৮:৩৭ পিএম, ২৩ মে ২০১৮, বুধবার | | ৮ রমজান ১৪৩৯

South Asian College

নবীগঞ্জে বিরল রোগে আক্রান্ত রিংকী দাশ বাচঁতে চায়

১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ১০:৩৯ এএম | মুন্না


মতিউর রহমান মুন্না, নবীগঞ্জ (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি: হবিগঞ্জ জেলার নবীগঞ্জ উপজেলার স্কুল ছাত্রী রিংকী বাঁচতে চায়।  উঠে দাঁড়াতে চায়, যেতে চায় আগের মতোই স্কুলে, খেলতে চায় বন্ধুদের সাথে।  কিন্তু ৪ মাস যাবৎ এক অজানা রোগে আক্রান্ত হয়ে শয্যাশায়ী অবস্থায় পড়ে রয়েছে বিছানায়।  জীর্ণকায় শরীরটা দিনে দিনে মরনের দিকে নিয়ে যাচ্ছে তাকে। 

৬ষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্রী রিংকীকে নিয়ে দুর্বিষহ জীবন যাপন করছেন তার বাবা ও মা।  রিংকীকে সুস্থ্য জীবনে ফিরিয়ে আনতে সমাজের বিত্তবানদের এগিয়ে আসার আহব্বান জানিয়েছে তারা। 

নবীগঞ্জ উপজেলার করগাঁও ইউনিয়নের বুরুঙ্গাঁ পাঠলী গ্রামের দিন মজুর অর্জুন দাশের কন্যা ও নবীগঞ্জ জে.কে সরকারী মডেল হাই স্কুলের ৬ষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্রী রিংকী দাশ (১২) প্রায় ৪ মাস পূর্বে হঠাৎ জ্বরে আক্রান্ত হয়।  তখন প্রাথমিক চিকিৎসা নিলেও জ্বর না কমে হাত পায়ের বিভিন্ন স্থানের চামড়া উঠে গিয়ে দেখা দেয় অজানা এক রোগ।  এ অবস্থায় বিভিন্ন চিকিৎসকের পরামর্শে চিকিৎসা শুরু করা হয়।  এতে কোন উন্নতি না হওয়ায় গত বছরের শেষের দিকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা প্রায় এক সপ্তাহ চিকিৎসা দিয়ে পরবর্তী চিকিৎসার জন্য ঢাকাস্থ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেন।  এ অবস্থায় শিশু রিংকী ঠিক মতো ঘুমাতেও পারেনা।  অসহ্য যন্ত্রণায় দিন-রাত ছটফট করতে থাকে।  সরেজমিনে তাদের বাড়ীতে গেলে বিরল রোগে আক্রান্ত স্কুল ছাত্রী রিংকী  কান্নাজরিত কন্ঠে তাকে বাচাঁনোর আকুতি জানায়। 

ছোট শিশুর এ অবস্থায় দিশেহারা হয়ে পড়েছে তার পরিবারটি।  এই শিশুর চিকিৎসা করতে হলে অনেক টাকার প্রয়োজন বলে জানিয়েছেন মেয়েটির মা ঝলক দাশ।  এতো অভাব-অনটনের মাঝে শিশু রিংকীর চিকিৎসার ব্যয়বহুল খরচ যোগানো মা বাবার পক্ষে অসম্ভব হয়ে পড়েছে বলে জানান। 

রিংকীর মা (ঝলক দাশ) বলেন, বিরল ওই রোগে সম্পূর্ন সুস্থ্য হওয়ার কোন চিকিৎসা নেই বলে জানালেন স্থানীয় এই চিকিৎসক। 
শটঃ ডাঃ ইফতেখার হোসেন চৌধুরী, আরএমও, নবীগঞ্জ হাসপাতাল। 

Abu-Dhabi


21-February

keya