৪:১২ পিএম, ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, বৃহস্পতিবার | | ১৫ জমাদিউস সানি ১৪৪০




প্রতিযোগিতার মধ্য দিয়ে বিশ্ব দরবারে মাথা উঁচু করে দাঁড়াতে হবে : দুবাই কনসাল জেনারেল

১০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০৮:১৭ এএম | জাহিদ


এম.এনাম হোসেন, আরব আমিরাত : বাংলাদেশের মতো সংযুক্ত আরব আমিরাতে ও ফুটবল জনপ্রিয় খেলা।  হরেক রকম খেলা ধূলাকে পাশ কাটিয়ে ফুটবল সব সময় আমিরাতের একটি জনপ্রিয় খেলা। 

আন্তর্জাতিক ফুটবলে আমিরাত জাতীয় দলের অংশগ্রহণ যেমন নিয়মিত, তেমনি দেশটিতে প্রতিবছর জাতীয় লীগের কম্পিটিশন ক্রীড়াঙ্গনে ঝড় তুলে।  সে ক্ষেত্রে পিছিয়ে নেই প্রবাসীরাও।  কমবেশি সব দেশের প্রবাসীদের আছে ফুটবল ক্লাব।  তেমনি বাংলাদেশিদেরও এলাকা ভিত্তিক কয়েকটি ফুটবল দল  আছে।  আমিরাত প্রবাসী বাংলাদেশিদের অন্যতম বিনোদন মাধ্যম ফুটবল টুর্নামেন্ট।  সংযুক্ত আরব আমিরাতের প্রাদেশিক শহর গুলোতে বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন উপলক্ষ্যে ফুটবলের অনেক প্রীতিম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়েছে।  বলতে গেলে এই টুর্নামেন্ট এখন প্রবাসী বাংলাদেশিদের এক জনপ্রিয় ইভেন্টের নাম। 

বাংলাদেশের ৪৭তম মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে বাংলাদেশ সমিতি ফুজিরা শাখার আয়োজনে ও বিন মুসা গ্রুপের পৃষ্ঠপোষকতায় মাসব্যাপী অনুষ্ঠিত  গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনাল ম্যাচ গতকাল শুক্রবার স্থানীয় গুরফা ইউনাইটেড ফুটবল ষ্টোডিয়ামে সম্পন্ন হয়েছে। 

এতে ফুজিরার মুরাব্বা ইয়াং স্টারকে ৪-১ গোলে পরাজিত করে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে দুবাই ফ্রেন্ডস ক্লাব।  দলের অজয় দাস ২ বার হ্যাট্রিক ও সর্বমোট ১১ গোল দিয়ে সেরা খেলোয়াড় ও সেরা গোলদাতা হিসেবে পুরস্কার লাভ করেন।  ফাইনালে প্রতিদ্বন্দ্বী উভয় দলের শক্তিশালী আক্রমণের মধ্য দিয়ে নিজ নিজ দলের পক্ষে বিজয় ছিনিয়ে নেওয়ার দৃশ্য দর্শকদের প্রচুর আনন্দ দিয়েছে।  খেলা পরিচালনার দায়িত্বে ছিলেন মোহাম্মদ আরিফ, সহকারী রেফারি হোসেন ও সাহেদ, ধারাভাষ্য মোহাম্মদ মাহাবুব, ইমাম উদ্দিন টিটু ও আবু বক্কর।  


