৯:২৮ এএম, ২৩ মে ২০১৯, বৃহস্পতিবার | | ১৮ রমজান ১৪৪০




তালতলী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষনা

১০ মে ২০১৯, ০৮:২৯ পিএম | জাহিদ


মো.মেহেদী হাসান, বরগুনা : বরগুনার তালতলী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষনা করেছে নির্বাচন কমিশন।  বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় নির্বাচন কমিশনের উপ-সচিব মাহফুজা আক্তার স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে এ তফসিল ঘোষনা করা হয়। 

নির্বাচন কমিশনের প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী মনোনয়ন পত্র দাখিলের শেষ দিন ২১ মে, মনোনয়ন পত্র বাছাই ২৩ মে, প্রার্থীতা প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ৩০ মে ও ভোট গ্রহন ১৮ জুন।  উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের খবরে উপজেলার সাধারণ মানুষের মাঝে আনন্দ বিরাজ করছে। 

তালতলী নির্বাচন অফিস সুত্রে জানাগেছে, ২০১৪ সালের ১৯ মে তালতলী উপজেলা পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়।  ওই নির্বাচনে চেয়ারম্যান হন যুবলীগ সভাপতি মোঃ মনিরুজ্জামান মিন্টু।  উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান হিসেবে শপথ নিয়েই শুরু করে নৈরাজ্য।  চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ার দুইদিন পরে তৎকালীন ইউএনও কাজী তোফায়েল আহম্মেদকে অমানষিক নির্যাতন করেন। 

এ ঘটনা শেষ হতে না হতেই জমির দখল নিয়ে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক সুন্দর আলী গাজীকে তার কক্ষে আটকে বেধরক মারধর শেষে সাদা স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর রাখা, তালতলী থানার ওসি কমলেশ চন্দ্র হালদার, এসআই আবদুল খালেক, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান নাসির মোল্লা, ইউনুস ফরাজী, ভূমি অফিসের কারনিক জসিম উদ্দিন মধু, সাংবাদিক ফারুক হোসেন,এনজিও ম্যানেজার আবুল কালাম, উপজেলা যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক হাফেজ হাওলাদার, সাবেক উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি মাহমুদুল হাসান পিন্টু, সাধারণ সম্পাদক ইমতিয়াজ ইমন নয়ন বেপারী, ব্যবসায়ী হুমায়ুন কবির, রাখাইন নেতা উসিদ মং ও মাদ্রাসার ইমাম নৈশ প্রহরী শাহজাহান আলীসহ শতাধিক মানুষকে মারধর করেছেন। 

সরকারী কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন লোকজনকে মারধর ও অনৈতিকভাবে অর্থ আত্মসাৎ সম্ভলিত ৩০ টি অভিযোগ এনে স্থানীয় সরকার মন্ত্রনালয়ে তার বিরুদ্ধে আবেদন করা হয়।  ওই অভিযোগের তদন্ত সাপেক্ষে স্থানীয় সরকার মন্ত্রনালয় তাকে গত বছর জুন মাসে বরখাস্ত করেন।  তিনি বর্তমানে বরখাস্ত অবস্থায় আছেন।  কিন্তু বরখাস্ত হলেও তার ভয়ে কেউ উপজেলা পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের দায়িত্ব নিচ্ছেন না। 

গত এক বছর ধরে উপজেলা পরিষদের সকল কার্যক্রম স্থবির হয়ে পরেছে।  গত পাঁচ বছরে তার দুঃশাসনে অতিষ্ট উপজেলাবাসী।  বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় নির্বাচন কমিশনের উপ-সচিব মাহফুজা আক্তার স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে তালতলী উপজেলা পরিষদ তফসিল ঘোষনা করা হয়।  এতে মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিন ২১ মে, বাছাই ২৩ মে, প্রার্থীতা প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ৩০ মে ও ভোট গ্রহন ১৮ জুন। 

নির্বাচনের তফসিল ঘোষনার খবরে তালতলী উপজেলার সাধারণ মানুষের মাঝে স্বস্তি ফিরে এসেছে। 

বরগুনা জেলা নির্বাচন অফিসার দিলীপ কুমার হাওলাদার বলেন, নির্বাচন কমিশনের তফসিল অনুযায়ী তালতলী উপজেলা পরিষদ নির্বাচন সুষ্ঠু,অবাধ ও নিরপেক্ষ করার লক্ষে যাবতীয় কার্যক্রম শুরু করে দিয়েছি।