৬:০৯ এএম, ২৫ জুন ২০১৮, সোমবার | | ১১ শাওয়াল ১৪৩৯

South Asian College

দেশে ফিরতে কুয়েতে দূতাবাসে অবৈধ অভিবাসীদের ঢল

৩০ জানুয়ারী ২০১৮, ০৬:৪০ পিএম | নিশি


সাদেক রিপন ,কুয়েত প্রতিনিধি : মধ্যপ্রচ্যের দেশ কুয়েত সরকার ছয় বছর পর বিভিন্ন দেশের অবৈধ অভিবাসীদের জন্য সাধারণ ক্ষমা ঘোষণা করেছে। 

মঙ্গলবার ৩০ জানুয়ারি ছিল দ্বিতীয় দিন ভোর থেকে কুয়েতে বিভিন্ন অঞ্চল থেকে আসা অবৈধ অভিবাসী বাংলাদেশিরা ভীড় করতে থাকেন কুয়েতস্থ খালেদিয়া বাংলাদেশ দূতাবাসে। 

সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত কয়েক হাজার বিভিন্ন কারণে অবৈধ বাংলাদেশি প্রবাসীদের ঢল নামে র্দীঘদিন অবৈধ থাকার পর ফিরে যেতে মা ও মাতৃভূমির কোলে।  শুরু হয় গত কাল সোমবার ২৯ জানুয়ারি থেকে চলবে ২২ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত এর আগে ২০১১ সালে সাধারণ ক্ষমা ঘোষণা করেছিল কুয়েত সরকার। 

কুয়েতে বাংলাদেশ দূতাবাসের কাউন্সিলর জনাব আনিসুজ্জামান জানান, দুই দিনে প্রায় দুই থেকে আড়াই হাজার প্রবাসী দূতাবাসে এসেছেন সাধারন ক্ষমার সুযোগ গ্রহন করেছন।  এদের মধ্যে নতুন পাসপোর্ট, আউট পাস (টিপি), সংখ্যা বেশী।  তাদের মধ্যে চার ভাগের তিন ভাগই দেশে যেতে ইচ্ছুক বাকিরা এখানে বৈধভাবে থাকার চেষ্টা করছেন। 

তিনি আরও জানান, গতকাল ও আজ কে অবৈধ অভিবাসী যারা বৈধ হতে ইচ্ছুক তাদের প্রায় দুই থেকে তিন শত পাসপোর্টের আবেদন গ্রহণ করা হয়েছে।  আউট পাস (টিপি) দেয়া হয়েছে প্রায় হাজার বারো শতের মতো।  দূতাবাস থেকে কাগজ পত্র দেওয়ার পর সবাই কে স্থানীয় রেসিডেন্সিয়াল বিষয়ক বিভাগে যোগাযোগ করে তারপর দেশে যেতে হবে।  আর যারা বৈধ হয়ে আগের কফিল যদি মামলা না করে তারা কুয়েতে থেকে নতুন আকামা লাগাতে পারবেন।  এবং যাদেও যাদের নামে ইনহাস মামলা রয়েছে তার আগের কফিল যদি মামলা না তুলে সেক্ষেত্রে দেশে গিয়ে নতুন ভিসায়া আবার কুয়েতে আসতে পারবেন। 

সকল অবৈধ অভিবাসীর কাছে এই তথ্য পৌছানোর অনুরোধ করে তিনি আরো বলেন, এই সুযোগটি কুয়েতে অবৈধভাবে বসবাসরত সকল প্রবাসীদের নেয়া উচিৎ।   এই সুযোগে যারা এখানে থাকতে চান তারা নতুন কফিলের (মালিক) ব্যবস্থা করে থাকার চেষ্টা করতে পারেন। 

কুয়েতে দূতাবাসের শ্রম কাউন্সিলর আব্দুল লতিফ খাঁন বলেন, কত দিনের মধ্যে এই পাসপোর্ট দেয়া হবে জানতে চাইলে তিনি জানান, দূতাবাস কর্তৃপক্ষ প্রবাসীদের সুবিধার্থে সর্বাত্বক সহযোগিতা ও চেষ্টা করছেন।  তিনি আশা করেন নিদ্রিষ্ট সময়ের ভিতরে যত দ্রুত সম্ভব দিতে চেষ্টা করব।  এই সাধারণ ক্ষমার বিষয়টি নিয়ে তিনি বাংলাদেশে কমউনিটির সহযোগিতা কামনা করেন।