টুর্নামেন্টে বিজয়ীদের পুরস্কার প্রদান উপলক্ষে ষ্টোডিয়াম চত্বরে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।  অনুষ্ঠানে দুবাই কনস্যুলেটের কনসাল জেনারেল মোহাম্মদ ইকবাল হোসেন খান প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন।  বিন মুসা গ্রুপের ম্যানেজিং ডিরেক্টর ও বাংলাদেশ সমিতি ফুজিরা শাখার সহ-সভাপতি তপন সরকারের সভাপতিত্বে উক্ত পুরস্কার বিতরণী সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে কনসাল জেনারেল ইকবাল হোসেন খান বলেছেন, সর্বক্ষেত্রে আমাদের প্রতিযোগিতা আছে, আর তার মাধ্যমে আমাদের এগিয়ে যেতে হবে।  শুধু খেলাতে নয় সর্বক্ষেত্রে আমাদের প্রতিযোগি হয়ে বিশ্ব দরবারে বাংলাদেশকে মাথা উঁচু করে দাঁড় করাতে হবে।   সে ক্ষেত্রে শিক্ষার কোন বিকল্প নেই।  বর্তমান সরকার শিক্ষা বান্ধব এবং শিক্ষা খাতকে সরকার অধিকতর গুরুত্ব দিচ্ছে।  উত্তর আমিরাতে রাস আল খাইমাহ একটি স্কুল আছে,পর্যায়ক্রমে আজমান শারজাহ, দুবাই সহ প্রয়োজনে ফজিরাতে ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান স্থাপন করার চেষ্টা অব্যাহত রাখব আমরা।  

তিনি আরো বলেন, প্রবাসীদের দুবাই কনস্যুলেট এর সেবা প্রদানে আমরা সর্বদা সচেষ্ট, যে কোন বিষয়ে কনস্যুলেট আন্তরিকতার সাথে আপনাদের সেবা প্রদান করে যাবে। 

টুর্নামেন্ট পরিচালনা কমিটির যূগ্ম-আহবায়ক মাহবুব হকের পরিচালনায় বিশেষ অতিথি ছিলেন, দুবাই কন্স্যুলেটের দূতালয় প্রধান প্রভাস লামারং, বাংলাদেশ সমিতি ফুজিরার প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি আব্দুল আজীজ চৌধুরী, বাংলাদেশ প্রেসক্লাব ইউএই'র সভাপতি শিবলী আল সাদিক, সহ-সভাপতি সিরাজুল হক, রফিক উল্লাহ, শেখ ফয়সাল সিদ্দিকী ববি, ফুজাইরা দ্যা মেরেডিয়ান আকা বিচ এর প্রধান প্রকৌশলী মাসুদুল হক, সমিতির সাধারণ সম্পাদক বেলাল উদ্দিন চৌধুরী, টুর্ণামেন্ট পরিচালনা কমিটির আহবায়ক সুজন দাশ, সহ-সভাপতি বখতিয়ার উদ্দিন। 


এতে বক্তব্য রাখেন প্রকৌশলী মাসুদ আলম, আশরাফ হোসেন রিপন, রতন কুমার বাল, মহিউদ্দিন, ফজল করিম, আবু তৈয়ব, নিজাম উদ্দিন সাদি, মোহাম্মদ আইয়ুব, ফিরোজ উদ্দিন, মোহাম্মদ সেলিম, বেলাল হোসেন, আবুল কাশেম, ফজল করিম সহ আরো অনেকে।  

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ প্রেসক্লাব ইউএই এর সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল শাহীন, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক সঞ্জিত শীল, সমাজ কল্যাণ সম্পাদক আব্দুল আলীম সাইফুল, সদস্য সামসুল হক প্রমুখ। 

টুর্ণামেন্টে ১৬ টি টীম অংশ গ্রহণ করেছে।  আগামীতে বড় আকারে এ টুর্ণামেন্টের আয়োজন করার পরিকল্পনার কথা ও জানান আয়োজকেরা। 

উক্ত অনুষ্ঠানে সমিতির পক্ষ থেকে বাংলাদেশ প্রেসক্লাব ইউএই'র নবগঠিত কমিটিকে সম্মাননা ক্রেস্ট প্রদান করেন দুবাই কনসাল জেনারেল জনাব ইকবাল হোসেন খাঁন।  প্রেস ক্লাবের সভাপতি শিবলী আল সাদিক, সহ-সভাপতি বৃন্দ ও অন্যান্য সদস্যরা সম্মাননা ক্রেস্ট গ্রহন করেন।