১০:২২ এএম, ২০ অক্টোবর ২০১৮, শনিবার | | ৯ সফর ১৪৪০


মোরেলগঞ্জে বোরে ধানের বাম্পার ফলন

১৭ এপ্রিল ২০১৮, ০২:১২ পিএম | জাহিদ


এম.পলাশ শরীফ, বাগেরহাট প্রতিনিধি : বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে বোরো ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে।  সাধারণ চাষীরা ইতোমধ্যে ধানকাটা শুরু করেছে। 

সময়মত ক্ষেতে সার, ভাল মানের বীজ, কৃষকের চাহিদা মাফিক বিষ শোধন করে বীজ পাতা তৈরী, সঠিক সময়ে পোকা মাকড় দমনে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন ব্লাষ্ট প্রতিরোধে স্থানীয় কৃষি বিভাগের আগাম প্রস্তুতি।  পাশাপাশি আবহাওয়া অনুকুলে থাকা এসব কারনেই চলতি বছরে বোরো মৌসুমে বোরো ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে বলে কৃষি বিভাগ দাবী করছে। 

উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানাগেছে, চলতি বোরো মৌসুমে ১৬টি ইউনিয়নে কৃষক ৪ হাজার ৮শ’ ৭০ হেক্টর জমিতে বোরো আবাদ করেছে।  গত বছরের চেয়ে ৫ হাজার ২৫০ বিঘা জমিতে ফসল বেশী উৎপাদন হয়েছে।  হাইব্রিড, এসিআই, হেক্টর প্রতি ফলন হয়েছে ৮.৪ মেট্রিকটন ও ব্রী-ধান ২৮ হেক্টর প্রতি ৮.১ মেট্রিকটন উৎপাদন হয়েছে। 

দেবরাজ গ্রামের কৃষক মো. শওকাত আলী হাওলাদার, বাবুল শেখ, সোহেল শেখ, ইউপি সদস্য মিলন শেখ ও আব্দুল জলিল খান জানান, স্বাধীনতার পরবর্তীতে পঞ্চকরণ ইউনিয়নে একটি ফসল আমন ধান ছাড়া আর কোন ধান উৎপাদন করতে পারেনি কৃষক।  অতিরিক্ত লবণাক্ততার কারনে এখানে ধান অন্যকোন জাতের হত না।  তবে লবণাক্ততা দূর করার জন্য সরকারিভাবে বান ভেরী ও বিভিন্ন খালের স্নুইজগেট নিমার্ণ করায় এখন আর এলাকায় লবন পানি প্রবেশে করতে পারছে না।  যে কারনে এ ইউনিয়নে ১৮শ” হেক্টর জমিতে এবারে বোরো ধান কৃষক চাষ করেছেন তাই ফসলও খুবই ভাল হয়েছে। 

এদিকে কৃষকদের মধ্যে একটি আতস্ক রয়েছে ফসল কেটে ঘরে না ওঠা পর্যন্ত কতিপয় অসাধু ঘের ব্যবসায়ীরা স্নুইজগেট খুলে দিয়ে লবন পানি এলাকায় ঢুকানোর পায়তারা করছে।  উপজেলার ১৬টি ইউনিয়নের মধ্যে এবারে নতুন করে এ বোরো জাতের ধান উৎপাদনে পঞ্চকরণ, পুটিখালী, বলইবুনিয়া, তেলীগাতি, বহুরবুনিয়া, জিউধরা ও রামচন্দ্রপুরে ব্যাপক ফসল উৎপাদন হয়েছে। 

এ ব্যাপারে মোরেলগঞ্জ কৃষি অফিসার কৃষিবিদ অনুপম রায় জানান, কৃষি বিভাগের উদ্যোগে চাষিদের উদ্ভদ্বকরন সময় মত তাদের পরামর্শ প্রদান কৃষকের ধানের দাম বৃদ্ধি পাওয়া বøাষ্ট প্রতিরোধে আগাম প্রস্তুতি এছাড়াও প্রতিটি ব্লকে মাঠ দিবসের মাধ্যমে আলোর ফাঁদ পার্চিং পদ্ধতি ও ভর্মি কম্পোষ্ট (কোচো সার) ব্যবহারে কৃষকদের সচেতনতার কারনেই এবারে উপজেলায় বোরো ফসলের বাম্পার ফলন হওয়া সম্ভব হয়েছে।