৩:৩৮ এএম, ২৩ অক্টোবর ২০১৯, বুধবার | | ২৩ সফর ১৪৪১




পেঁয়াজের ঝাঁজে টালমাটাল দেশ

০১ অক্টোবর ২০১৯, ১০:৫২ এএম | নকিব


এসএনএন২৪.কম: এবার নিত্যপণ্য পেঁয়াজের ঝাঁজে টালমাটাল দেশ।  ভারতের পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধের ঘোষণার পরদিন, খুচরা বাজারে পণ্যটি কেজিপ্রতি বিক্রি হচ্ছে, ১২০ টাকা পর্যন্ত।  যা পাইকারি বাজার থেকে প্রায় ৪০ টাকা বেশি।  এতে নাভিশ্বাস অবস্থা সাধারণ মানুষের। 

যদিও বাণিজ্য সচিব ড. মো. জাফর উদ্দিনের দাবি, পেঁয়াজের পর্যাপ্ত মজুত রয়েছে।  এদিকে বাজার নিয়ন্ত্রণে, রাজধানীর ৩৫টি পয়েন্টে ৪৫ টাকা দরে পেঁয়াজ বিক্রি করছে টিসিবি। 

মাসের মাঝামাঝি সময়ে পেঁয়াজের রপ্তানি মূল্য তিনগুণ বাড়ায় ভারত।  এরপর দাম বাড়াতে দেরি করেনি বাংলাদেশের ব্যবসায়িরাও।  দেশে যখন বাড়তি পেঁয়াজের দাম নিয়ে চলছে নানা গুঞ্জন, এমন মুহূর্তে রোববার পণ্যটি রপ্তানিতে নিষেধাজ্ঞা দেয় ভারত। 

রপ্তানি নিষেধাজ্ঞার খবর ছড়িয়ে পড়ার পরই  আবারো খুচরা বাজারে কেজিতে ৩০ টাকা বেড়ে গেল পণ্যটির দাম।  রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় দেশী এবং আমদানি করা পেঁয়াজ বিক্রি করতে দেখা যায় ১২০ টাকা পর্যন্ত।  তবে, পাইকারী বাজারের সাথে দামের বেশ বড় ফারাক রয়েছে।  সবশেষ তথ্য অনুযায়ি, শ্যামবাজারের পাইকারী মূল্য ছিল ৭৭-৮২ টাকা। 

বাজার নিয়ন্ত্রণে, পরিধি বাড়িয়ে রাজধানীর ৩৫টি পয়েন্টে ৪৫ টাকা দরে পেঁয়াজ বিক্রি করছে টিসিবি।  একজন নিতে পারবেন সর্বোচ্চ ২ কেজি। 

রাজধানীর মতো পরিস্থিতি সারাদেশেই।  চড়া দামের কারণে বিপাকে ক্রেতারা।  সমস্যার কথা বলছেন ব্যবসায়িরাও। 

বাণিজ্য সচিব বলছেন, বাজার নিয়ন্ত্রণে অন্যান্য দেশ থেকে আমদানি করা হচ্ছে পেঁয়াজ।  দাবি করেন দেশে পর্যাপ্ত মজুত রয়েছে পণ্যটির। 

এদিকে, রপ্তানি বন্ধের পর ভারতের পাইকারী বাজারে কমতে শুরু করেছে পেঁয়াজের দাম।  শিগগিরই খুচরা বাজারেও দাম কমবে বলে মনে করছেন সেখানকার ব্যবসায়িরা। 

গেল একমাসে খুচরা বাজারে পেঁয়াজের দাম কেজিপ্রতি বেড়েছে ৫০ টাকার বেশি।