৩:২১ এএম, ৩০ মার্চ ২০২০, সোমবার | | ৫ শা'বান ১৪৪১




পার্টনার দিয়ে নিজের স্ত্রীকে ধর্ষণ করিয়েই খুন হন শ্রীপুরের রহমান!

২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০৪:২৫ পিএম | নকিব


আলফাজ সরকার আকাশ শ্রীপুর (গাজীপুর) প্রতিনিধিঃ জমি ব্যবসায়ী আব্দুর রহমানের চতুর্থ স্ত্রী সামিরা।  ১০ ফেব্রুয়ারি ব্যবসায়িক পার্টনার রতন নামের একজনের সঙ্গে স্ত্রী সামিরাকে যৌন কাজে লিপ্ত হতে বাধ্য করেছিলেন স্বামী আব্দুর রহমান। 

ওই রাত ১১টার দিকে রতন তাদের বাসা থেকে চলে গেলে ৩টার দিকে ধারাল দা দিয়ে আব্দুর রহমানকে ঘুমন্ত অবস্থায় গলা কেটে হত্যা করেন সামিরা। 

মৃত্যু নিশ্চিত হওয়ার পর আব্দুর রহমানের মরদেহ তোশকে মুড়িয়ে ঘরের ভেতর রেখে দেন।  মৃত্যুর পর যাতে মরদেহ চিহ্নিত করতে না পারে সেজন্য মুখমণ্ডল অ্যাসিড দিয়ে ঝলসে দেন সামিরা। 

গাজীপুরের শ্রীপুরে আব্দুর রহমান নামে এক ব্যক্তির খুনের ঘটনায় গ্রেফতারকৃতদের দেয়া স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি তুলে ধরেছেন র‌্যাব-১। 

২৪ ফেব্রুয়ারি সোমবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে সামিরা ও তার বাবাকে গ্রেফতার করে র‌্যাব-১-এর পোড়াবাড়ি ক্যাম্পের একটি দল। 

গ্রেফতারকৃতরা হলেন, নিহত আব্দুর রহমানের চতুর্থ স্ত্রী সামিরা আক্তার (২৬) এবং তার বাবা  বরিশালের উজিরপুর উপজেলার মৃৃত ফজলুল হকের ছেলে আলী হোসেন (৫৫)। (বর্তমানে গাজীপুরের জয়দেবপুর এলাকার ছামিদুলের বাড়ির ভাড়াটিয়া)। 

র‌্যাব-১-এর কোম্পানি কমান্ডার আব্দুল্লাহ আল মামুন জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রাজধানীর দক্ষিণখান এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়।  অন্যকে দিয়ে নিজের স্ত্রীকে ধর্ষণ করানোর কারনেই প্রতিশোধপরায়ণ হয়ে আব্দুর রহমানকে খুন করেছেন সামিরা। 

উল্লেখ, আব্দুর রহমান-সামিরা দম্পতি মাওনা প্রশিকা মোড়ের একটি ফ্ল্যাট ভাড়া নিয়ে বসবাস করতেন।  কয়েকদিন ধরে ঘরের দরজা তালাবদ্ধ থাকা এবং পচা গন্ধ বের হওয়ায় বাড়ির মালিক পুলিশে খবর দেয়।  পরে ১৮ ফেব্রুয়ারি মঙ্গলবার রাত আড়াইটার দিকে প্রথমে পুলিশ ও পরে ঢাকা থেকে সিআইডি ক্রাইম সদস্যরা এসে তালা ভেঙে বিকৃত অবস্থায় মরদেহটি উদ্ধার করে।  এ ঘটনার পর থেকে তার স্ত্রী সামিরা পলাতক ছিলেন।