৩:৪৪ পিএম, ২৫ নভেম্বর ২০১৭, শনিবার | | ৬ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯

South Asian College

দাঁড়িয়ে পানি পানে স্বাস্থ্যঝুঁকি বাড়ে

১১ আগস্ট ২০১৭, ০৯:২৩ এএম | সাদি


এসএনএন২৪.কম : ‘পানির ওপর নাম জীবন’ আবার পানির ওপর নাম মরণও কিন্তু! কারণ ভুল নিয়মে পানি পান করে নিজেকে ঝুকির মুখে ফেলে দিচ্ছেন।  আমরা জানি আমাদের শরীরের মোট ওজনের শতকরা ৬০ ভাগ হচ্ছে পানি। 

দেহের কোষ, কলা বা টিস্যু, বিভিন্ন অঙ্গ তথা মস্তিষ্ক, কিডনী, পাকস্থলী, ত্বক, চুল ইত্যাদির যথাযথ কার্যকারীতার জন্য পানি অত্যাবশ্যকীয়।  শরীরের সকল প্রকার কার্যাবলী সুষ্ঠুভাবে সম্পাদনের জন্য পর্যাপ্ত পরিমাণ পানি পান করা প্রয়োজন।  কিন্তু আপনি জানেন কী পানি দাঁড়িয়ে না বসে পান করতে হয়? যদি বসে পান করতে হয় তবে কেন? আবার দাঁড়িয়ে পান করলে সমস্যা কী? সাধারণত আমরা জানি পানি বসে পান করা উচিত।  কিন্তু এই কথার বৈজ্ঞানিক ভিত্তি ক’জন জানি? চলুন জানা যাক। 

দাঁড়িয়ে পানি পান করার বিপদ : দাঁড়িয়ে পানি পান করা হলে তা দ্রুত কোলন বা মলাশয়ে চলে যায়।  ফলে পানির প্রয়োজনীয় পুষ্টি উপকরণ শরীরে শোষিত হয় না। 

দাঁড়িয়ে পান করলে আরও অনেক স্বাস্থ্যঝুঁকি তৈরি হতে পারে।  এগুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য ঝুঁকি হচ্ছে হজমজনিত সমস্যা, পেট ব্যথা, কিডনী নষ্ট হয়ে যাওয়া, স্নায়ু উত্তেজনা ইত্যাদি।  এছাড়াও দাঁড়িয়ে পানি পান করলে অস্থিসন্ধিতে ফ্লুইড জমে গিয়ে আর্থ্রাইটিসের সৃষ্টি করতে পারে। 

পানি পান করার পরেই ছাঁকনিগুলো শরীর পরিশ্রুত করার কাজ শুরু করে দেয়।  দাঁড়িয়ে পানি পান করলে শরীরের অন্দরে থাকা ছাকনিগুলো সংকুচিত হয়ে যায়।  পরিশ্রুত করার কাজ বাধা পায়।  শরীরে টক্সিনের মাত্রা বাড়তে থাকে। 

দাঁড়িয়ে পানি পান করলে তা সরাসরি পাকস্থলীতে গিয়ে আঘাত করে।  স্টমাক থেকে নিঃসৃত অ্যাসিডের কর্মক্ষমতা কমিয়ে দেয়।  বদহজমের আশঙ্কা বাড়ে।  তলপেটে যন্ত্রণাসহ একাধিক সমস্যা তৈরি হয়। 

আর্থারাইটিসের আশঙ্কা শরীরের মধ্যে থাকা কিছু উপকারি রাসায়নিকের মাত্রা কমতে থাকে।  ফলে জয়েন্টের কর্মক্ষমতা কমে যায়।  সেখান থেকে আর্থারাইটিসের আশঙ্কা বাড়ে। 

দাঁড়িয়ে পানি পান করলে নার্ভ উত্তেজিত হয়ে যায়, উদ্বেগ বাড়তে থাকে।  কিডনি ক্ষতিগ্রস্থ হয় দাঁড়িয়ে পানি পান করলে কিডনির কর্মক্ষমতা কমে।  কিডনি ড্যামেজের সম্ভাবনা থাকে। 

গ্যাস্ট্রো ইসোফেগাল রিফ্লাক্স ডিজিজ বা G.E.R.D দাঁড়িয়ে পানি পান করলে তা সরাসরি ইসোফেগাসে গিয়ে ধাক্কা মারে।  এরফলে পাকস্থলীর ভেতরের সরু নালিটি মারাত্মক ক্ষতিগ্রস্থ হয়।  যার ফলে গ্যাস্ট্রো ইসোফেগাল রিফ্লাক্স ডিজিজ বা G.E.R.D এর মতো রোগ শরীরে বাসা বাঁধে। 

পরামর্শ :
আপনাকে বসে বসেই পানি পান করতে হবে।  বসে পান করলে অনেক রোগ থেকে রক্ষা পাওয়া যাবে।  বসে পানি পান করার পাশাপাশি অবশ্যই ছোট ছোট চুমুক বা অল্প অল্প করে পান করবেন।  যদি দ্রুত পানি পান করতে থাকেন তবে শরীরের ক্ষতি করছেন।  গরমে সুস্থ থাকতে প্রচুর পানি পান করা আবশ্যক।  সকালবেলা খালি পেটে চার গ্লাস পানি পান করুন।  পানি পানের ৩০ মিনিট পর নাস্তা করে।  সুস্থ, সবল ও রোগমুক্ত থাকতে যথাযথ নিয়ম মেনে পানি পানের বিকল্প নেই।  তাহলে আজ থেকেই শত ব্যস্ততার মাঝেও বসে থেকে পানি পানের সিদ্ধান্ত নিচ্ছেন তো?

Abu-Dhabi


21-February

keya