৭:২৩ এএম, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, শুক্রবার | | ২০ মুহররম ১৪৪১




মিরসরাইয়ে লক্কর ঝক্কর গাড়ি করা হচ্ছে চকচকে

২৮ মে ২০১৯, ০৮:৩৬ পিএম | জাহিদ


রাজু কুমার দে, মিরসরাই : মিরসরাইয়ে আসন্ন ঈদকে সামনে রেখে লক্কর ঝক্কর ও ফিটনেস বিহীন গাড়িগুলোকে করা হচ্ছে চকচকে।  চকচকে করে আবারো গাড়িগুলো রাস্তায় নামানো হবে।  তাই ব্যস্ত সময় পার করছে উপজেলার ৫টি বোডি বির্ল্ডাস ওয়ার্কস।  

জানা গেছে, মিরসরাইয়ে বিভিন্ন বাজারে ৫টি বোডি বিল্ডার্স ওয়ার্কসপ রয়েছে।  এগুলোর মধ্যে বারইয়ারহাটে ১টি, বড়তাকিয়া বাজারে ৩টি, ও মিঠাছড়া বাজারে ১টি।  এসব বোডি বিল্ডার্স ওয়ার্কসপে ফিটনেস বিহীন গাড়ি মেরামত ও রং করা হয়।  ইতিমধ্যে ফিটনেস বিহীন গাড়িগুলো মেরামত করতে গাড়ির মালিকরা ওয়ার্কসপগুলোতে ভীড় করছে।  উদ্দেশ্য একটাই।  আসন্ন ঈদে যাত্রীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত ভাড়া নিয়ে কিছু উপরি পয়সা আয় করা।  

আরো জানা গেছে, মিরসরাই উপজেলায় বিভিন্ন বাজারে অবস্থিত বোডি বিল্ডার্স ওয়ার্কসগুলোতে এখন ঈদের ব্যস্ততা।  গভীর রাত পর্যন্ত চলছে গাড়ি মেরামতের কাজ।  তাই নাওয়া খাওয়া ভুলে মিস্ত্রিরা কাজ করছে অহনিশি।  

বারইয়ারহাট পৌরসভায় অবস্থিত ভাই ভাই ইঞ্জিনিয়ারিং বোডি বিল্ডার্স ওয়ার্কসপের সত্বাধিকারী শংকর বাবু জানান, বছরের অন্য সময়ের তুলনায় ঈদ এলে ব্যবস্তা একটু বেড়ে যায়।  গাড়ির মালিকরা লক্কর ঝক্কর গাড়ির রং করতে ভীড় করে।  তিনি এই ঈদে ৩টি গাড়ির রং করার অর্ডার নিয়েছেন।  সময় স্বল্পতার কারণে বেশি অর্ডার নিতে পারেননি। 

আরো জানা গেছে, মিঠাছরা বাজারে অবস্থিত সূচনা ইঞ্জিনিয়ারিং মর্টসেও চলছে লক্কর ঝক্কর গাড়ি মেরামতের কাজ।  এদিকে লক্কর ঝক্কর গাড়িগুলো রং করে আবারো যাত্রী বহণ করায় অনেক সময় ঘটে দূর্ঘটনা।  এতে ব্যাপক প্রাণ হানীর ঘটনা ঘটে।  

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক বাস মালিক জানান, ঈদ এলে গাড়ি ব্যবসায়ীদের একটু বাড়তি আয় হয়।  তাই অনেকে লক্কর ঝক্কর গাড়িগুলো মেরামত করে রং চকচকে করে তোলে।  কারণ গাড়ি নতুন দেখলে যাত্রীরা বেশি ভীড় করে।  

এবিষয়ে জোরারগঞ্জ হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনর্চাজ সোহেল সরকার জানান, আসন্ন ঈদে লক্কর ঝক্কর গাড়ির বিরুদ্ধে অভিযান চালানো হবে।  কোন লক্কর ঝক্কর গাড়ি যাত্রী বহণ করতে পারবে না।  তাছাড়া অতিরিক্ত যাত্রী নিলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।