৭:৩৭ এএম, ৫ আগস্ট ২০২০, বুধবার | | ১৫ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১




পুনঃনিরীক্ষণে চট্টগ্রাম বোর্ড থেকে জিপিএ ৫ পেলেন অনন্যা চৌধুরী

০১ জুলাই ২০২০, ০৫:৩২ পিএম | নকিব


নকিব ছিদ্দিকী, চট্টগ্রাম: সারা দেশে ছয় হাজারের অধিক এসএসসি ও সমমান পরীক্ষার ফল পরিবর্তন হয়েছে।   এদের মধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছে ৭৯৩ পরীক্ষার্থী।   ফেল থেকে জিপিএ-৫ সহ বিভিন্ন স্তরে জিপিএ পরিবর্তন হয়েছে।   আবার আবেদন করে পাস থেকে ফেলও করেছে। 

মঙ্গলবার (৩০ জুন) পুনঃনিরীক্ষণ ফল প্রকাশের পর ১১ শিক্ষা বোর্ডে যোগাযোগ করে এ তথ্য জানা গেছে।  এসব পরিবর্তনের মধ্যে গণিত ও ইংরেজি বিষয়ে খাতায় বেশি পরিবর্তন হয়েছে। 

জানা গেছে, এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফলে সন্তুষ্ট .না হয়ে সারা দেশে ২ লাখ ৩৪ হাজার ৪৭১ শিক্ষার্থী চ্যালেঞ্জ করে আবেদন করে।   এ কারণে বিভিন্ন বিষয়ের উত্তরপত্র পুনর্মূল্যায়নের জন্য মোট ৪ লাখ ৮১ হাজার ২২২ বিষয়ের ফলে আপত্তি তোলা হয়। 

গত ৩১ মে প্রকাশিত হয় এসএসসি ও সমমান পরীক্ষা।   এবার গড় পাসের হার ৮২ দশমিক ৮৭ শতাংশ, যা গত বছর ছিল ৮২ দশমিক ২০ শতাংশ।   এ বছর মোট জিপিএ-৫ পেয়েছে এক লাখ ৩৫ হাজার ৮৯৮, যা গত বছর পেয়েছিল ১ লাখ ৫ হাজার ৫৯৪ জন।   পরীক্ষার ফলে আপত্তি থাকা শিক্ষার্থীদের জন্য গত ১ জুন পুনঃনিরীক্ষণের আবেদন কার্যক্রম শুরু হয়ে ৭ জুন শেষ হয়। 

পুনঃনিরীক্ষণে চট্টগ্রাম বোর্ডে আবেদন করেছিলেন চট্টগ্রামের রাউজান উপজেলার নোয়াজিষপুর ইউনিয়নের নদীমপুর ইউনুচ আলমাচ স্কুল এন্ড কলেজের ছাত্রী অনন্যা চৌধুরী।  গত ৩১ মে প্রকাশিত হয় এসএসসি ও সমমান পরীক্ষা তার ফলাফল আসে ৪.৮৯ ।  পুনঃনিরীক্ষণে সে  জিপিএ ৫ পেলেন । 

রাউজান উপজেলার নোয়াজিষপুর ইউনিয়নের কৃতি সন্তান, আওয়ামীলীগের নেতা মোহাম্মদ লোকমানে চৌধুরীর মেয়ে।  অনন্যা চৌধুরী ইউনুচ আলমাচ স্কুল এন্ড কলেজের মেধাবী ছাত্রী। 

সে এ গৌরবময় প্রাপ্তির জন্য সর্ব প্রথম সৃষ্টিকর্তা’র শুকরিয়া ও তাঁর বাবা-মা এবং সম্মানীত শিক্ষক/শিক্ষিকাদের অবদানের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে। 

সে জানায়, বাবা-মায়ের অক্লান্ত পরিশ্রম ও আন্তরিকতা এবং আমার আত্মবিশ্বাসী প্রচেষ্টায়ই আজকের এই ফলাফল।  ভবিষ্যতে উচ্চ শিক্ষায় কৃতিত্বপূর্ণ ফলাফল অব্যাহত রাখার জন্য সে তাঁর সকল শিক্ষক-মণ্ডলী, মা-বাবা, দাদা-দাদি, নানা-নানি এবং সকল আত্নীয়-স্বজন, বন্ধু-বান্ধব সহ সকলের নিকট দোয়া প্রত্যাশী। 

অন্যদিকে অনন্যার বাবা রাজনীতিবিদ মোহাম্মদ লোকমান চৌধুরী ও মা গৃহীনী শিরিন আকতার মেয়ের এমন কাঙ্খিত ফলাফল পেয়ে মহান আল্লাহর কাছে হাজারো শুকরিয়া জানিয়ে তার শিক্ষক-শিক্ষিকা ও শুভাকাঙ্খীদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান।  পাশাপাশি অনন্যার উজ্জ্বল ভবিষ্যতের জন্য সকলের দোয়া কামনা করেন।