২:৪১ এএম, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৭, শুক্রবার | | ২৬ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯

South Asian College

সকল প্রস্তুতি সম্পূর্ন

মুন্সীগঞ্জের মিরাকাদিমে শুরু হয়েছে তিন দিন ব্যাপি জেলা ইজতেমা

০৭ ডিসেম্বর ২০১৭, ০৫:২৯ পিএম | নিশি


শুভ ঘোষ,মুন্সীগঞ্জ : আজ থেকে শুরু হয়েছে তিন দিন ব্যাপি মুন্সীগঞ্জ জেলা ইজতেমা।  জেলার সদর উপজেলার মিরকাদিম পৌরসভা সংলগ্ন ৪টি মাঠে প্রথম বারের মত ব্যাপক পরিসরে অনুষ্ঠিত হচ্ছে এবারের ইজতেমা। 

আজ এবং আগামী ৮ ও ৯ ডিসেম্বর এ ইজতেমায় সমবেত হবে জেলার বিভিন্ন স্থানের কয়েক লক্ষ মুসল্লি।  এদিকে ইজতেমা উপলক্ষে ইতিমধ্যেই সম্পূর্ন হয়েছে সকল প্রস্তুতি।  সুষ্ঠভাবে পরিচালনা করতে প্রশাসন ও জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে নেওয়া হয়েছে নানা প্রস্তুতি। 

এছাড়াও  মিরকাদিম পৌরসভার পক্ষ থেকে থাকবে বিভিন্ন পদক্ষেপ।  গত বুধবার বিকাল থেকেই জেলার ৬টি উপজেলার বিভিন্ন মুসল্লীরা আসতে শুরু করে ইজতেমা ময়দানে।  আজ বৃহস্পতিবারের মধ্যে মাঠে সমবেত মসল্লিদের সংখ্যা লক্ষ ছাড়াবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।  আখেরি মোনাজাতে অংশগ্রহনের সংখ্যা কয়েক লক্ষ ছাড়াবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। 

এদিকে ইজতেমা উপলক্ষে দফায় দফায় মাঠ পরিদর্শন করেছে জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মোহম্মদ মহিউদ্দিন, মুন্সীগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য এড. মৃনাল কান্তি দাস, জেলা পুলিশ সুপার জায়েদুল আলম পিপিএম, মিরকাদিম পৌর মেয়র শহিদুল ইসলাম শাহীন সহ জেলার র্শীষ স্থানীয় রাজনৈতিক ও প্রশাসনিক ব্যাক্তিবর্গ। 

এবারে ইজতেমায় পৌরসভা সংলগ্ন চারটি মাঠে পুলিশ, বিভিন্ন সংস্থার চার শতাধিক সদস্য থাকার কথা নিশ্চিত করেছে সংশ্লিষ্টরা।  সমবেত মসল্লিদের প্রাথমিক চিকিৎসার জন্য ৩ টি মেডিক্যাল ক্যাম্প, ফায়ার সার্ভিসের একটি ইউনিট  ময়দানে থাকবে।   সার্বিক পর্যবেক্ষনের জন্য ৮টি সিসি ক্যামেরা লাগানো হয়েছে বিভিন্ন অংশে, এছাড়াও একটি ওয়াচ টাওয়ার নির্মান করা হয়েছে।  ওজু ও গোসলের জন্য ১৫টি বিশাল আকার ওজু খানা (বাত হাউজ) ছাড়াও ৩৫০ টি প্রসাবখানা, ৫১২টি টয়লেট নির্মান করা হয়েছে।  ১৫টি অজু খানায়  মোট ৮ট মোটরের মাধ্যমে বিশুদ্ধ পানি উত্তোলনে ব্যবস্থা রাখা হয়েছে।  ময়দান আলোকিত রাখার জন্য ২হাজারের বেশি আলোকবাতি ও ৮০ টি মাইকে বয়ান শুনার ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। 

জেলার ৬উপজেলা থেকে তাবলিগ জামাতে প্রায় ৪টি জামাত ইজতেমায় অংশগ্রহন করবে।  এছাড়াও স্থানীয় বিভিন্ন এলাকার মানুষ ও পাশবর্তী নারায়ণগঞ্জ ও জেলা বিভিন্ন স্থান থেকে তাবলিগ জামাতের সাথী ও বিভিন্ন শ্রেনী পেশার মানুষ ময়দানে উপস্থিত থাকার কথা রয়েছে।  ইজতেমায় বয়ান করবে তাবলিগ জামাতের দেশের র্শীষ বজুর্গরা। 

মাঠ পরিচালনা কমিটির সভাপতি (আমির) ফজলুল হক জানান, সকল প্রস্তুতি সম্পূর্ন হয়েছে।  তিনদিন মুসল্লীরা শান্তিপূর্ন ভাবে আল্লাহর ইবাদাত করতে পারবে। 

এ বিষয়ে জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোস্তাফিজুর রহমান দৈনিক ভোরের দর্পন কে জানায়, তিনদিনের ইজতেমায় সার্বিক নিরাপত্তা আমাদের আইনশৃংখলা বাহিনী থেকে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে, বাহিনীর সদস্যরা মাঠে নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে তৎপর থাকবে। 
তিনদিনের ইজতেমা শেষ হবে আগামী ৯তারিখ শনিবার আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে ইজতেমা শেষ হবে।