১:৪৯ পিএম, ২১ নভেম্বর ২০১৭, মঙ্গলবার | | ২ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯

South Asian College

বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষের অবহেলায়

পতেঙ্গার কাটগরে বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে আগুনে ১০টি ঘর পুড়ে ছাই

০৪ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ০৭:২৩ পিএম | রাহুল


নিজস্ব প্রতিনিধিঃ নগরীর পতেঙ্গায় কাটগর(ওসিএল ডিপোর সন্নিকটে) জরিপ আলী  বাড়িতে অগ্নিকাণ্ডে অন্তত ১০টি বসতঘর পুড়ে গেছে। ৪সেপ্টেম্বর সোমবার দিবাগত রাত্র ২.২০মিনিটের দিকে  বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিটে অগ্নিকান্ডে ১০টি বসত ঘর পুড়ে গেলেও কোন ধরনের হতাহতের ঘটনা ঘটেনি বলে জানায় ফায়ার সার্ভিস।     আগুনে অন্তত ২০/২৫ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে দাবী করেন ক্ষতিগ্রস্থ্য পরিবার।  তবে ফায়ার সার্ভিস জানায় ৭টি বসতঘর পুড়ে যাওয়ার কথা জানান।  এদিকে অগ্নিকাণ্ডের সময় বিদ্যুৎ সংযোগ বন্ধ নিয়ে পিডিবি বিরুদ্ধে দায়িত্ব অবহেলার অভিযোগ করেছে এলাকাবাসী। 

আগ্নিকাণ্ডের খবর পেয়ে বন্দর ইপিজেড ফায়ার সার্ভিসের ৫টি গাড়ি ঘটনাস্থলে পৌনে ১ঘন্টা চেষ্টা করে আগুন নিয়ন্ত্রনে করেছে বলে জানায় ফায়ার সার্ভিস কন্ট্রোল রুম।   অগ্নিকাণ্ডের বিষয়টি নিশ্চিত করে ফায়ার সার্ভিসের উপ-সহকারি পরিচালক কামাল উদ্দিন সংবাদ মাধ্যম কে জানায়,  সোমবার মধ্যরাতে বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে লাগা আগুনে কাঠগড়ের একটি বাড়িটিতে আগুন লাগে।  এতে /৭টি বসতঘর সম্পূর্ণ পুড়ে যায়।  তবে সরজমিনে দেখা স্থানীয়দের  আগুনে ১০ ঘর পুড়ে যাওয়ার দৃশ্য দেখতে পাওয়া যায় । 

আগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্ত বাড়ির মালিক জানে আলম, নুরুল আলম ক্ষোভে প্রকাশ করে এই প্রতিবেদক কে  বলেন, আগুন লাগার পরেও বিদ্যুৎ সংযোগ বন্ধ করার জন্য  আমরা এলাকাবাসী প্রায়  শতাধিক বার পিডিবি টেলিফোন নম্বরটিতে ফোন দেই।  কিন্তু একটি বারও কেউ রিসিভ করে নি।  এর ফলে আগুন নেভাতে প্রাথমিক ভাবে প্রতিবেশীরা সহযোগীতা করতে এগিয়ে আসলেও সাহস করে পানি ছিড়াতে গেলে বিদুৎ শটে বোরহান উদ্দিন (৩৫) নামে এক যুবক আহত হবার খবর পাওয়া যায়।  এ সময় বৃষ্টিপাত হচ্ছিলো বলে আগুন লাগা বাড়িটির চারপাশে পানি জমে গিয়েছিল আর বিদ্যুৎ সংযোগ চালু থাকায় কেউ পানিতে নামতে সাহস করেনি। 

এমনকি ফায়ার সার্ভিস কর্মীরাও প্রথমে বিদ্যুৎ সংযোগ চালু দেখে তড়িৎ কাজে নামতে পারেনি।  তারাও তাদের কন্ট্রোল রুমে একাধিক বার বিদ্যুৎ সংযোগ চালু থাকার বিষয়টি জানাতে থাকলে এক পর্যায়ে বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়।  আগুনের দাপে পাশের বিল্ডিং পাটল সহ কাটের আলমিরাতে এবং এলইডি টিভি,ফ্রিজ সহ কাটের আসবাব পত্রের শোফা সেটেরও মারাত্মক ক্ষতি সাধন হয় বলে নুরুল ইসলাম জানান। 

ক্ষতিগ্রস্থরা হলেন-জানে আলম,নুরুল আলম,নুরুল ইসলাম,বোরহান,আরমান, ওসমান সহ আরো কয়েজন প্রতিবেশী।  এরা সবাই দাবি করে বলেন,আগুনে আমাদের ২০/২৫লাখ টাকার ক্ষয় ক্ষতি হয়েছে। আর বিদ্যুৎ বিভাগ যদি দ্রুত সংযোগ বিচ্ছন্ন করতো তা হলে আমাদের আরো কয়েটি ঘর রক্ষা পেত।