১০:০০ পিএম, ২৪ জুন ২০১৯, সোমবার | | ২০ শাওয়াল ১৪৪০




ঝালকাঠি সদর হাসপাতালে ডায়েরিয়া ওয়ার্ডে ১০ দিন পানি নেই

১১ মে ২০১৯, ০১:৫০ পিএম | জাহিদ


মো.রাজু খান, ঝালকাঠি : ঝালকাঠি সদর হাসপাতালের ডায়েরিয়া ওয়ার্ডে ১০ দিন পর্যন্ত পানি না থাাকায় রোগীরা চরম দূর্ভোগে পরেছে।  বাধ্য হয়ে প্রায় ৩শ গজ দূরে নলকূপ থেকে পানি সংগ্রহ করে শৌচাগারের কাজ চালাতে হচ্ছে।  এ সমস্যার কারনে অনেক রোগী চিকিৎসা না নিয়েই বাড়ি ফিরে যাচ্ছেন। 

হাসপতাল কর্তৃপক্ষ বলছে, হাসপাতালে নিরবিচ্ছিন্ন পানি সরবরাহ ও পানির পাম্প রক্ষনাবেক্ষনের দায়িত্ব গনপূর্ত বিভাগের।  তারা কয়েকবার চেষ্টা করেও ডায়েরিয়া ওয়ার্ডের পানি সরবরাহ করতে পারছেনা।  হাসপাতালের মূল ভবনের পাম্প দিয়ে আলাদা পাইপের মাধ্যমে এ ওয়ার্ডে পানি সরবরাহ করা হয়।  ওয়ার্ডের জন্য আলাদা পাম্প না থাকা ও পাইপ লাইনে ত্রুটি থাকায় এ সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে।  গনপূর্ত বিভাগ বলছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ঠিক মত পাম্প যন্ত্র পরিচালনা না করতে পারায় ও পাইপ লাইনে ত্রুটির কারনে ডায়েরিয়া ওয়ার্ডে পানি যাচ্ছেনা। 

ঝালকাঠি সদর হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, গত ৩০ এপ্রিল থেকে হাসপাতলের মূল ভবনের পাম্প যন্ত্রের মাধ্যমে পানি সরবারাহ স্বাভাবিক থাকলেও ডায়েরিয়া ওয়ার্ডের পানি সরবরাহ বন্ধ রয়েছে।  পানির লাইনে ত্রুটি দেখা দেয়ায় এ ওয়ার্ডে পানি যাচ্ছে না।  ফলে ওয়ার্ডের রোগীরা চরম ভোগান্তির মধ্যে পরেছে।  ডায়েরিয়া ওয়ার্ডে প্রায় ৩০০ জন চিকিৎসা নিয়েছেন।  এরমধ্যে গত ২ দিন ওয়ার্ডে রোগী ভর্তি ছিল প্রায় ৩০ জন।  কিন্তু ওয়ার্ডে পানি সরবারাহ স্বাভাবিক না হওয়ায় অনেক রোগীই বাড়ি চলে যায়। 

গতকাল শুক্রবার দুপুরে সরেজমিনে হাসপাতালের ডায়েরিয়া ওয়ার্ডে গিয়ে দেখা যায়, পানির অভাবে অনেক রোগী হাসপাতাল ছেড়ে চলে যাচ্ছেন।  পানি না থাকায় শৌচাগার মলমূত্রে নোংরা হয়ে আছে।  রোগীদের সাথে থাকা স্বজনরা নলকূপ থেকে প্লাষ্টিক বোতলে পানি সংগ্রহ করে আনছেন। 

ঝালকাঠি সদরের গাবখান ইউনিয়নের রাকিব হোসেন জানান গত সোমবার ডায়েরিয়া ওয়ার্ডে ভর্তি করিয়ে ছিলাম আমার এক আত্মিয়কে।  ওয়ার্ডে পানি না থাকায় তাকে বাড়ি নিয়ে যাচ্ছি।  সদর উপজেলার পেনাবালিয়া ইউনিয়নের মহদিপুর গ্রামের ১২ বছরের কিশোর সাব্বির ডায়েরিয়া নিয়ে তিন দিন পর্যন্ত ওয়ার্ডে ভর্তি আছে।  তাঁর মা জোসনা বেগম জানান, পানি না থাকায় শৌচাগারে যাওয়া যায়না।  নিরুপায় হয়ে তাঁর ছেলে বিছানা নষ্ট করছে।  দূর থেকে খাবার পানি এনে তা দিয়ে অন্যান্য কাজ সারতে হচ্ছে। 

ঝালকাঠি জেলা সিভিল সার্জন শ্যামল কৃষ্ণ হাওলাদার বলেন, পানি সরবরাহের কারিগরি বিষয় দেখার দায়িত্ব গনপূর্ত বিভাগের।  তাঁরা কয়েকবার চেষ্টা করেও পানি সরবারাহ করতে পারছেনা।  তারপরেও আমি আবারও তাঁদের তাগিদ দিচ্ছি।  গনপূর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী হারন অর রশিদ জানান, আমাদের কয়েকজন প্রকৌশলী একাধিকবার পানি সরবরাহের চেষ্টা করেছে।  হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ঠিকমত পাম্প পরিচালনা করতে না পারা ও পাইপ লাইনে ত্রুটির কারনে এ সমস্যা দেখা দিয়েছে।  আগামী এক মাসের মধ্যে ডায়েরিয়া ওয়ার্ডের জন্য একটি নতুন গভীর নলকূপ ও পাম্প স্থাপন করা হবে।