১১:৪৪ পিএম, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৭, রোববার | | ৩ মুহররম ১৪৩৯

South Asian College

ভান্ডারিয়ায় স্কুল শিক্ষক খুন

১১ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ০৩:৫৫ পিএম | সাদি


মুহাঃ দেলোয়ার হোসাইন, পিরোজপুর প্রতিনিধি :  পিরোজপুরের ভান্ডারিয়ায় প্রতি পক্ষের হাতে মাওলানা মোঃ নাসির উদ্দিন হাওলাদার (৬০) নামের এক স্কুল শিক্ষক খুন হয়েছেন। 

জানা গেছে ভান্ডারিয়া উপজেলার ৪ নম্বর ইকড়ি ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ড পশ্চিম পশারিবুনিয়া (মাদারশী) গ্রামের মৃত আব্দুল গনি হাওলাদারের ছেলে মাওলানা নাসির উদ্দিনের সাথে তার বংশীয় চাচাত ভাইয়ের ছেলে আব্দুস ছালাম হাওলাদারের (৫০) বসত বাড়ির জমি নিয়ে দীর্ঘ দিন যাবৎ বিরোধ চলে আসছিল।  এ বিরোধের জেরে ভাতিজা আব্দুস ছালাম  তার ছেলে রমিজ ও স্বজনরা মিলে ১০ সেপ্টেম্বর রোববার নিজেদের বাড়িতে বসে সকালে মাওলানা নাসিরকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে গুরুতর জখম করে। 

এ সময় তাকে উদ্ধার করে ভান্ডারিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে দ্রুত বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠান হয়।  সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাতে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। 

মাওলানা নাসির উদ্দিন ভান্ডারিয়া উপজেলার হেতালিয়া নেছার উদ্দিন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ধর্মীয় শিক্ষক হিসাবে কর্মরত ছিলেন।  তিনি চার পুত্র সন্তানের জনক।  এ দিকে মাওলানা নাসিরের ওপর হামলা কারি আব্দুস ছালাম তার ছেলে রমিজ উদ্দিন ও ভাতিজা মিজানুর রহমান অসুস্থতার নাটক সাজাতে চিকিৎসার জন্য ভান্ডারিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হলে ভান্ডারিয়া থানা পুলিশ হাসপাতাল থেকে সোমবার সকাল দশটায় তাদের গ্রেফতার করে। 

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ভান্ডারিয়া থানার ওসি মোঃ কামরুজ্জামান তালুকদার।  থানার উপ পরিদর্শক ( এস আই) এনামূল হক জানিয়েছেন গ্রেফতার কৃতদের পিরোজপুর আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।  তিনি জানান নাছিরের ওপর হামলার পর তার ছেলে পলাশ বাদি হয়ে ১০ সেপ্টেম্বর থানায় একটি মামলা করেছেন।   উল্লেখ্য মাওলানা নাসিরকে গত ৫ বছর আগে মামলায় ফাঁসাতে  এই আব্দুস ছালাম নিজের মেয়ে সনিয়া আক্তারের বাম হাত কেটে ফেলে দেয়।