৪:৩৪ পিএম, ২১ আগস্ট ২০১৮, মঙ্গলবার | | ৯ জ্বিলহজ্জ ১৪৩৯


পা দিয়ে লিখে এইচএসসি পরীক্ষা দিচ্ছে আরিফা

১৭ এপ্রিল ২০১৮, ০৩:৫৩ পিএম | জাহিদ


আজিজুল ইসলাম বারী, লালমনিরহাট প্রতিনিধি : দুটি হাতেই জন্ম থেকে অচল তাই পা দিয়ে লিখে এইচএসসি পরীক্ষা দিচ্ছে সে।  ঝকঝকে পা দিয়ে লেখা আরিফা খাতুন মনোযোগ সহকারে পরীক্ষায় খাতায় লিখে একাগ্রচিত্তে। 

লালমনিরহাট মজিদা খাতুন কলেজ থেকে লালমনিরহাট সরকারি কলেজে পরীক্ষা কেন্দ্রে পা দিয়ে লিখে এইচএসসি পরীক্ষা দিচ্ছে অদম্য মেধাবী ও প্রতিবন্ধী আরিফা আক্তার।  লেখাপড়া শিখে আরিফা শিক্ষক বা আইনজীবি হতে চায়। 

আরিফা লালমনিরহাট পৌর এলাকার উত্তর সাপটানা ব্র্যাক স্কুল থেকে পঞ্চম শ্রেণির প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা দিয়ে ৬০০ নম্বরের মধ্যে ৪২৫ পায়।  এরপর সে মোগলহাট ইউনিয়নের ফুলগাছ উচ্চবিদ্যালয় থেকে জেএসসি পরীক্ষা দিয়ে জিপিএ-৪.৪৪ ও এসএসসিতে পরীক্ষায় জিপিএ-৪.১১
পায়। 

এলাকার কয়েকজন বাসিন্দার সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, আরিফা সদর উপজেলার ফুলগাছ উচ্চবিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী হিসেবে এবার এইচএসসি (মানবিক) পরীক্ষা দিচ্ছে।  শারীরিক প্রতিবন্ধী আরিফা পরীক্ষা অন্য শিক্ষার্থীদের মতো বেঞ্চে বসে দিতে পারেনি।  তার দুই হাত অচল থাকায়
সে পা দিয়ে লিখে পরীক্ষা দেয়। 

আরিফার মা মমতাজ বেগম বলেন, ‘আমার দুই ছেলে ও তিন মেয়ের মধ্যে আরিফা সবার ছোট।  জন্মগতভাবে আরিফার দুই হাত বিকলাঙ্গ (অচল, আকারে ছোট ও দুর্বল)।  শিশুকাল থেকেই আরিফার পড়াশোনার প্রতি খুব ঝোঁক।  আমরা গরিব মানুষ।  অনেক কষ্টে, অনেকের সাহায্য-সহযোগিতায় এই অচল মেয়েকে এত দূর এনেছি। ’

আরিফার বাবা আবদুল আলী বলেন, ‘আমি শহরের ফুটপাতের একজন তালা-চাবির মেকার, অতি সামান্য আয়।  অভাবের কারণে আরিফার জন্মের পর ভালো চিকিৎসা করাতে পারি নাই।  অভাবের কারণে আমার অন্য ছেলেমেয়েদের লেখাপড়া করাতে না পারলেও আগ্রহ থাকায় আরিফাকে পড়ানোর চেষ্টা করছি। ’

আরিফা বলে, ‘সে লেখাপড়া শিখে শিক্ষক বা আইনজীবি হতে চায়।  তার গরিব বাবা-মা তাকে আরও অনেক দূর পড়াতে চায়, তার নিজেরও পড়ার আকাঙ্ক্ষা আছে। ’