১:২৭ পিএম, ১১ ডিসেম্বর ২০১৭, সোমবার | | ২২ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯

South Asian College

বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধি নয় বরং প্রতি ইউনিটে পয়সা কমানো সম্ভব : আবু হাসান টিপু

২৭ নভেম্বর ২০১৭, ০৩:৩০ পিএম | মুন্না


এসএনএন২৪.কম : গণতান্ত্রিক বামমোর্চা ও সিপিবি-বাসদ’এর আহবানে ৩০ নভেম্বর সারা দেশে অর্ধবেলা হরতালের সমর্থনে অনুষ্ঠিত কর্মী সভাতে বাংলাদেশের বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির কেন্দ্রীয় পলিট ব্যুরোর সদস্য ও নারায়ণগঞ্জ জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক জননেতা কমরেড আবু হাসান টিপু বলেছেন, সমস্ত যুক্তি উপেক্ষা করে সরকার গায়ের জোরে বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর ঘোষনা দিয়েছে। 

২৪ সেপ্টম্বর গণশুনানীতে আমরা হিসেব করে দেখিয়েছিলাম সরকার যদি বিদ্যুৎ ক্ষেত্রে তাদের প্রচলিত ভুলনীতি এবং দুর্নীতি পরিহার করে তবেই কমপক্ষে ৭ হাজার কোটি টাকা সাশ্রয় করা সম্ভব।  ডিজেলের পরিবর্তে ফার্নিস ওয়েল ব্যবহার, বেসরকারী বিদ্যুৎ কেন্দ্রের পরিবর্তে রাষ্ট্রীয় বিদ্যুৎকেন্দ্রে গ্যাস সরবরাহ এবং দুর্নীতি, অপচয়, লুটপাট বন্ধ করলে বিদ্যুতের দাম বাড়ানো নয় বরং প্রতি ইউনিটে ১টাকা ৫৬ পয়সা দাম কমানো সম্ভব। 

তিনি বলেন, বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধির ফলে সাধারণ মানুষের জীবন যাত্রার ব্যায় অনেক খানি বেড়ে যাবে।  এবং সব চেয়ে বেশী ক্ষতিগ্রস্ত হবে নিম্ন আয়ের শ্রমজীবী মেহনতি মানুষ।  বিদ্যুতের দাম বাড়ার সাথে সাথে বাড়ী ভাড়া, পানির দামসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় সকল জিনিসের দাম বাড়বে।  মুনাফা বাড়বে এক শ্রেণীর লুটেরা ব্যবসায়ীদের, আর দায় বহন করতে হবে দেশের সাধারণ জনগণকে। 

আবু হাসান টিপু বলেন বাজার মনিটরিং ব্যবস্থায় সরকারের চরম ব্যার্থতার কারণে এমনিতেই চালসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের মূল্যবৃদ্ধিতে জনগণ দিশেহারা তা নিরসন না করে বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধি করা হয়েছে।  রেন্টাল-কুইকরেন্টাল বিদ্যুৎ ব্যবসায়ী, বেসরকারী বিদ্যুৎ উৎপাদনকারী, বিদ্যুৎ আমদানী কারক, এলএনজি আমদানী কারকদের মুনাফা বৃদ্ধির স্বার্থে বিদ্যুতের এই দাম বাড়ানোর সরকারী ঘোষনা জনগণ কোন ভাবেই বরদাস্ত করবেনা। 

তিনি বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর গণবিরোধী সিদ্ধান্ত বাতিল ও চালসহ নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসের দাম কমানোর দাবিতে দেশবাসীর প্রতি আগামী ৩০ নভেম্বর সকাল ৬ টা থেকে ২ টা পর্যন্ত সর্বাত্মক হরতাল সফল করার জন্য আহবান করেন। 

বাংলাদেশের বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির নারায়ণগঞ্জ জেলা কমিটির সভাপতি শ্রমিকনেতা মাহমুদ হোসেন-এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত কর্মী সভাতে তিনি এসব কথা বলেন। 

২৭ নভেম্বর সোমবার সকালে বাংলাদেশের বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির নারায়ণগঞ্জ জেলা কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত এই কর্মী সভাতে অন্যন্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন নারীনেত্রী রাশিদা বেগম, শ্রমিকনেতা শহীদুল আলম নাননু, সাইফুল ইসলাম, হাবিবুর রহমান আঙ্গুর, নাজমুল হাসান নাননু, রোকসানা বেগম, আল আমিন প্রমূখ।