১:১২ পিএম, ১৮ নভেম্বর ২০১৯, সোমবার | | ২০ রবিউল আউয়াল ১৪৪১




বাঘাইছড়িতে বিজিবির বিনামূল্য চিকিৎসা ও ঔষদ বিতরণ

১৭ অক্টোবর ২০১৯, ০৫:২৫ পিএম | নকিব


জগৎ দাশ,বাঘাইছড়ি প্রতিনিধি : রাঙামাটির সর্ববৃহৎ উপজেলার প্রত্যান্ত অঞ্চল বাঘাইছড়ি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ডাক্টার সংকট ও ঔষদ সংকটের কবে পড়া অসহায়   সাধারন মানুষের কথা বিবেচন করে মারিশ্যা জোন ২৭ বিজিবির নিজস্ব ডাক্টার দিয়ে উপজেলার পাহাড়ি ও বাঙ্গালী এলাকায় ভ্রাম্যমান চিকিৎসা সেবা ও বিনামূল্য ঔষদ সরবরাহ দিয়ে সাধারণ মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে এক বিরল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন। 

বৃহস্প্রতিবার বেলা ১১.৩০ মিঃ উপজেলা মুসলিম ব্লক এলাকায় ইমাম পাড়ার একটি (গণশিক্ষা) পাড়া কেন্দ্রে ২৭ বিজিবির ব্যাটালিয়ন ক্যাপ্টেন ডাঃ আল-আমিন স্থানিয় জনসাধারন রুগীরদের নিপুন ভাবে চিকৎসাসেবা  ব্যাবস্থাপত্র সহ বিনামূল্য ঔষদ সরবরাহ ও প্রধান করছে। আজ বৃহস্প্রতিবার বিজিবির ভ্রাম্যমান এই চিকিৎসা কেন্দ্রে প্রায়  ৩ শতাধিক রুগীর  চিকিৎসা সেবা ও বিনামূল্য  ঔষদ প্রদান করেছেন  বলে বিজিবির নির্ভোরয্যেগ্য একটি সূত্র থেকে এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন। 

বিজিবির এমন কর্মকান্ডের খবর পেয়ে এই প্রতিবেদক তথ্য সংগ্রহে ঘটানাস্থল সরেজমিন পরিদর্শনে গেলে দেখা যায় ভ্রাম্যমান চিকাৎসা কেন্দ্রেকে গিরে স্থানিয়  লোকজনের উপছে পড়া ভির। 

একসাথে এত লোকজনের ভীর কখনো বাঘাইছড়ি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে দেখা মেলেনি বলে মন্তব্য করেছেন স্থানিয় জনপ্রতিনিধি ও সুশিল ব্যাক্তিবর্গরা। চিকিৎসা নিতে আসা অনেকের সাথে কথা বলে যানাযায়, বাঘাইছড়ি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সটি ডাক্টার সংকট, ও মাসের ১০ তারিখের পর থেকে সরকারি ঔষদ সংকটের কারনে সাধারন গরিব জনগন ৩ টাকার টিকেটে বিনামূল্য চিকিৎসা সেবা ও ঔষদ  না পাওয়ার অভিযোগ তুলেন।  ভুক্তভুগীরা আরো বলেন,মুসলিম ব্লক থেকে বাঘাইছড়ি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা নিতে গেলে প্রথমে গাড়ি ভাড়ার ৫০ টাকা খরচ করে গেলে নানান সংকটের কবলে পড়ার কথা ব্যক্ত করেন ভুক্তভুগীরা। 

তারা আরো বলেন, নুন আনতে পান্তা পরিয়ে যায় উপজেলার খেঁটে খাওয়া মানুষ শরিরে রোগ হলে যতক্ষণ সম্বভ নিজেদের মধ্য নিয়ন্ত্রন করা ঠিক তথক্ষণ পর্যন্ত স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে না গিয়ে কোন ভাবে সেরে উঠার আপ্রান চেষ্টা করে যান এমন লোমহর্ষক মন্তব্য করেন স্থানিয় জোহরা খাতুন (৬৫) বছরের এক বয়োবৃদ্ধা। 

তিনি আরো বলেন,সাধারন গরিব জনগনের কথা ভেবে বিজিবির এমন উদ্যোগে আমরা উপকৃত হচ্ছি আল্লাহতালা যেন তাদের(বিজিবি)র  মঙ্গল করেন ।  ২৭ বিজিবি মারিশ্যা আসার পর থেকে স্থানিয় পর্যায়ে জনকল্যান মুখি বিভিন্ন কর্মকান্ডে নিজেদের ব্যাটালিয়নকে সম্পৃক্ত রেখেছেন এবং স্থানিয় জনগনের আস্তা অর্জন করে নিরলস কাজ করে যাচ্ছেন বলে স্থানিয় জনপ্রতিনিধিগন মন্তব্য প্রকাশ করেন। 

এব্যাপারে ২৭ বিজিবি মারিশ্যা জোন অধিনায়ক লেঃ কর্ণেল মাহাবুবুল ইসলাম (পদাতিক) বলেন, উপজেলার আইন শৃঙ্খলা রক্ষা, চোরা চালান রোধের পাশাপাশি স্থানিয় গরিব সাধারণ জনগন হতদরিদ্র মানুষের পাশে থেকে তাদের নুন্যতম সেবা ব্যাটালিয়নের পক্ষ থেকে সহায়তা প্রদান পূর্বক তাদের মুখে একটু  হাসি ফুটাতে পারা মানে চরম এক আত্ত্ব তৃপ্তি  অনুভুত হয় আমরা। তিনি আরো বলেন,সমাজের বৃত্তবান মানুষেরা যদি অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে অবহেলীতদের সহায়তা প্রদান করে একদিন বদলে যাবে অবহেলীত মানুষের কষ্টের জীবন মান।