১২:৩৮ এএম, ২৩ নভেম্বর ২০১৭, বৃহস্পতিবার | | ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯

South Asian College

বেনাপোল স্থলবন্দর দিয়ে আমদানি-রপ্তানি বন্ধ

১০ নভেম্বর ২০১৭, ০৭:৩০ এএম | রাহুল


এসএনএন২৪.কম : সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট কর্মচারী ইউনিয়নের আন্দোলনের মুখে বৃহস্পতিবার বেনাপোল স্থলবন্দর দিয়ে ভারতের সঙ্গে আমদানি-রপ্তানি কার্যক্রম বন্ধ হয়ে গেছে। 

এ কারণে ফল, চালসহ পচনশীল পণ্যবাহী শত শত ট্রাক আটকা পড়েছে এপারের বেনাপোল ও ওপারের পেট্রাপোল স্থলবন্দরে। 

জানা গেছে, বেনাপোল স্থলবন্দরে আমদানি করা ভারতীয় পণ্যবোঝাই ট্রাক থেকে একটি দেশীয় শুটার গান ও দুই রাউন্ড রাইফেলের গুলি উদ্ধারের ঘটনায় পুলিশ মিকাইল হোসেন (২৭) নামের এক সিঅ্যান্ডএফ কর্মচারীকে গ্রেপ্তার করে।  তাঁর বিরুদ্ধে পুলিশ মামলা করে।  এ অবস্থায় সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট কর্মচারী ইউনিয়ন মিকাইল হোসেনের নিঃশর্ত মুক্তি ও মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১টা থেকে আন্দোলন শুরু করেছে।  ইউনিয়নের ডাকে কয়েক হাজার কর্মচারী বেনাপোল স্থলবন্দরে যশোরমুখী মহাসড়ক অবরোধের পাশাপাশি কাস্টমস এবং বন্দর এলাকায় বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেন।  এতে বেনাপোল-পেট্রাপোল স্থলবন্দর দিয়ে ভারত-বাংলাদেশের মধ্যকার আমদানি-রপ্তানি বন্ধ হয়ে যায়। 

পুলিশের সূত্রে বলা হয়েছে, তারা  বুধবার রাতে বেনাপোল বন্দরের ভারতীয় ট্রাক টার্মিনালে আসা ট্রাকে (ডব্লিউবি-২৩ সি-০৩৭৩) আমদানি করা পণ্যের সঙ্গে পাঁচটি আগ্নেয়াস্ত্র রয়েছে এমন একটি সংবাদ পায়।  এর ভিত্তিতে কাস্টমস, বন্দর কর্তৃপক্ষ, বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) ও পুলিশসহ সংশ্লিষ্ট সংস্থাগুলোর উপস্থিতিতে ওই ট্রাক থেকে তল্লাশি চালাতে পণ্য নামানো শুরু হয়।  এ সময় ট্রাকের ডালার পেছনে পলিথিনে মোড়ানো প্যাকেটে একটি দেশি ওয়ানশুটার গান ও দুই রাউন্ড রাইফেলের গুলি পাওয়া যায়।  অভিযানের খবর পেয়ে অবশ্য ট্রাকটির চালক আগেই পালিয়ে যান। 

তবে এ সময় পুলিশ সোনিয়া এন্টারপ্রাইজ নামে একটি সিঅ্যান্ডএফ এজেন্টের কর্মচারী মিকাইল হোসেনকে গ্রেপ্তার করে।  এ ঘটনায় কাস্টমস কর্তৃপক্ষ মিকাইল হোসেনের নামে মামলা করে।  তাঁর নিঃশর্ত মুক্তি ও মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে গতকাল আন্দোলন শুরু করেন সিঅ্যান্ডএফ কর্মচারীরা। ওই ট্রাকে যে পণ্য রয়েছে তার আমদানিকারক ঢাকার ইউনিয়ন লেবেল এক্সেসরিজ লিমিটেড। 

বেনাপোল সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতি মুজিবর রহমান বলেন, ‘পুলিশ বিনা অপরাধে মিকাইলকে আটক করে অস্ত্র মামলা দায়ের করেছে।  এর প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার সকাল থেকে বেনাপোল বন্দরে আমদানি-রপ্তানিসহ সব কার্যক্রম বন্ধ করে দিয়েছে কর্মচারীরা।  মিকাইলের মুক্তি না হওয়া পর্যন্ত আমাদের পক্ষে কাজ করা সম্ভব নয়। 

এদিকে বেনাপোল বন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) অপূর্ব হাসান প্রথম আলোকে বলেন, ‘ভারতীয় ট্রাক থেকে একটি দেশে তৈরি শুটারগান ও দুই রাউন্ড রাইফেলের গুলি উদ্ধার করা হয়েছে।  এ সময় ট্রাকের পণ্য খালাসের কাজে নিয়োজিত সিঅ্যান্ডএফ এজেন্টের কর্মচারী মিকাইল হোসেনকে আটক করা হয়।  পরে তাঁর বিরুদ্ধে কাস্টমস কর্তৃপক্ষ মামলা দায়ের করেছে।  এই মামলায় মিকাইলকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে আজ (বৃহস্পতিবার) আদালতের মাধ্যমে তাঁকে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। 

বেনাপোল কাস্টমসের কমিশনার শওকাত হোসেন বলেন, ‘মিকাইল হোসেনের বিরুদ্ধে আমরা অভিযোগ দিয়েছি।  বিষয়টি তদন্ত করবে পুলিশ।  তদন্তে তিনি দোষী বা নির্দোষ প্রমাণিত হবেন। 

শওকাত হোসেন আরও বলেন, ‘এ ঘটনায় সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট কর্মচারীরা আন্দোলন করায় বন্দরে কোনো কাজ হয়নি।  কোনো পণ্য লোড-আনলোড (ওঠানো-নামানো) হয়নি।  আমরা বন্দর সচল করার জন্য চেষ্টা অব্যাহত রেখেছি।  সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট কর্মচারী ইউনিয়নের নেতাদের সঙ্গে দুই দফা বৈঠক করেছি।  তারা আমাদের আশ্বাস দিয়েছে।  আশা করছি, সিঅ্যান্ডএফ কর্মচারীরা খুব দ্রুত কাজে ফিরে আসবেন।