৯:৩৮ এএম, ২৮ নভেম্বর ২০২১, রোববার | | ২২ রবিউস সানি ১৪৪৩




ব্যাংকের বুথ থেকে ১০ লাখ টাকা চুরি

২২ নভেম্বর ২০২১, ১০:২২ এএম |


এসএনএন২৪.কম: প্রাইম ব্যাংকের রংপুরের একটি এটিএম বুথ থেকে প্রায় ১০ লাখ টাকা চুরির মামলায় ব্যাংকটির বগুড়া শাখার ক্যাশ অফিসার আবু রায়হানকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। 

গ্রেপ্তারের পর রোববার (২১ নভেম্বর) সন্ধ্যায় রংপুর মহানগর আদালতের বিচারক জাহাঙ্গীর আলমের আদালতে তোলা হলে তাকে জেলহাজতে প্রেরণের নির্দেশ দেওয়া হয়। 

বিগত ৬ অক্টোবর ঘটে যাওয়া এই ঘটনায় আবু রায়হানকে মূল হোতা হিসেবে চিহ্নিত করা হয়।  শনিবার (২০ নভেম্বর) পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) বগুড়া শহর থেকে আবু রায়হানকে গ্রেপ্তার করে। 

প্রাইম ব্যাংক রংপুর শাখার সহকারী ভাইস প্রেসিডেন্ট পীষুয কুমার রায় ঘটনার দিনই রংপুর মহানগর কোতোয়ালি থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে একটি মামলা করেন।  মামলায় আভিযোগে বলা হয়, নগরীর প্রেসক্লাব এলাকায় প্রাইম ব্যাংকের এটিএম বুথ থেকে অজ্ঞাত হ্যাকাররা ডিজিটাল ডিভাইস ব্যবহার করে ৯ লাখ ৬৩ হাজার টাকা চুরি করেছে।  মামলাটি আদালতে পেশ করা হলে পিবিআইকে তদন্তের নির্দেশ দেন আদালত।  তদন্তের শুরুতেই প্রকৌশলী দিয়ে বুথের ভল্ট পরীক্ষা করে এক লাখ ৩২ হাজার টাকা উদ্ধার হয়। 

এর আগে গত বছরের ১৭ জুন যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে বুথটি বিকল হয়ে যায়।  স্থানীয় শাখা কর্মকর্তারা ঢাকার প্রধান কার্যালয়ে জানালে ৪ অক্টোবর ঢাকা থেকে প্রকৌশলী ও কর্মকতারা বুথটি খুলে ভল্টের ৩টি ক্যাসেট চুরির ঘটনা নিশ্চিত করে। 

পিবিআইয়ের বরাত দিয়ে জানা যায়, গত বছরের আগস্টের শুরুর দিকে রায়হানকে বগুড়ায় বদলি করা হয়।  বদলি আদেশের পরও ২০ আগস্ট পর্যন্ত তিনি রংপুর শাখায় ছিল।  বুথটি বিকল হওয়ার আগে শেষ তিনবার টাকা লোডের সময় তিনবারই আবু রায়হান উপস্থিত ছিল।  তার সঙ্গে পাসওয়ার্ড বহনকারী কর্মকর্তা ফরহাদ একবার উপস্থিত থাকলেও পরবর্তীতে ছিল না।  সে সময় মিলন মিয়া নামে এক কর্মচারীর ফোন ব্যবহার করে এবং শেষবার ব্যাংক থেকে চিরকুটে করে পাসওয়ার্ড নিয়েছিল আবু রায়হান।  এ ছাড়া সর্বশেষ ৩ জুন ৩০ লাখ টাকা লোড দেওয়ার জন্য ব্যাংক থেকে আনা হলেও পুরো টাকা লোড দেওয়া হয়নি। 

পিবিআইয়ের রংপুরের পুলিশ সুপার এবিএম জাকির হোসেন জানান, বদলি আদেশের সুযোগ নিয়ে কাছে থাকা দুটি গোপন পাসওয়ার্ড ব্যবহার করে পরিকল্পিতভাবে বুথের ভল্টে থাকা মোট নয় লাখ ৬৩ হাজার টাকা চুরি করে আবু রায়হান।  টাকা চুরির ঘটনায় জড়িত অন্যদের গ্রেপ্তার ও টাকা উদ্ধারের চেষ্টা চলছে বলে জানান পুলিশ সুপার।