১১:৪০ পিএম, ২১ জুন ২০১৮, বৃহস্পতিবার | | ৭ শাওয়াল ১৪৩৯

South Asian College

ভিআইপি লেনের দাবী কতটুকু যৌক্তিক?

০৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ১১:৩০ পিএম | সাদি


এসএনএন২৪.কম : ‘ভিআইপিদের চলাচলের জন্য স্বতন্ত্র লেনের দাবী উঠেছে।  যে শহরে গাড়ীর গতি কচ্ছপ গতির চেয়েও ধীর অর্থ্যাৎ ঘন্টায় মোটে ৫-৭ কিলোমিটারের বেশি নয় সে শহরে, সেই সকল গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের জন্য আলাদা চলাচলের রাস্তা সৃষ্টি করার দাবীটুকু বোধহয় পুরোদস্তুর অযৌক্তিক নয় কিন্তু দেশের অন্যান্য মানুষের সাথে এতে বৈষম্য সৃষ্টির পথটুকু উম্মোচিত হওয়ার প্রারম্ভ হবে নাতো ?

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের সংবিধানের প্রস্তাবনায় বলা আছে, ‘আমরা অঙ্গীকার করছি যে, আমাদের রাষ্ট্রের মূল লক্ষ্য হবে.... .রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক ও সামাজিক সাম্য...। ’ যারা ঢাকার রাস্তায় সাইকেলে চলাচল করে কিংবা সাইকেলে চলাচল করার ইচ্ছা পোষণ করে তাদের তরফ থেকে বিগত বেশ কয়েক বছর ধরে দাবী চলছিল, তাদের জন্য আলাদা লেন তৈরি করার ।  রাষ্ট্রের পক্ষ থেকে এ দাবীকে সরাসরি প্রত্যাখ্যান করা হয়েছে। 

সার্চ ইঞ্জিন গুগল সাক্ষী, বিশ্বের কোন দেশে ভিআইপিদের চলাচলের জন্য আলাদা লেনের সংবাদ পাওয়া যায়নি।  বাংলাদেশে এটা কেন আবশ্যক হয়ে দাঁড়ালো তার ব্যাখ্যা কর্তৃপক্ষের কাছে যৌক্তিক মনে হলেও সাধারণ মানুষ এবং সড়ক বিশেষজ্ঞদের কাছে এটা অয়ৌক্তিক ঠেকছে।  কর্তৃপক্ষের পক্ষ থেকে, আলাদা লেনের প্রস্তাবে বলা হয়েছে, জরুরী সেবা যেমন এ্যামবুলেন্স, আইন শৃঙ্খলারক্ষাকারী বাহিনীদের কার্যক্রমের সুবিধার্থে আলাদা লেন করার যায় কিনা-সে ব্যাপারে সংশ্লিষ্টরা ভাববে।  ঢাকায়  জ্যামের যে অবস্থা তাতে নগরবাসী নিঃসন্দেহে নিত্য নাকাল হচ্ছেন ।  গর্ভবতী নারী, মুমূর্ষু রোগীদের চিকিৎসালয় পৌঁছাতে ঘন্টার পর ঘন্টা পথেই নষ্ট হয়ে যাচ্ছে । 

জ্যামে আটকা পরে রোগী মারা গেছে এমন সংখ্যাটাও নেহায়েত কম নয়।  গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিবর্গের চলাচলের জন্য হুটহাট রাস্তা বন্ধ রাখার প্রবনতায় নগরবাসী রীতিমত বিরক্ত।  প্রায় ২ কোটি মানুষের শহর ঢাকার রাস্তায় জ্যামের সারি কয়েক মাইল জুরে নিত্য থাকার পরে সেথায় হাতে গোনা কিছু সংখ্যক ভিআইপির জন্য আলাদা লেন করতে গেলে আমপাবলিকের চলাচলের পরিধি সংকুচিত হয়ে ভোগান্তি আরও বাড়বে বহি কমবে কি ?

ভিআইপিদের চলাচলের জন্য আলাদা লেনের ব্যবস্থা করে মানুষে মানুষে বৈষম্য সৃষ্টি করা বোধহয় উচিত হবে না ।  বরং কীভাবে রাজধানীর যানযটকে হৃাস করা যায় সে ব্যাপারে মাষ্টার পরিকল্পনা গ্রহন করে তা বাস্তবায়নে উদ্যোগী হলে সেটা বোধহয় সার্বিকভাবে সকলের জন্য কল্যানকর হয় । 

ঢাকা শহরে সাড়ে সাতটা থেকে ১০টা এবং বিকাল ৫-৭টা পর্যন্ত তীব্র জ্যামের সৃষ্টি হয় ।  কেননা স্কুল ও অফিসমুখী শিক্ষার্থী ও কর্মজীবীর এই সময়টাতে বের হয় এবং কাজ শেষে বাসায় ফেরে ।  কাজেই ভিআইপিরা যদি এই সময়টা এড়িয়ে তাদের দায়িত্ব পালনে বের হয়ে তবে তাদেরকেও যেমন ভোগান্তিতে পড়তে হয়না তেমনি সাধারণ মানুষও নির্বিঘ্নে চলাচল করতে পারে ।  তাছাড়া, বাংলাদেশের ভিইপিদের লিষ্ট একটা লম্বা ধরনের ।  রাষ্ট্রকে স্ব-উদ্যোগে এ তালিকা নির্ধারণ করতে হবে।  দেশে উল্টোপথে যেভাবে গাড়ি ছোটানোর হিড়িক তাতে আলাদা লেন তৈরি করলে তাতেও বোধহয় খুব উপকার মেলবে না ।  সবকিছুর পরেও আলাদা লেন তৈরি করা অসম্ভব হবে না বটে কিন্তু তাতে আমাদের মানসিকতার যাত্রা উন্নতির দিকে ধাবিত হওয়ার প্রমান ছেড়ে মধ্যযুগের অন্ধকারে মিলিত হবে । 

রাজু আহমেদ ।  কলামিষ্ট । 
fb.com/rajucolumnis/t