৩:৪৩ পিএম, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৭, সোমবার | | ৪ মুহররম ১৪৩৯

South Asian College

মঠবাড়িয়ায় বিএনপি নেতা হত্যা তদন্ত কমিটি গঠন

০৮ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ০২:৪৬ পিএম | সাদি


দেলোয়ার হোসাইন, পিরোজপুর : পিরোজপুর জেলার মঠবাড়িয়া উপজেলায় বিএনপি নেতাকে দিবালোকে অপহরণ শেষে হত্যার ঘটনায় পুলিশের গাফিলতি , হত্যার কান্ডের আগে ও পরে পুলিশের ভূমিকাসহ সার্বিক বিষয় তদন্তের জন্য পুলিশের তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।  দায়িত্বে অবহেলার অভিযোগে হত্যা কান্ড ঘটানোর স্থানের অদুরে অবস্থিত তুষখালী পুলিশ ফাঁড়ি ইনচার্জ এস আই মজিবুর রহমানকে ক্লোজড করা হয়েছে। 

বিষয়টি নিশ্চিত করে এ এসপি মঠবাড়িয়া সার্কেল শাহনেওয়াজ বলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবুল কালাম আজাদকে আহবায়ক , এসপি হেড কোয়াটার মোঃ মিরাজ হোসেন ও সহকারি পুলিশ সুপার মোঃ শাহনেওয়াজকে সদস্য করে যে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে তিন দিনের মধ্যে তদন্ত শেষ করে পুলিম সুপারের কাছে প্রতিবেদন দাখিল করতে বলা হয়েছে। 

উল্লেখ্য গত রোববার দুপুরে মঠবাড়িয়া উপজেলার ধানীসাফা ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ড ( উদয়তারা বুড়ির চর গ্রাম) বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মোঃ হাবিবুর রহমান তালুকদারকে অপহরণ করে।  ধানীসাফা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও ইউপি চেয়ারম্যান হারুন তালুকদার ও ৪ নম্বর ওয়ার্ড মেম্বার ইদ্রিস তালুকদারের নির্দেশে তাদের ছেলেরা ও স্থানীয় দুর্বৃত্তরা তুষখালী হাই স্কুলের সম্মুখ থেকে অপহরণ করার পর হত্যা করে ওই স্কুলের পরিত্যাক্ত সৌচাগারের পিছনে লুকিয়ে রাখে। 

গত ইউপি নির্বাচনে হাবিব তালুকদার চেয়ারম্যান প্রার্থী হারুন ও মেম্বার ইদ্রিস তালুকদারের পক্ষে কাজ না করার জের ও হত্যা কান্ড ঘটানোর আগের দিন ফুট বল খেলাকে কেন্দ্র করে হাবিব তালুকদার ও ইদ্রিস তালুকদারের ছেলের সাথে বিরোধের জেরে হাবিবকে দু’ দফায় রোববার তুষখালী বাজারে বসে মারধর করে।  পরে দুপুরে তাকে বাজার থেকে অপহরণ করে হত্যা করে।  এ ঘটনায় নিহতের সেজ ছেলে কলেজ ছাত্র হাফিজুর রহমান বাদি হয়ে আওয়ামীলীগ নেতা চেয়ারম্যান হারুন তালুকদার ও মেম্বার ইদ্রিস তালুকদারসহ ২৪ জনের বিরুদ্ধে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।  আসামিরা সবাই আওয়ামীলীগের স্থানীয় নেতা কর্মী।