১০:০৭ পিএম, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৮, শনিবার | | ৬ রবিউস সানি ১৪৪০




অতি দরিদ্রদের জন্য কর্মসৃজন প্রকল্প

নান্দাইলে পুনরায় ৫ কোটি টাকা ফেরত যাবার পথে

০৪ ডিসেম্বর ২০১৮, ১২:৫৬ পিএম | জাহিদ


মো.শাহজাহান ফকির, নান্দাইল (ময়মনসিংহ) : ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলায় চলতি ২০১৮-১৯ অর্থ বছরে অতি দরিদ্রদের জন্য কর্মসংস্থান কর্মসূচী (ইজিপিপি) ১ম পর্যায় বাস্তবায়নের জন্য ৫ হাজার ৯৫০ জন অতি দরিদ্র উপকারভোগীর জন্য প্রায় ৫ কোটি টাকা দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রান মন্ত্রণালয় থেকে থোক বরাদ্দ প্রদান করা হয়। 

বিগত ২৯ সেপ্টেম্বর থেকে কাজ শুরু করে ২৯ নভেম্বর পর্যন্ত কর্মসূচীর ১ম পর্যায়ের বাস্তবায়ন সীমা মন্ত্রণালয় থেকে নির্ধারিত করে দেওয়া হয়।  কিন্তু নান্দাইল উপজেলায় উক্ত সময়ের মধ্যে ১২ ইউনিয়নের কোথাও ইউনিয়ন পরিষদ থেকে কাজ শুরু করা হয় নাই। 

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার বেতাগৈর ইউনিয়নে ৬৮৭ জন, মোয়াজ্জেমপুর ৫১৭ জন, নান্দাইল ৩৮৮ জন, চন্ডিপাশা ৫৩৩ জন, গাংগাইল ৫০৫ জন, রাজগাতি ৪৫৬ জন, মুশুল্লি ৫০৮ জন, সিংরইল ৪৫২ জন, আচারগাঁও ৪২৭ জন, শেরপুর ৪৫৯ জন, খারুয়া ৪৬৪ জন ও জাহাঙ্গীরপুর ইউনিয়নে ৫৫৪ জন শ্রমিকের মাধ্যমে প্রতি ওয়ার্ডে একটি প্রকল্প গ্রহন করে কাজ সম্পন্ন করার নির্দেশ ছিল। 

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. মোসাদ্দেক মেহেদী ইমাম জানান, সংশ্লিষ্ট সকল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানদের প্রকল্প দাখিল করার জন্য নির্দেশনা প্রদান করা হলেও কোন চেয়ারম্যান প্রকল্প ও শ্রমিক তালিকা, নন-ওয়েজ কষ্ট অর্থের প্রকল্পের তালিকা জমা প্রদান করে নাই।  নির্ধারিত সময়ে কাজ না হওয়ায় ১ম দফার ৪ কোটি ৭৬ লাখ টাকা অবব্যয়িত অবস্থায় সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ে ফেরত যাবে। 

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা এবি এম সিরাজুল হক বলেন, ১ম দফা কাজ সম্পন্ন করার সময় অতিক্রম হয়েগেছে।  মন্ত্রণালয় যদি পুনরায় সময় বর্ধিত করে তাহলে পুনরায় কাজ করার সুযোগ রয়েছে।  উল্লেখ্য ২০১৭-১৮ অর্থ বছরে নান্দাইল উপজেলায় ২ দফায় উল্লেখিত প্রকল্পের প্রায় ১০ কোটি টাকা ফেরত প্রদান করা হয়েছিল। 

অনুসন্ধানে জানা গেছে, ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানদের সাথে শ্রমিক বন্টন নিয়ে আওয়ামীলীগ নেতৃবৃন্দের সমঝোতা না হওয়ায় নান্দাইল উপজেলায় এ নিয়ে ৩ দফায় প্রায় ১৫ কোটি টাকার উন্নয়ন কাজ বাস্তবায়ন করা সম্ভব হয় নাই।  এ বিপুল পরিমাণ টাকার কাজ না হওয়ায় নান্দাইল উপজেলার অতি দরিদ্র জনগণ সরকারী সুবিধা থেকে বঞ্চিত সহ এলাকার উন্নয়ন কাজে বিঘ্ন সৃষ্টি হয়েছে বলে বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন নান্দাইল উপজেলা শাখার নেতৃবৃন্দ মনে করেন।  



keya