৫:০৮ পিএম, ১০ ডিসেম্বর ২০১৮, সোমবার | | ১ রবিউস সানি ১৪৪০




ধর্ষনের বিচারে মা-মেয়েকে এলাকা ছাড়ার নির্দেশ, থানায় মামলা

১৪ মার্চ ২০১৮, ০৫:২৭ পিএম | নকিব


মোঃ শাহজাহান ফকির , নান্দাইল, ময়মনসিংহ প্রতিনিধি : নান্দাইল উপজেলায় হাতে নাতে ধর্ষনের অভিযোগ পাওয়ার পরও   বিচার সালিশে যুবতিকে মিথ্যা অপবাদ দিয়ে মা-মেয়েকে এলাকার ছাড়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। 

এতে ধর্ষিতা বাদী হয়ে মঙ্গলবার নান্দাইল মডেল থানায় একটি ধর্ষন মামলা দায়ের করেছে।  সে শেরপুর ইউনিয়নের মৃত: আমেদ আলীর কন্যা।  উক্ত ঘটনায় কয়েজন প্রভাবশালী ব্যক্তি নারীটিকে মারধর করে এলাকা ছাড়া করার চেষ্টা করছে।  জানাযায়, সরকারি জায়গায় একটি ঘর তুলে বাস করেন বিধবা এক নারী।  তাঁর স্বামী মারা যাওয়ায় সেও বাজার ঝাড়ু দিয়ে কোনমতে সংসার চালান। 

মেয়েটির মা বলেন, কিছু দিন ধরে চানপুর গ্রামের বাদল মিয়ার ছেলে সোহান মিয়া (২৫) তার মেয়েকে বিভিন্নভাবে উত্ত্যক্ত করে আসছিল।  সোমবার গভীর রাতে মেয়েকে মোবাইল ফোনে ডেকে নেয়।  অনেক খুঁজা খুঁজির পর বাড়ির পাশে একটি দোকান থেকে প্রতিবেশীদের সহযোগিতায় মেয়েকে উদ্ধার করে ও যুবক সোহানকেও আটক করে।  মেয়েটি জানায়, সোহান বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে তাঁর সঙ্গে সর্ম্পক ঘরে তুলে। 

সকালে স্থানীয় লোকজন ঘটনা জেনে বিয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।  তবে কয়েকজন প্রভাবশালী ব্যক্তি উল্টো তাকে খারাপ অপবাদ দিয়ে সোহানকে তাঁর বাবার হাতে তুলে দেন।  সোহানের বাবা জানান, এলাকার কয়েকজন নেতার হস্তক্ষেপে ছেলেকে ছাড়িয়ে এনেছেন।  তবে এর জন্য কিছু দিতে হয়েছে।  প্রত্যক্ষদর্শী কয়েকজন জানান, তাঁরা এই অন্যায়ের প্রতিবাদ জানিয়েছেন।  তাতে কোন কাজ হয়নি।  ধর্ষনের পর তারা (প্রভাবশালী) মেয়ের মাকে দুই দিনের মধ্যে এলাকা ছেড়ে যাওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন।  নান্দাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. ইউনুস আলী বলেন, ‘ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়ে মেয়েটিকে উদ্ধার করা হয়েছে।  বুধবার স্বাস্থ্য পরিক্ষার জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।