৯:৩৪ পিএম, ২০ নভেম্বর ২০১৯, বুধবার | | ২২ রবিউল আউয়াল ১৪৪১




বাঘাইছড়ির বিদ্যুৎ বিহীন আমতলী ইউপি সোলার প্যানেল বিতরণ

১৭ অক্টোবর ২০১৯, ১২:০০ পিএম | নকিব


জগৎ দাশ, বাঘাইছড়ি প্রতিনিধি||  রাঙ্গামাটির বাঘাইছড়ি উপজেলার  বিদ্যুত বিহীন আমতলী ইউনিয়নে ৬৬ পরিবারের মাঝে সোলার প্যানেল বিতরন করা হয়েছে। 

বুধবার সকাল ১০ ঘটিকায় আমতলী ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ের সামনে এসব সোলার প্যানেল বিতরন করেন আমতলী ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ রাশেল চৌধুরী। 

এসময় স্থানিয় ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি মোঃ সহিদ,ইউপি আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি সমশের আলী ও উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের সাধারন সম্পাদক জগৎ দাশ সহ স্থানীয় জনপ্রতিনিধিগণ উপস্থিত ছিলেন।  

এ বিষয়ে আমতলী ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ রাশেল চৌধুরী বলেন, গ্রাম হবে শহর প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী ঘরে ঘরে বিদ্যুত পৌঁছে দেয়ার লক্ষে আমি কাজ করে যাচ্ছি।  ইতোমধ্যে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান, মসজিদ মন্দির ও ব্যাক্তি পর্যায়ে প্রায় ৩ শতাধিক সোলার প্যানেল বিতরন করা হয়েছে।  

এই ধারাবাহিকতা বজায় থাকলে বিদ্যুৎ বিহীন আমতলী ইউনিয়নের ছোট ছোট পাহাড় বেষ্টিত ও নদীর দ্বীপ সংবলিত এলাকায় বসবাসকারী  জনগনের দুর্ভোগ লাগব হবে বলে তিনি মনে করেন।  ইউপি চেয়ারম্যান রাশেল চৌধুরী আরো বলেন,উপজেলার ৮ টি ইউনিয়নের ৭ ইউনিয়নে  বৈদ্যতিক সংযোগ থাকলে ও তার ইউনিয়নে বৈদ্যতিক কোন সংযোগ না থাকায় এখানকার জনগনকে সীমাহীন কষ্টে দিনাতিপাত করতে হয়। তিনি আরো বলেন,স্থানিয় প্রসাশন  বিদ্যুৎ বিহীন আমতলী এলাকায় সোল্যার প্যানেল বন্টনের ক্ষেত্রে যদি বিবেচনা করত তবে অন্যান্য ইউপির তুলনায় আমতলী ইউপি বাসী খুব বেশি উপকৃত হতে পারত ।  সরকারের  এই উদ্যোগ ধারাবাহীক থাকলে  শতভাগ সোলার বিতরন সম্বভ হবে এবং প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুতি গ্রাম হবে শহর সপ্ন বাস্তবায়ন হবে বলে তিনি মনে করেন। 

উপকার ভোগীদের সাথে কথা বলে জানাযায়, বিদ্যুত বিহীন এলাকায় এসব সোলার তাদের দিন বদলে দিচ্ছে।  অথিতে  হারিকেনের  আলোয়  ছেলে মেয়েদের  পড়াশোনা করাতে অনেক কষ্ট হতো।  এখন সোলারের মধ্যমে বিদ্যুত পেয়ে ছেলে মেয়েদের পড়াশোনা করতে অনেক আগ্রহ বেড়েছে, এছাড়াও সোলারের মাধ্যমে টিভি, ফ্যান, ফ্রীজও ব্যাবহার করতে পারছে । বর্তমানে বিভিন্ন বিদ্যালয়ে সোলার প্যানেলের মাধ্যমে ছাত্রছাত্রীরা ফ্যানের বাতাসে লেখাপড়ায় সাচ্ছন্দ উপভোগ করছ বলে যানা গেছে।  এদিকে আমতলী উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মোঃ হাসান এই প্রতিবেদককে বলেন, যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন ও কোন প্রকার বৈদ্যতিক আলো ছাড়া এক সময়ের প্রতিকূল পরিস্থিতিকে উপেক্ষা করে এখানকার মানুষ ছেলে মেয়েদের লেখাপড়া করিয়েছেন।  অনেক ছাত্র ছাত্রী অত্র ইউপিতে লেখা পড়ায় কৃতিত্ব অর্জন করেছেন এবং বেশকিছু ছেলেমেয়ে প্রথম শ্রেনীর কর্মকর্তা হিসেবে বিভিন্ন ব্যাংক,নিবার্চন অফিসার ও সরকারী কলেজ ও পুলিশ বাহীনীতে কর্মরত আছেন। তিনি আরো বলেন, বর্তমান সরকারের সোলার প্যানেল বিতরনে শিক্ষার মান ও জীবনযাত্রার মান উন্নত হচ্ছে । 

সরকারের এমন উদ্যোগকে তিনি স্বাগত জানিয়ে বলেন,এই ইউনিয়নে উপজেলার সাথে যোগাযোগের রাস্তা ও বৈদ্যতিক লাইন চালু হলে আমতলীর প্রতিটি মানুষ উপকৃত হবে সরকারের নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি গ্রাম হবে শহর বাস্তবায়িত হবে বলে তিনি মত প্রকাশ করেন।