন।  সংস্কারের কাজে নিয়োজিত ঝালকাঠি সড়ক ও জনপথ বিভাগের কর্মচারীরা জানান, বরিশাল ও ঝালকাঠি সদর থেকে পিরোজপুর ও খুলনা বিভাগের বিভিন্ন স্থানে যাওয়ার জন্য গুরুত্বপূর্ণ সড়ক এটি। 

এ সড়ক দিয়ে প্রতিদিন শত শত যানবাহন চলাচল করে।   রাজাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে বেকুটিয়া ফেরিঘাট পর্যন্ত ৮ কিলোমিটারের মতো রাস্তায় বেশকিছু জায়গায় ছোট-বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে।  জোড়াতালির সড়ক-সংস্কার। 

মহাসড়ক না হলেও গুরুত্বপূর্ণ এই সড়কের যেটুকু সড়ক ঝালকাঠি জেলার মধ্যে রয়েছে তা সংস্কারের কাজ আজ থেকে ৫ দিন আগে শুরু করা হয়েছে।  যা কয়েকদিনের মধ্যেই শেষ করা যাবে।  তবে বৃষ্টির কারণে কাজে কিছুটা বিঘœ ঘটছে।  আর বৃষ্টির মধ্যে কাজ চালিয়ে যাওয়ার কারণে কয়েক দিনের মধ্যেই গর্তগুলো আবার আগের অবস্থানে ফিরে যাবে বলে হতাশা ব্যক্ত করেছেন এই সড়ক দিয়ে যাতায়াতকারী একটি পরিবহনের চালক নিজাম।  বৃষ্টিতেই জোড়াতালির সড়ক-সংস্কার। 

সরেজমিনে দেখা গেছে, ঝালকাঠি সড়ক ও জনপথ বিভাগের আওতাধীন রাজাপুর থেকে বেকুটিয়া ফেরিঘাট পর্যন্ত রাস্তায় ছোট-বড় কিছু গর্ত থাকলেও জেলার ঝালকাঠি (বরিশালের কালিজিরা ব্রিজ সংলগ্ন ঝালকাঠির অংশ থেকে) -ভান্ডারিয়া পর্যন্ত ৩৯ কিলোমিটার আঞ্চলিক মহাসড়ক বেশ পরিপাটিই রয়েছে।  তবে রাজাপুর বাজার থেকে ঝালকাঠির দিক আসতে কিছু জায়গায় ছোট-ছোট গর্ত রয়েছে, যা থেকে যে কোন সময় ঘটতে পারে দুর্ঘটনা। 


keya